আ.লীগের পতন জনগণের দাবিতে পরিণত হয়েছে: ফখরুল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের পতন জনগণের দাবিতে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পিকআপ ভ্যানে তৈরি অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি এমন্তব্য করেন। দুর্গাপূজার মহাষ্টমীর দিন কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন শরীফ রেখে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে সারা দেশে মন্দির, বাড়িঘরে হামলা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের প্রতিবাদে মিছিল কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি।

মিছিলের আগে ফখরুল বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে র‌্যালি করে প্রেসক্লাব পর্যন্ত যাবো। কিন্তু সকাল থেকে পুলিশ আমাদের নেতা কর্মীদের গ্রেফতার করেছে। সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে জনগণের আন্দোলন থেকে দৃষ্টি সরাতে সারা দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্র করেছে।

তিনি বলেন, আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের মানুষ হাজার বছর এখানে এক সাথে বসবাস করেছে। আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে তখন তারা হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ খ্রিস্টান সবার ওপর হামলা করে।

ফখরুল বলেন, আজ সরকার দেশের সব গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করেছে, মিডিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করছে, প্রশাসনকে দলীয়করণ করেছে। আমাদের সভা সমাবেশ করতে দেয় না। এসব করছে তাদের অবৈধ ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখতে। আমরা সব সময় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে কাজ করি আর এ সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে ক্ষমতায় আছে। সংখ্যালঘুদের যে ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ চাই, যারা খুন হয়েছে তার বিচার চাই। আজ আওয়ামী লীগকে জনগণ ক্ষমতায় দেখতে চায় না। আজ আওয়ামী লীগের পতন জনগণের দাবিতে পরিণত হয়েছে।

সকাল ১১টায় মিছিল শুরু করার কথা থাকলেও সকাল ১০টার আগ থেকে নয়াপল্টন ও আশপাশের এলাকায় অবস্থান নেয় বিএনপি নেতাকর্মীরা। পুলিশের কড়া প্রহরার কারণে তারা সামনে আসতে পারেনি। সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে কাকরাইল মোড় থেকে বিশাল এক মিছিল নয়াপল্টন অভিমুখে আসলে পুলিশ কার্যালয়ের সামনে থেকে সরে যায়। এরপর বিএনপি নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনে আসলে মুহূর্তে নয়াপল্টনে বিএনপি অফিসের সামনের সড়ক লোকে লোকারণ্য হয়ে যায় ৷ বন্ধ হয়ে যায় যানচলাচল।

বিএনপি নেতাকর্মীরা স্লোগানে স্লোগানে গোটা এলাকা প্রকম্পিত করে তুলে। খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, দিতে হবে দিয়ে দাও, লাল সবুজের পতাকায় জিয়া তোমায় দেখা যায়, জ্বালোরে জালো,আগুন জ্বালো, এসব স্লোগান দিতে থাকে।

নয়াপল্টনে সংক্ষিপ্ত কর্মসূচি শেষ করে কাকরাইল মোড়ের দিকে মিছিল নিয়ে গেলে বাঁধা দেয় পুলিশ। এসময় পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। বেশ কিছু বিএনপি নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে জানান দলটি। পাশাপাশি কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তারা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রহুল কবির রিজভী, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান প্রমুখ।