টিউশনির জমানো ৭০ হাজার টাকা ত্রাণ তহবিলে দিলেন ঢাবি ছাত্র



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
টিউশনি করে জমানো টাকা ত্রাণ তহবিলে দেন ঢাবি ছাত্র রাইয়্যান

টিউশনি করে জমানো টাকা ত্রাণ তহবিলে দেন ঢাবি ছাত্র রাইয়্যান

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী জেলা প্রশাসকের ত্রাণ তহবিলে ৭০ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী রাইয়্যান রেজা। টিউশনি ও থিসিস করে এ টাকা জমিয়েছিলেন তিনি।

বুধবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হকের কার্যালয়ে গিয়ে তিনি জমানো টাকাগুলো ত্রাণ সহায়তার জন্য প্রদান করেন।

রাইয়্যান ঢাবির ভূগোল ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তিনি রাজশাহী বিএডিসির যুগ্ম-পরিচালক (বীজ বিপণন) মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। রাইয়্যানের গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রামে। বাবার চাকরি সূত্রে তিনি রাজশাহীতে পরিবারের সঙ্গে বসবাস করছেন।

জানতে চাইলে রাইয়্যান রেজা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা শুরুর পর থেকেই টিউশনি করি। সেখান থেকে অল্প-স্বল্প টাকা জমাতাম। এছাড়া থিসিস করে কিছু বৃত্তি পেয়েছিলাম। সেগুলো ভবিষ্যতে জরুরি কাজে লাগানোর উদ্দেশ্যে জমিয়েছিলাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনাভাইরাসে অসহায়-দুস্থ মানুষ না খেয়ে দিনাতিপাত করছেন। সরকার তাদের সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমার মনে হয়েছে- বর্তমান পরিস্থিতিতে টাকা জমিয়ে রাখার আর কোনো মানেই হয় না। জমানো টাকাগুলো সদ্ব্যবহারের এখনি সময়। সেজন্য টাকাগুলো জেলা প্রশাসকের তহবিলে প্রদান করেছি।’

ত্রাণ তহবিলে অনুদান দেন অবসরপ্রাপ্ত অফিস সহায়ক

রাইয়্যানের বাবা মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘কিছুদিন আগে ছেলে জমানো টাকা জেলা প্রশাসকের তহবিলে দেওয়ার ইচ্ছের কথা জানায়। আমরা তাকে উৎসাহ দিয়েছি। তার এমন চিন্তা-ভাবনায় আমরাও খুব ভালো অনুভব করছি।’

রাজশাহী জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেন, ‘টিউশনি করে দীর্ঘদিনে জমানো টাকাগুলো নিয়ে একজন শিক্ষার্থী যেভাবে এগিয়ে এসেছেন, তা সত্যিই আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে। রাইয়্যানের এই অনুদান সমাজের যারা বিত্তবান কাছে বার্তা। দেরি না করে তাদেরকেও আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে আসতে হবে।’

এদিকে, একই সময়ে জেলা প্রশাসক দফতরের অবসরপ্রাপ্ত অফিস সহায়ক মো. সিদ্দিক মিয়াও ত্রাণ তহবিলে ১০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন।