নিজেকে সফল মনে করি: জিএম কাদের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
দলের নেতাকর্মী ও স্ত্রীকে নিয়ে কেক কাটছেন জিএম কাদের, ছবি: বার্তা২৪.কম

দলের নেতাকর্মী ও স্ত্রীকে নিয়ে কেক কাটছেন জিএম কাদের, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, জনগণের ভালোবাসা পাওয়াই রাজনীতিতে প্রাপ্তি হওয়ার উচিত। যে কোনোভাবে আমি নিজেকে সফল মনে করি। আপনারা যেভাবে নিঃস্বার্থ ভালোবাসা দেখিয়েছেন, তাতে আমি মুগ্ধ।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে ৭৩তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, আমি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে প্রয়াত এরশাদের কথা স্মরণ করছি। তিনি দল সৃষ্টি করেছিলেন বলে রাজনীতিতে এসে ভূমিকা রাখার সুযোগ পেয়েছি। মানুষের ভালোবাসা নিয়ে যেন কবরে শায়িত হতে পারি, মানুষের আস্থা আর বিশ্বাসের জায়গা যেন ধরে রাখতে পারি, এটাই আমার শেষ চাওয়া।

ক্যারিশমাটিক লিডারের অন্তর্ধান হলে, সেই দল ভেঙ্গে যায়, ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে যেতে হয়, আমাদের দলেও সমস্যার শঙ্কা ছিল, নয় বছরের সফল রাষ্ট্রনায়ক ছিলেন, তার শূন্যতা পূরণ করা সহজ নয়, আমরা সবাই মিলে দলকে সফলভাবে চালিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছি। যেটা শঙ্কা ছিল, আল্লাহর রহমতে আমরা সেই শঙ্কা কাটাতে সক্ষম হয়েছি, যোগ করেন তিনি।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সংসদ সদস্য মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, এরশাদ ও জিএম কাদের যেন এক গাছে দু’টি ফুল। আমরা যেন জিএম কাদেরের নির্দেশ বিনা দ্বিধায় মেনে চলতে পারি। চেয়ারম্যান যেভাবে বলবেন, সেভাবে পার্টি চলবে। তিনি যে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন, কোনো অভিযোগ ওঠেনি। জিএম কাদের ছিলেন সফল মন্ত্রী।

জাপা মহাসচিব বলেন, তার নেতৃত্বে দলে গতি এসেছে। জাপায় কোনো বিভেদ নেই, সর্বশেষ রওশন এরশাদকে দিয়ে বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা হয়েছিল, আমরা সবাই মিলে বিভেদ রোধ করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা ভালো মানুষের নেতৃত্বে দল করছি, এভাবে দল চালাতে পারলে ক্ষমতায় যাওয়ার পথ সুগম হবে। আমরা কয়েক মাস আগে পরে মারা গেলে কিছু যায় আসে না, আমাদের হায়াত থেকে কেটে নিয়ে তাকে শতায়ু করার প্রার্থনা করছি।

জিএম কাদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান নেতাকর্মীরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

আসছে ২০ মার্চ প্রয়াত এরশাদের জন্মদিন। সেই জন্মদিন আমরা এভাবে পালন করব না। ওই দিন দোয়া ও দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে করা হবে, জেলা উপজেলাতেও অনুরূপ কর্মসূচি পালন করা হবে, যোগ করেন রাঙ্গা।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম, মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভরায়, সোলায়মান আলম শেঠ, আলমগীর শিকদার লোটন, জহিরুল ইসলাম জহির, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য জিএম কাদেরের স্ত্রী শেরিফা কাদের, ভাইস চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য আদেলুর রহমান আদেল, নির্বাহী সদস্য জিএম বাবু মণ্ডল, সোলায়মান সামি প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :