প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছার তালিকা জুড়ে সচ্ছলদের নাম, তদন্ত কমিটি গঠন



রিওজনাল স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
অভিযুক্ত কাউন্সিলররা/ছবি: সংগৃহীত

অভিযুক্ত কাউন্সিলররা/ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার পৌরসভা এলাকার চার ওয়ার্ডে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপহারের তালিকায় প্রণয়নে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কিমিটি গঠন করা হয়েছে।


চার ওয়ার্ডে তালিকায় শুধুমাত্র ২০ শতাংশের কম নাম ঠাই পেয়েছে দুঃস্থদের। তালিকায় স্থান পাওয়া বাকি সব সচ্ছলদের নাম। অনিয়মে কসবা পৌরসভার চার ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত কাউন্সিলররা হলেন— ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এনামুল হক ছোটন, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আবু ছায়েদ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হেলাল সরকার।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এই তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

কসবার  উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার এসিল্যান্ডকে আহ্বায়ক করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির বাকি দুই জন সদস্য হলেন উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা।

মঙ্গলবার (২৩ জুন) কসবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস মাসুদ উল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে কসবার মাসুদ উল আলম জানান, এই তিন কর্মকর্তার সমন্বয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ তাদের এ বিষয়ে চিঠি প্রদান করা হবে। তবে কসবা উপজেলা করোনা সংক্রমণের রেড জোনে থাকায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দিষ্ট কোনো সময় বেঁধে দেওয়া হয়নি। কর্মকর্তার তাদের অন্যসব কাজের পাশাপাশি অগ্রধিকার দিয়ে এই তদন্তের কাজ করবে। তদন্ত প্রতিবেদন আসলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) কসবার পৌরসভার চারটি ওয়ার্ডে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছার টাকা বিতরণের তালিকায় অনিয়মের অভিযোগের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠনের জন্য জেলা প্রশাসন কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে চিঠি পাঠান। এ বিষয়ে ৯ জুন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসকের বরাবর এ সংক্রান্ত চারটি অভিযোগপত্র কাউন্সিলরদের বিরুদ্ধে দাখিল করা হয়।