বানভাসী মানুষের জন্য গণ-চাঁদা তুলবে বিএনপি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বানভাসী মানুষের জন্য গণ-চাঁদা তুলবে বিএনপি

বানভাসী মানুষের জন্য গণ-চাঁদা তুলবে বিএনপি

  • Font increase
  • Font Decrease

বানভাসী মানুষকে সহযোগিতা করতে অর্থ সংগ্রহ করবে বিএনপি। অর্থ সংগ্রহ করতে সাধারণ জনগণ থেকে গণ চাঁদা তুলবে দলটি। আগামী ২৩ জুন থেকে রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু করবে তারা।

মঙ্গলবার বিকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান স্থায়ী কমিটির সদস্য ও দলের ত্রাণ কমিটির আহবায়ক ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। লন্ডান থেকে ভার্চুয়ালি এ বৈঠকে অংশগ্রহণ করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান

টুকু বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগামী ২৩ তারিখ থেকে লিফলেট বিতরণ করবো। লিফলেটে তাদের (জনগণের) কাছে আমরা ভিক্ষা চাইব। যে যা দেয়- এক টাকা দেন, ৫০ পয়সা দেন- সবার কাছ থেকে আমরা ভিক্ষা চাইব। এটা গচ্ছিত করব। গচ্ছিত করে এটা বন্যার্তদের কাছে পাঠিয়ে দেব।

তিনি বলেন, এটা করার মূল কারণটা হচ্ছে, আমরা জনগণের দল। ১০ জনের কাছ থেকে অর্থ নেওয়ার চাইতে কোটি জনের কাছ থেকে সাহায্য নিয়ে করা, যাতে জনগণ জানে যে সে পার্টিসিপেশট করেছে। আমরা সেটা বাহক হিসেবে দিয়ে আসলাম। আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এই কার্যক্রমের অনুমোদন দিয়েছেন। চেয়ারম্যানের নির্দেশ বন্যার্তদের জন্য ঝাপিয়ে পড়তে হবে। প্রত্যেকটা ওয়ার্ডে কাফেলায় বের হয়ে মানুষের কাছ থেকে সাহায্য চাইতে হবে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, বন্যার পর থেকে বিএনপি মাঠ পর্যায়ে পানিবন্দি মানুষের পাশে আছে। তারা দিনরাত কাজ করছেন। আমাদের নেতা-কর্মীরা প্রতিদিন গড়ে ১০/১২ হাজার লোককে রান্না করে খাবার খাওয়াচ্ছে। প্রতিদিন নৌকা ভাড়া করে প্রায় ৫‘শ পানিবন্দি লোককে উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে আসছে।

তিনি বলেন, এক সিলেটের বন্যা দিয়ে বন্যা শেষ হবে না। আমরা ভাটির দেশের লোক। উজানের আসামে যতই বৃষ্টি হবে ততই বাংলাদেশের প্রত্যেকটা জেলায় পানি ঢুকতে শুরু করবে। পানি সারাদেশে ঢুকেছে। সেজন্য বলছি, আমাদের এই কাজটা কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি কাজ।

বানভাসী মানুষের জন্য বিএরপি ৩ পর্যায়ে কাজ করবে জানিয়ে তিনি বলেন, একটা হচ্ছে- মানুষের জীবন বাঁচানো। পানিবন্দি মানুষকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে এনে তাদের খাবার সরবারহ করা। তারপরে যখন বন্যার পানি নেমে যাবে তখন তাদের পূর্ণবাসনের কাজ শুরু করা, বন্যা কবলিত এলাকায় মানুষজনের রোগ-বালাই হবে তাদের চিকিৎসা সেবা দেয়া-ইত্যাদি কাজগুলো করতে হবে। আমরা একটা কম্প্রিহেনসিভ একটা প্রোগ্রাম নিয়েছি।

মহানগর উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হকের পরিচালনায় এই সভায় উত্তরের আহবায়ক আমান উল্লাহ আমানও বক্তব্য রাখেন।

আট দিনের মাথায় ফের ব্যাংকক গেলেন রওশন এরশাদ



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আট দিন দেশে অবস্থানের পর মেডিকেল চেকআপের জন্য ফের থাইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়লেন জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে থাই এয়ারওয়েজের ফ্লাইটে ব্যাংককের পথে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যান তিনি।

তার সঙ্গে রয়েছেন রংপুর ৩ আসনের সংসদ সদস্য পুত্র রাহ্গির আল মাহী সাদ এরশাদ ও পুত্রবধূ মহিমা সাদ।

দুপুরে রাজধানীর গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে তাকে বিদায় জানান সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, ফখরুজ্জামান জাহাঙ্গীর, সাবেক এমপি সালাউদ্দিন মুক্তি, পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান নিগার সুলতানা রানী, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরু, এমএ সাত্তার, মঞ্জুরুল হক সাচ্চা, সিলেট জেলা ছাত্র সমাজের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান ডালিম, সিলেট মহানগর জাতীয় মহিলা পার্টির সভাপতি শিউল আক্তার ও হাফসা আক্তার প্রমুখ।

উল্লেখ্য গেলো ২৭ জুন দেশে ফিরে হোটেল ওয়েস্টিনে অবস্থান করেন সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক বেগম রওশন এরশাদ।

;

আন্দোলনের নামে বিএনপি নেতারা ভাষণ শিল্পের বিকাশেই ব্যস্ত: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি শেষ কবে আন্দোলন করেছে তা আওয়ামী লীগের মনে নেই বলে মন্তব্য করে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নেতারা আন্দোলনের নামে শুধু ভাষণ শিল্পের বিকাশেই ব্যস্ত।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তিন জেলার ১০ উপজেলায় ত্রাণ বিতরণে অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি ত্রাণের নামে বন্যার্তদের মুড়ি কলা বিতরণ করে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বন্যা দুর্যোগে বিএনপি মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে শুধু ভাষণ দেয়। ত্রাণের নামে বন্যার্তদের মুড়ি কলা বিতরণ করে। তাদের কার্যক্রম ফটোসেশন ছাড়া আর কিছুই নয়।

;

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কোভিড-১৯ মহামারী এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে তার দলের নেতাকর্মীসহ কাউকে যেন কষ্ট না পেতে হয়, তা নিশ্চিত করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী ও দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা।

রোববার (৪ জুলাই) এক বৈঠকে দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমার একটা নেতাকর্মী যেন কোন কষ্ট না পায়, দেশের মানুষ যেন কষ্ট না পায়, আমরা সেই ব্যবস্থা করে দিচ্ছি।’

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন অনুযায়ী, বাংলাদেশকে দারিদ্র্য ও ক্ষুধামুক্ত একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে রূপান্তর করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। কেউ আর হতদরিদ্র, গৃহহীন ও ক্ষুধার্ত থাকবে না, সেজন্য সরকারের পদক্ষেপে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, কোন এলাকায় যেন কোন একটা মানুষও গরিব না থাকে, ভিক্ষা করে খেতে যেন না হয়, কেউ যেন কষ্ট না পায়, তাদের পাশে আমাদের দাঁড়াতে হবে। আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটা নেতাকর্মীর এটা মাথায় রাখতে হবে যে, শুধু আমি খাবো, আমি ভালো থাকবো, আমি শান শওকতে থাকবো, আর আমার পাড়া প্রতিবেশি খাবে না- এটা যেন না হয়।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর দলের কর্মীদের পাশাপাশি দেশবাসীকে মনে করিয়ে দেন যে, চলমান করোনাভাইরাস এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের দ্বিগুণ আঘাতের কারণে বিশ্ব এখন এক সংকটময় অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। কাজেই প্রতিটি ক্ষেত্রে বিশেষ করে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার জন্য তিনি সকলের প্রতি তাঁর আহবান পুণর্ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে, এমন কি আমেরিকা এবং ইংল্যান্ডের মতো বড় দেশগুলো এখন খাদ্য সংকটে ভুগছে। আমরা এখনও ভালো অবস্থানে আছি এবং ভালো থাকার চেষ্টা করছি, এরজন্য  দেশবাসীর সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।’

;

‘জনগণের কল্যাণ নয়, যেখানে মধু সেখানেই সরকারের মনোযোগ’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেছেন, জনগণের কল্যাণ এখন আর এ সরকারের লক্ষ্য নয়। মেগা প্রজেক্ট নিয়েই তাদের যত মনোযোগ, কারণ সেখানে মধু আছে। এখন এ মেগা প্রজেক্টগুলো দুর্নীতি আর টাকা পাচারের উৎস হয়ে উঠেছে।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুরে গুলশানের বিএনপি চেয়ারপারসন রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ইকবাল হাসান টুকু বলেন, গত শনিবার গাজীপুরে বন্যার্তদের সহযোগিতায় বিএনপির ত্রাণ তহবিল সংগ্রহ কার্যক্রমে পুলিশ বাধা দিয়েছে। অথচ বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষ অনাহারে ভুগছেন এবং চিকিৎসার অভাবে নানা প্রকার রোগে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এ সময় সরকারি ত্রাণ দেওয়া তো দূরের কথা বিএনপির মানুষের কাছ থেকে ত্রাণ সংগ্রহ কর্মকাণ্ডকে পুলিশ পণ্ড করে দেয়।

বর্তমান অনির্বাচিত ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকারের জনগণের প্রতি কোন দায়বদ্ধতা না থাকায় তারা সচেতনভাবেই বিএনপির ত্রাণ তৎপরতাকে বাধাগ্রস্ত করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনে আশেপাশের জেলাগুলোতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ও আলোকসজ্জার জন্য প্রায় শত কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে। চট্টগ্রামে কনসার্ট করে আর ঢাকায় আতশবাজি ফুটিয়ে বিপুল অর্থ নষ্ট করা হয়েছে। কিন্তু সারাদেশে বন্যার্ত ও বানভাসি মানুষ না খেয়ে বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে সেজন্য সরকারের অর্থ বরাদ্দ দিতে পারছে না।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ভয়াবহ বন্যায় বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়ানোকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে বিভিন্ন জেলায় বন্যা দুর্গতদের মধ্যে সাহায্য প্রদানের লক্ষ্যে জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে একটি জাতীয় ত্রাণ কমিটির গঠন করেছে বিএনপি। গণমানুষের দল হিসেবে বিএনপি কর্তৃক এরই মধ্যে লক্ষাধিক পরিবারকে নানাভাবে সহযোগিতা করা হয়েছে। পানিবন্দী মানুষদের উদ্ধার, ত্রাণ বিতরণ, চিকিৎসা ও ঔষধ, গৃহনির্মাণ এবং কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোসহ বিভিন্নভাবে বন্যার্তদের সহযোগিতা করছে বিএনপি।

টুকু বলেন, বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের উদ্যোগে বানভাসিদের মধ্যে পৃথকভাবে ত্রাণ প্রদান অব্যাহত রয়েছে। পাশাপাশি ড্যাব ও জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনও রোগবালাইয়ের চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ, বিশুদ্ধ পানির ট্যাবলেট বিতরণ করে চলছে।

তিনি বলেন, আমরা বন্যার্ত মানুষের দুর্ভোগের এ দুঃসময়ে ক্ষমতাসীন মহলকে সকল ধরণের সংকীর্ণ রাজনৈতিক কূটকৌশল পরিহার করে আর্তমানবতার সেবায় আত্মনিয়োগের উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক হাজী হামিনুর রশিদ ইয়াসিন উপস্থিত ছিলেন।

;