রাজশাহী স্টেশনে ট্রেন থেকে নেমেই প্লাটফর্মে যাত্রীর মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
বাবার মৃত্যুতে সন্তানের আহাজারি/ছবি: বার্তা২৪.কম

বাবার মৃত্যুতে সন্তানের আহাজারি/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কুষ্টিয়া থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যাচ্ছিলেন আব্দুল কুদ্দুস (৫৫)। কপোতাক্ষ এক্সপ্রেসে ছেলে ও মেয়ের সঙ্গে কুষ্টিয়া থেকে যাত্রা করেন তিনি। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ট্রেনটি রাজশাহী স্টেশনে পৌঁছে।

তবে ট্রেন থেকে নেমেই স্টেশনের প্লাটফর্মে অজ্ঞান হয়ে লুটিয়ে পড়েন তিনি। সঙ্গে থাকা তার ছেলে ও মেয়ে বাবাকে তড়িঘড়ি করে তোলার চেষ্টা করলেও বাঁচাতে পারেন নি। মুহূর্তেই শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যায় তার। চোখের সামনেই বাবার মৃত্যুর করুণ দৃশ্য দেখতে হয় তাদের।

আশেপাশের মানুষও নানা শঙ্কায় এগিয়ে আসেনি। প্লাটফর্মে লুটিয়ে পড়ার পর বাবাকে নিয়ে আহাজারি করতে থাকেন তারা। বারবার অনুরোধ করলেও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ তাদের অ্যাম্বুলেন্সে মরদেহ হাসপাতালে নিতে রাজি হয়নি।

একপর্যায়ে তার ছেলে ও মেয়ে বাবার নিথর দেহ কাপড় দিয়ে ঢেকে দেন। প্রায় আধা ঘণ্টা পরে রেলওয়ে থানা পুলিশ আব্দুল কুদ্দুসের নিথর দেহ একটি অটোরিকশায় করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তবে  কর্তব্যরত চিকিৎসক কুদ্দুসকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজশাহী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ কামাল বলেন, আবদুল কুদ্দুস হার্টের রোগী ছিলেন বলে তার সন্তানেরা জানিয়েছেন। চিকিৎসা করানোর জন্য তাকে রাজশাহী আনা হয়েছিল। স্টেশনে ট্রেন থেকে নেমেই প্ল্যাটফর্মে মাথা ঘুরে তিনি পড়ে যান। এতে তার মৃত্যু হয়।

আপনার মতামত লিখুন :