ইমেজ পুনরুদ্ধারের লক্ষ্য নিয়ে যুবলীগের কংগ্রেস আজ

রেজা-উদ্-দৌলাহ প্রধান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটেয়েন্টিফোর.কম
ছবি: সম্পাদিত

ছবি: সম্পাদিত

  • Font increase
  • Font Decrease

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস রাত পোহালেই শুরু হবে। সাম্প্রতিক ক্যাসিনো কর্মকাণ্ডে যুবলীগ নেতাদের সরাসরি সম্পৃক্ততায় দারুণ ইমেজ সংকটে পড়েছে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে দেশের আন্দোলন-সংগ্রাম ও সংকট-বিপর্যয়ে গুরুত্বপূর্ণ নেতৃত্বের স্বাক্ষর রাখা দেশের অন্যতম বৃহৎ যুব সংগঠনটি। যুবলীগ নেতাদের অধঃপতনে বিব্রত আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

এমন পরিস্থিতিতে শনিবার (২৩ নভেম্বর) বেলা ১১টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই কংগ্রেসের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের উপস্থিত থাকবেন। এতে সভাপতিত্ব করবেন যুবলীগ সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভাপতি চয়ন ইসলাম।

কংগ্রেসের দ্বিতীয় অধিবেশন বসবে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে। সেখানেই যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হবে।

প্রায় সাত বছর পর হতে যাওয়া কংগ্রেসকে ঘিরে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা রয়েছে।

কংগ্রেসকে ঘিরে সাধারণ মানুষের মধ্যেও তৈরি হয়েছে নানা আগ্রহ। কে হচ্ছেন যুবলীগের পরবর্তী চেয়ারম্যান-সাধারণ সম্পাদক— এই প্রশ্ন রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে টং দোকানের চায়ের টেবিলে। তবে এর এর উত্তর জানতে হলে আরও কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে।

যদিও এরই মধ্যে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির পুত্র শেখ ফজলে শামস পরশের নাম বেশ জোরে-শোরেই আলোচনা হচ্ছে। যুবলীগকে সংশোধন করে মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা তাঁর ভাতিজা পরশের ওপরই আস্থা রাখতে চাইছেন-এমনটাই জানা গেছে বিভিন্ন সূত্রে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে শেখ ফজলে শামস

তবে শীর্ষ দুটি পদে আসীন হতে আলোচনায় আছেন যুবলীগের বর্তমানে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আতাউর রহমান আতা, বেলাল হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, মঞ্জুরুল আলম শাহীন, সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ বদিউল আলম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলুসহ বেশ কয়েকজন।

এছাড়া ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী, বাহাদুর ব্যাপারীসহ কয়েকজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতার নামও আছে নেতা-কর্মীদের গুঞ্জনে।

আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ক্যাসিনোকাণ্ডের কারণে সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে যুবলীগের। তাই ক্লিন ইমেজের নেতৃত্বের মাধ্যমে সংগঠনকে নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে কাজ করা হচ্ছে। কংগ্রেসে চমক থাকবে। চমক হিসেবে বর্তমান কমিটির বাইরে থেকেও নেতৃত্ব আসতে পারে।

যুবলীগ নেতারা বলছেন, এবারের কংগ্রেস হচ্ছে বৈরি এক পরিবেশে। ক্যাসিনোকাণ্ডে বিব্রত যুবলীগের হাই কমান্ড। তাই সংগঠনটিকে নেতিবাচক ধারা থেকে বের করে আনতে উদ্যোগ নিয়েছেন স্বয়ং আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি নিজেই নতুন নেতৃত্বের বিষয়টি তদারকি করছেন।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেসের প্রস্তুতি পরিদর্শন শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নেতৃত্ব নির্বাচনের ক্ষেত্রে যুবলীগের পূর্বনির্ধারিত বয়সসীমা ৫৫ বছরই বহাল থাকছে। সম্মেলনের মাধ্যমে যুবলীগের নতুন নেতৃত্ব ঠিক করবেন দলটির কাউন্সিলররাই। নেত্রীর সাথে আলোচনা করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হবে।

কংগ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ

কংগ্রেসের প্রস্তুতি সম্পন্ন

সংগঠনের কেন্দ্রীয় কংগ্রেসে প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। সরকারের মেগা প্রজেক্ট পদ্মা সেতুর আদলে গড়ে তোলা হয়েছে কংগ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ।

কংগ্রেস ভেন্যু ও তার আশপাশের এলাকা যুবলীগ নেতাদের ব্যানার ফেস্টুন ও পোস্টারেও ছেয়ে গেছে।

জানা গেছে, কংগ্রেসে অংশ নিতে সারা দেশ থেকে ২২শ কাউন্সিলর ঢাকায় আসছেন।

জানতে চাইলে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও সংগঠনের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য চয়ন ইসলাম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, আমরা বিভিন্ন উপকমিটি গঠন করে দায়িত্ব ভাগ করে দিয়েছি। আমাদের সব রকম প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এবার সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব আসবে। বাদ পড়বেন বিতর্কিতরা।

প্রসঙ্গত, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর আওয়ামী যুবলীগ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। যার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ছিলেন শেখ ফজলুল হক মনি। ২০১২ সালের ১৪ জুলাই আওয়ামী যুবলীগের ষষ্ঠ জাতীয় কংগ্রেসে চেয়ারম্যান পদে ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক পদে হারুনুর রশিদ নির্বাচিত হন।

আপনার মতামত লিখুন :