যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুককে অব্যাহতি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
ওমর ফারুক চৌধুরী | সংগৃহীত ছবি

ওমর ফারুক চৌধুরী | সংগৃহীত ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এক সময়ের প্রতাপশালী এই রাজনৈতিক নেতাকে যুবলীগের সব ধরনের সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের মধ্যেই ওমর ফারুক চৌধুরীকে সংগঠনের শীর্ষ পদ থেকে বাদ দেওয়া হলো।

যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য চয়ন ইসলামকে আহ্বায়ক এবং বর্তমান সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদকে সদস্য সচিব করে গঠন করা হয়েছে যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেসের প্রস্তুতি কমিটি।

৭ম কংগ্রেসকে সামনে রেখে রোববার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় গণভবনে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গণভবনে যুবলীগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুবলীগের বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুর কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদকদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেছেন। তিনি আগামী জাতীয় কংগ্রেস নিয়ে যুবলীগ নেতাদের দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন।

বৈঠকের বিভিন্ন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, যুবলীগের বয়সসীমা ৫৫ বছর করা হয়েছে। সংগঠনটির প্রেসিডিয়াম মেম্বার চয়ন ইসলামকে আহ্বায়ক ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদকে সদস্য সচিব এবং কার্যনিবাহী সদস্যদের নিয়ে যুব কংগ্রেসের প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি আগামী সম্মেলন পর্যন্ত সম্মেলনের প্রস্তুতি নেবে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাদের সবাইকে অব্যাহতি দিতে নেত্রীর নির্দেশ রয়েছে।

যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে বহিষ্কার করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তা হয়নি। তবে তাকে চেয়ারম্যানের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে উপস্থিত যুবলীগের নেতারা

চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন কে? এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি সব করবে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে যুবলীগের ৬ষ্ঠ কংগ্রেসে যুবলীগের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পান ওমর ফারুক চৌধুরী। সাম্প্রতিক ক্যাসিনো ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে তার সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়ায় তাকে সংগঠনে ওএসডি করে রাখা হয়েছিল।

ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে বাধ্য হয়ে নিজেকে সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকে গুটিয়ে নেন ওমর ফারুক চৌধুরী। গত ৩ অক্টোবর ওমর ফারুক চৌধুরীর ব্যাংক হিসাব তলব করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ ছাড়া সরকারের অনুমতি ছাড়া তার বিদেশযাত্রার ক্ষেত্রে ৬ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞা দেয় অভিবাসন পুলিশ।

আরও পড়ুন: যুবলীগে ওমর ফারুক চৌধুরী ওএসডি!

আপনার মতামত লিখুন :