বিএনপি-জামায়াতের পিরিতের বন্ধন বিচ্ছিন্ন হওয়ার নয়: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি ও জামায়াত ইসলামের মধ্যে ভেতরে ভেতরে মধুর বন্ধন রয়েছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দুটি দল একে অন্যের ওপর নির্ভরশীল।

রোববার (১৮ অক্টোবর) রাজধানীর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

‘স্বপ্ন ও সম্ভাবনার স্ফুলিঙ্গ-শেখ রাসেল’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও মেধাবৃত্তি, দরিদ্র তহবিলে বিশেষ অনুদান এবং শিক্ষা উপকরণ প্রদানের এই কর্মসূচির আয়োজন করে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপকমিটি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অনেকে বলে বিএনপি জামায়াত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আমি আপনাদের বলতে চাই, জামায়াত আর বিএনপি ভেতরে ভেতরে যে মধুর পিরিত, এই বন্ধন কোনো দিন ছিন্ন হবে না। জামায়াত ছাড়া বিএনপি অচল এটা প্রমাণ হয়ে গেছে। কাজেই জামায়াতকে নিয়েই তারা অগ্রসর হবে। আর জামাতেরও বিএনপি ছাড়া নির্ভরযোগ্য কোনো ছাতা নেই, যার নিচে তারা আশ্রয় নেবে।

তিনি বলেন, সব সাম্প্রদায়িক শক্তির ঠিকানা একটা সেটা হচ্ছে বিএনপি।

পঁচাত্তরের হত্যাকাণ্ড একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, একাত্তরে যারা পরাজিত হয়েছিলো তারাই এই হত্যাকাণ্ড করেছিলো। বাংলাদেশের জন্মের চেতনায়, মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা আঘাত এনেছিলো।

সেই শক্তি বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ২১ বছর বিষবৃক্ষ ডালপালা বিস্তার লাভ করেছে। এদের ডালপালা আজ অনেকদূর চলে গেছে। এদের শেকড়ও অনেক গভীরে চলে গেছে। মনে হয় নিষ্ক্রিয় আসলে এরা সক্রিয়। সুযোগ পেলেই ছোবল মারে। এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তি বিষধর সাপ। সুযোগ পেলেই ছোবল মারবে তার প্রমাণ এবার দুর্গাপূজা।

সাম্প্রদায়িক এই ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে তিনি বলেন, আমাদের অবাক করে দিয়েছে। আমরা ভাবতে পারিনি।

শেখ হাসিনার সরকারের ১৩ বছরে ১২টি দুর্গাপূজা হয়েছে। এই ১২টিতে প্রতিবার ৩০ থেকে ৩৫ হাজার পূজামণ্ডব হয়েছে। কখনো কোনো সহিংস ঘটনা ঘটেনি। এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বিবেচনায় নিয়ে আমাদের আরও বেশি সতর্ক থাকা উচিত ছিলো। কারণ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে এই অপশক্তি মাথাচার দিয়ে উঠেছে, বলেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি কিন্তু তৎপর। তারা বুঝে ফেলেছে শেখ হাসিনার সরকারকে ভোটে হারানো যাবে না। আন্দোলনেও জনগণ সাড়া দেব না। কারণ দেশের মানুষ শেখ হাসিনার ওপর খুশি। তার সাহসী নেতৃত্ব, অর্জন, উন্নয়নে সারা বিশ্ব তাকে সম্মান করে।

তিনি আরও বলেন, আগামী বছর বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প উদ্বোধন হবে। এটা বিএনপির অন্তর্জালার কারণ। এটাই সাম্প্রদায়িক শক্তির গাত্রদাহের কারণ। এগুলো উদ্বোধন হলে তারা চোখে অন্ধকার দেখবে। বিএনপি এমন এক দল যে দল পূর্ণিমার ঝলমলে আলোয় অমাবস্যার অন্ধকার দেখে। তারা সরকারের উন্নয়ন দেখে না।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল স্বপন, দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।