পান্থপথে নারীর মরদেহ উদ্ধারের ৪ ঘণ্টার মধ্যে খুনি আটক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আনসার আলী/ছবি: সংগৃহীত

আনসার আলী/ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর পান্থপথ সিগন্যাল সংলগ্ন গ্রীন রোডে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির গলিতে মোমেনা নামে এক নারীর মরদেহ উদ্ধারের ৪ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে ধরা পড়েছে ঘাতক।

সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় খুনিকে। গ্রেফতার হওয়া ওই খুনির নামে আনসার আলী। ভোরে মোমেনা খাতুনকে হত্যা করে সে।

শুক্রবার (১০ জুলাই) ভোররাতে এ ঘটনায় পর সকাল ৮টার দিকে খুনি আনসারকে গ্রেফতার করে ডিবি। জিজ্ঞাসাবাদে সে খুনের সব বর্ণনা দিয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদে আনসার বলেছে, সে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির গলিতে একটি বাড়ির দারোয়ান। ওই বাড়ির পার্কিংয়ের পাশে তার থাকার একটি রুম ও টয়লেট রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এক নারীকে তিনি রুমে নিয়ে আসেন। ওই নারীর সঙ্গে তিনি অপকর্মে লিপ্ত হতে চান। এ সময় ওই নারী চিৎকার করতে গেলে আনসার রেগে যান। অপকর্মে ব্যর্থ হয়ে তাকে টয়লেটে নিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এরপর রাত ২টার দিকে ওই নারীকে কয়েকটি বাড়ির পর ঘটনাস্থলে ফেলে আসে। ওই ফেলে আসার চিত্র ধরা পড়ে সিসিটিভিতে। এভাবেই ধরা পড়ে খুনি আনসার।

খুনের পর রক্তের সব দাগ পরিষ্কার করলেও কিছুটা থেকে যায়। এটিও তার প্রতি পুলিশের সন্দেহ বাড়িয়ে তোলে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিবি রমনা জোনাল টিমের এডিসি মিশু বিশ্বাস বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘প্রথমে ওই নারী অজ্ঞাত পরিচয়ের ছিল। পরে ফিঙ্গার প্রিন্টের মাধ্যমে তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়। ওই নারীর নাম মোমেনা খাতুন (৪০)। তার গ্রামের বাড়ি শেরপুর। আনসারের বক্তব্যে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা বেরিয়ে এসেছে। তাকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আরও বিস্তারিত জানা যাবে। মোমেনার বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।’

এদিকে ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় কলবাগান থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কলাবাগানে অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার

আপনার মতামত লিখুন :