‘ভোট ডাকাতি ক্যাসিনোর চেয়ে বড় অপরাধ’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ময়মনসিংহ
ময়মনসিংহে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ

ময়মনসিংহে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

ভোট ডাকাতি করে নির্বাচনের আগের রাতেই ভোট লুট করা ক্যাসিনো ব্যবসার চেয়ে বড় অপরাধ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, দেশের সব টাকা পাচার হচ্ছে সুইচ ব্যাংকে। কারা দেশের টাকা লুট করছে, দেশের মানুষ জানে। শুধু কি যুবলীগ-ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবক লীগ লুটপাট করছে? আপনারা কি ১২ বছর আঙুল চুষছেন? এখন চুনোপুঁটি ধরে নিজেদের গায়ের গন্ধ কিছুটা দূর করতে চাচ্ছেন। কিন্তু গায়ের গন্ধ দূর হয় না। একবার যখন জনগণের আস্থা চলে যায় সেই আস্থা আর ফিরে আসে না।

বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ময়মনসিংহ নগরের রেলওয়ে কৃষ্ণচূড়া চত্বরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত বিভাগীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ময়মনসিংহ সহ সারাদেশের মানুষ দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি চায়। তিনি শুধু সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সাবেক বিরোধী দলীয় নেতা কিংবা একটি রাজনৈতিক দলের নেতাই নন। তিনি এই দেশের কোটি কোটি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন। বন্দুক, পিস্তল আর গায়ের জোরে কিছুদিন আটকে রাখতে পারলেও চিরদিন তাকে আটকে রাখতে পারবে না। তিনি প্রতিদিনই শক্তিশালী হচ্ছেন।


সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন। এই সংসদ বাতিল করে অবিলম্বে পদত্যাগ করুন। এরপর নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ কমিশন দিয়ে একটি নির্বাচন দিন। যে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা হবে।

আওয়ামী লীগ জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে অনেক কথা বলেছিলেন কিন্তু একটি কথাও আপনারা রাখেননি। আপনারা জনগণকে বলেছিলেন, এমন একটি রাষ্ট্র দেবেন যে রাষ্ট্র ব্যবস্থায় জনগণের নিরাপত্তা থাকবে, মানবাধিকার থাকবে, সবাই সবার ভোট দিতে পারবে। এখন কার ভোট কে দিচ্ছে? এখন কেউ কাউকে ভোট দেয় না। রাষ্ট্রীয় বাহিনী পুলিশ ভাইয়েরা সবার ভোট দিয়ে দিচ্ছে।

পুলিশের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, আপনারা কেন এই দায়িত্বটা নিচ্ছেন। এটা তো আপনাদের দায়িত্ব নয়। আপনাদের দায়িত্ব জনগণের সাথে থাকা। জনগণের প্রতিপক্ষ না হয়ে জনগণের পক্ষে আসুন। যারা আজ জনগণের সম্পদ লুণ্ঠন করছে, যারা অধিকারকে লুট করে নিয়ে যাচ্ছে, যারা মিথ্যা ভোট দিয়ে সংসদ তৈরি করে জনগণের ওপর মিথ্যা আইন তৈরি করছে তাদের প্রতিরোধ করাটা সাংবিধানিক দায়িত্ব। কেননা জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দের পরিচালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল আউয়াল মিন্টু, খাইরুল কবীর খোকন, ফজলুল হক মিলন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শ্যামা ওবায়েদ প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :