চবি'তে কোভিড-১৯ চিকিৎসা সেবায় শিক্ষক সমিতির পদক্ষেপ



লুৎফে আলি মহব্বত, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
চট্টগ্রাম  বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষকদের জন্য ৫ টি অক্সিজেন ও পালস অক্সিমিটার কেনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে শিক্ষক সমিতি। তাছাড়া কোন শিক্ষক কোভিড-১৯ আক্রান্ত হলে তাদের জন্য ক্যাম্পাসে ও চট্টগ্রাম শহরে দুটি আইসোলেশন সেন্টার করার উদ্যোগ নেয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে জোরালো দাবি জানিয়েছে শিক্ষক সমিতি।

গত কয়েকদিনে করেনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে একজন শিক্ষকসহ একাধিক জনের মৃত্যু ও আক্রান্ত হওয়ার প্রেক্ষাপটে চবি শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে এসব দাবি উত্থাপন করা হয়।

মঙ্গলবার (২ জুন) সমিতির সূত্রে বলা হয়, শহরে শিক্ষক ক্লাবের গেস্ট হাউজে পাঁচটি এবং ক্যাম্পাসে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হল ও মেডিক্যাল সেন্টারের দ্বিতীয় তলায় পাঁচটি বেডের আইসোলেশন সেন্টার করা সম্ভব।

উল্লেখ্য, আইসিইউ স্থাপন একটি সময়সাপেক্ষ, ব্যয়বহুল ও জটিল প্রক্রিয়া। এক্ষেত্রে বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধান প্রয়োজন এবং আইসিইউ'র যন্ত্রাংশ দেশের বাইরে থেকে আমদানি করা প্রয়োজন। শিক্ষক সমিতি ইতিমধ্যে আইসিইউ বিশেষজ্ঞ এবং আইসিইউ বেড ও অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদি প্রস্তুতকারকদের সাথে যোগাযোগ করেছে। এই মুহুর্তে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলে বাঁধার কারণে এসব সরঞ্জামাদি আমদানি করা বেশ দুরহ ব্যাপার। এই ক্ষেত্রে এই মুহুর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ে আইসিইউ ফ্যাসিলিটি, বেড ও প্রয়োজনীয় মেডিকেল যন্ত্রাংশ স্থাপন সম্ভব নয় বলে সমিতি মনে করে।

এই পরিস্থিতিতে, চলমান বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে একটি বেড ডোনেশনের মাধ্যমে চবি শিক্ষকদের জন্য অগ্রাধিকার সেবা পাওয়ার ব্যাপারে একটি আলোচনা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে সমিতির তরফে বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করা হয়েছে। সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদিত ও সংযুক্ত চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল এবং সাউদার্ন মেডিকেল কলেজের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে এ ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

অনেক শিক্ষক ও তাদের পরিবার এ মুহূর্তে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত উল্লেখ করে এই ক্ষেত্রে মনোবিজ্ঞান বিভাগকে শিক্ষক ও ছাত্রদের বিশেষ কাউন্সেলিং সার্ভিস প্রদান করার জন্য শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। মনোবিজ্ঞান বিভাগের বিশেষ ক্লিনিক্যাল কাউন্সেলিং সার্ভিস শুরু হয়েছে এবং তার জন্য ছয়জন ক্লিনিক্যাল কাউন্সিলর নিযুক্ত করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্য প্রতিষ্ঠিত কভিড টেস্টিং ল্যাব কেবলমাত্র নমুনা পরীক্ষা করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় নমুনা সংগ্রহের জন্য অনুমোদিত নয়। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের নমুনা সংগ্রহ ও দ্রুত পরীক্ষার জন্য শিক্ষক সমিতি থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, সিটি কর্পোরেশনের বুথ, বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টার এবং হাটহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাথে আলোচনা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

কোভিড আক্রান্ত কোন শিক্ষককে বিশেষ ক্ষেত্রে হোম আইসোলেশনের পরিবর্তে হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন হলে চট্টগ্রাম ফিল্ড হসপিটালে বিশেষ অগ্রাধিকার/ব্যবস্থার জন্য আলোচনা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও শিক্ষক সমিতি জানিয়েছে।