ঘরেও ঈদের আনন্দ নেই তিন গ্রামের পাঁচশ পরিবারে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
ঘরেও ঈদের আনন্দ নেই তিন গ্রামের পাঁচশ পরিবারে

ঘরেও ঈদের আনন্দ নেই তিন গ্রামের পাঁচশ পরিবারে

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘরেও ঈদের আনন্দ নেই ধুনট উপজেলার চিকাশী ইউনিয়নের তিনটি গ্রামের পাঁচ শতাধিক পরিবারের। পরিবারের নারীরা বাড়িতে থাকলেও পুরুষ সদস্যরা সময় কাটাচ্ছেন খেলাধুলা করে। করোনার প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া পাঁচ শতাধিক পরিবারের মধ্যে গত দুই মাসে সরকারি সহায়তা পেয়েছেন মাত্র ৬৯টি পরিবার। প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের নগদ টাকাও পাননি কেউ।

সোমবার (২৫ মে) দুপুরে চিকাশী ইউনিয়নের আটবাড়িয়া গ্রামে গিয়ে লোকজনের সঙ্গে কথা বললে তারা এ তথ্য জানান ।

বগুড়া-চন্দনবাইশা সড়কে ধুনট উপজেলার শেষ সীমানায় অবস্থিত আট বাড়িয়া, খাটিয়া ও গুলের তাইর গ্রাম। ধুনট উপজেলা সদর থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরের এই তিনটি গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ সব সময়ই তারা অবহেলিত। আটবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা আফজাল মন্ডল, শুকুর আলী ও মিন্টু রাস্তার পাশে বসে মাটিতে দাগ কেটে খেলাধুলা করছেন। ঈদের দিন খেলার কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, দুই মাস হলো কোনো কাজ নাই, আমাদের আবার ঈদ? সরকারি কোনো সাহায্য সহযোগিতা নাই, তিন বেলা ভাতই জোটে না তাদের আবার ঈদের আনন্দ?

সেখানে উপস্থিত খাটিয়া গ্রামের আব্দুস সামাদ বার্তা২৪.কম-কে বলেন, এই গ্রামের মানুষের খবর কেউ রাখে না। ধুনট ও সারিয়াকান্দি উপজেলার শেষ সীমানা গ্রাম তিনটির অবস্থান হওয়ায় জনপ্রতিনিধিদেরকে শুধু ভোটের সময় দেখা যায় তিন গ্রামের ১৮শ' ভোট নেওয়ার জন্য।

সেখানে উপস্থিত লোকজন ডেকে আনেন স্থানীয় ইউপি সদস্য হারুনার রশিদ রেজাকে। সরকারি ত্রাণ সহযোগিতা না পাওয়ার ব্যাপারে তিনি বার্তা২৪.কম-কে বলেন, গত দুই মাসে কয়েক দফায় ৬৯টি পরিবারকে ১০ কেজি করে ও ২ কেজি করে আলু দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া আর কোনো সহযোগিতা দেওয়া সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার নগদ টাকার জন্য চারজনের নাম দেওয়া হলেও তারা এখনও পাননি।

আপনার মতামত লিখুন :