স্বেচ্ছাসেবক লীগের কলেবর বাড়ছে!

শাহজাহান মোল্লা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সেবা, শান্তি ও প্রগতি-এ তিন মূলমন্ত্র ধারণ করে এগিয়ে যেতে চায় আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগ। সংগঠনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে এবারের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি।

আগামী ১৬ নভেম্বর (শনিবার) সকাল ১১টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের তৃতীয় জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের দ্বিতীয় সেশন ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত হবে। এ সম্মেলনকে ঘিরে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। যে কমিটির আহ্বায়ক বর্তমান কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ আর সদস্য সচিব বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী মেসবাউল হোসেন সাচ্চু।

এরই মধ্যে সম্মেলনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে আহ্বায়ক কমিটি। স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন সফল করতে ১৩টি উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপ কমিটির কনভেনার হিসেবে রয়েছেন বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতিরা। এছাড়া কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক ও অন্যান্য সম্পাদক মণ্ডলী এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের দিয়ে এ ১৩টি উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এরই মধ্যে উপ কমিটিগুলো নিজেদের কাজ শুরু করেছে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের কাউন্সিল ঘিরে আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি অফিস এখন সরগমর। নেতাকর্মীদের আনাগোনায় পুরো এলাকায় একটা উৎসবের আমেজ তৈরি হয়েছে। বর্তমান স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কলেবর প্রায় দ্বিগুণ করার প্রস্তাব যেতে পারে আগামী সম্মেলনে। বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটি ১০১ সদস্যের। এর আকার ২৫১ করার প্রস্তাব উঠতে পারে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় সম্মেলনে- এমনটিই ইঙ্গিত দিয়েছে আহ্বায়ক কমিটি।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ৭৯টি সাংগঠনিক জেলা রয়েছে। প্রতিটি জেলা থেকে ২৫ জন করে কাউন্সিলর এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে আগামী নেতৃত্ব গঠিত হবে। সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নেতা নির্বাচন করতে চায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ। এবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের মোট কাউন্সিলর ১ হাজার ৯৭৫ জন। আর কেন্দ্রীয় কমিটির ২০০ জন মিলে মোট কাউন্সিলর হবে ২ হাজার ১৭৫ জন। এদের ভোটেই মূলত আগামী নেতৃত্ব গঠিত হবে। সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ঢাকা মহানগরে যেমন উত্তর-দক্ষিণ আছে, তেমনি কুমিল্লা এবং চট্টগ্রামেও উত্তর-দক্ষিণ ভাগ রয়েছে। আর মহানগরে একটি করে ইউনিট কাজ করছে।

১৩টি উপ কমিটির মধ্যে অভ্যর্থনা কমিটি, আগত অতিথিদের অভ্যর্থনা জানাবে। মঞ্চ কমিটির নেতৃত্বে মঞ্চ সাজানো হবে। স্বেচ্ছাসেবক লীগ আগামী দিনে কীভাবে চলবে তার একটা গঠনতন্ত্র তৈরি করবে গণতন্ত্র উপ কমিটি। প্রচার কমিটি পোস্টার ও লিফলেট বিতরণ করবে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের আগামী সম্মেলন সম্পর্কে প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক বর্তমান কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, আমরা সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার ভিত্তিতে কাউন্সিল করতে চাই। এজন্য এবার কেন্দ্রীয় কমিটির সবাই অল্প অল্প করে নিজেদের অর্থ দিয়ে ফান্ড গঠন করছি। এ সম্মেলনকে ঘিরে কারো অন্য কোনো উপায় খোঁজার সুযোগ নেই। এ রকম কোনো অভিযোগ আমার কাছে আসা মাত্র তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমাদের মোটো হচ্ছে স্বেচ্ছা সেবা। যেহেতু মঞ্চটা নেত্রী করে দিচ্ছেন। তাই অন্যান্য আয়োজন নিজেদের অর্থেই করব। আমরা আসলে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনতে চাই।

এবারের কাউন্সিলে গঠণতন্ত্রে কোনো পরিবর্তন আসছে কী না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওই রকম কোনো পরিবর্তন না। তবে আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটি প্রথম সম্মেলনে ১০১ সদস্যের ছিল, সেটি বাড়িয়ে ১৫১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী বোর্ড এবং ১০০ কেন্দ্রীয় কমিটির বোর্ডসহ মোট ২৫১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রস্তাব আসতে পারে। এটা যদি কাউন্সিলররা তাদের ভোটে পাস করেন, আর নেত্রী যদি অনুমতি দেন, তাহলেই হবে। সব কিছু ঠিক করবেন আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমরা তার সৈনিক হয়ে কাজ করব। আমরা সব সময় সেবামূলক কাজের সঙ্গে থাকব।

কাউন্সিল সম্পর্কে তিনি বলেন, সম্মেলন সফল এবং অনাড়ম্বরভাবে করার জন্য আমরা এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। আমরা ১৩টি উপ কমিটি করেছি। এক একটা উপ কমিটির কনভেনার কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি। তার সঙ্গে সাংগঠনিক সম্পাদক ও সম্পদক মণ্ডলী থেকে ১৩টি উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কিছু সাবেক ছাত্র নেতার সমন্বয় করে এ কমিটি করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের যাত্রা ১৯৯৪ সালের ২৭ জুলাই। তখন ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের সাবেক নেতাদের সমন্বয়ে এ সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এটি হবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের তৃতীয় জাতীয় সম্মেলন।

আপনার মতামত লিখুন :