করোনা রোগী কাজ করছেন কারখানায়, না পেয়ে ফিরল অ্যাম্বুলেন্স!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নীলফামারী
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নীলফামারীর জলঢাকায় করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়া যুবককে আইসোলেশন ওয়ার্ডে নিতে গেলে তাকে খুঁজে না পেয়ে খালি অ্যাম্বুলেন্স নিয়েই ফিরলেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়- জলঢাকায় নয়, বর্তমানে ওই যুবক নারায়ণগঞ্জে একটি টেক্সটাইল কারখানায় কর্মরত রয়েছেন।

শনিবার (৩০ মে) রাত ১০টায় নীলফামারী জেলা সিভিল সার্জন ডা. রণজিৎ কুমার বর্মন বার্তা২৪.কম-কে এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

করোনা আক্রান্ত ওই যুবক জলঢাকা উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের বাসিন্দা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনা আক্রান্ত ওই যুবক নারায়ণগঞ্জ থেকে গত ১০ মে গ্রামের বাড়িতে স্ত্রীসহ ঈদ করতে আসেন। এরপর তার শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দেয়। গত ২৪ মে ওই যুবকসহ তার পরিবারের নমুনা নেয় জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। কিন্তু তাৎক্ষণিক রিপোর্ট না আসায় ঈদ উদযাপন শেষে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে স্ত্রীসহ ঢাকায় চলে যান তিনি। এ সময় মাইক্রোবাসে আরও ১৩ জন যাত্রী ছিলেন। শনিবার নমুনা পরীক্ষায় ওই যুবকের করোনা পজিটিভ আসে।

নীলফামারী জেলা সিভিল সার্জন ডা. রণজিৎ কুমার বর্মন জানান, শনিবার সন্ধ্যায় ওই যুবককে আইসোলেশন ওয়ার্ডে নিতে একটি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে টেঙ্গনমারী গ্রামে যায় জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। কিন্তু তাকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায় ওই যুবক বর্তমানে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে রয়েছেন। সেখানে একটি টেক্সটাইল কারখানায় চাকরি করছেন। নিয়ম করে প্রতিদিন কারখানায়ও যাচ্ছেন। বিষয়টি নারায়ণগঞ্জের স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়েছে। তারা ওই যুবককে নারায়ণগঞ্জে আইসোলেশন ওয়ার্ডে নেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

আপনার মতামত লিখুন :