বিসিবি’র ভাবনায় ঘরোয়া ক্রিকেট এবং...

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

  • Font increase
  • Font Decrease

অনেক নাটকের পর শেষ অব্দি আপাতত হচ্ছেই না বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর। কোয়ারেন্টিন ইস্যুতে সমঝোতা না হওয়ায় স্থগিত হয়ে গেছে আলোচিত এই সফর। করোনাভাইরাসের এই সময়টা কাজে লাগানো গেল না। তবে ক্রিকেটারদের মাঠের বাইরে বসিয়ে রাখতে রাজী নয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এ কারণেই সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানালেন, সামনের সময়টা অলস বসে না থেকে কয়েকটি দল নিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা ভাবা হচ্ছে।

ফের ঘরোয়া ক্রিকেট চালু ও টুর্নামেন্ট আয়োজনের চিন্তায় এখন বিসিবি। এনিয়ে সহসাই সিদ্ধান্ত জানাবে বোর্ড।

লঙ্কা সফর বাতিলের পর সামনের পরিকল্পনা নিয়ে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, 'আপাতত আমাদের এখন ক্যাম্প তো চলছেই। আবার শুরু হচ্ছে জাতীয় দলের ক্যাম্প। এরপর আবার প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে ওরা তিনটি। বিস্তারিত আপনারা পেয়ে যাবেন কবে হবে। প্রস্তুতি ম্যাচের পর পরই আমরা ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করতে যাচ্ছি। ঘরোয়া ক্রিকেটের দুটি ভাগ আছে। একটি হচ্ছে, আমরা চিন্তাভাবনা করছি যে পাঁচ-ছয়টি দল নিয়ে প্রথমে খেলার জন্য। ছয়টি দল হলে ৯০ জন খেলোয়াড়। যদি এতজন খেলোয়াড় একসঙ্গে সম্পৃক্ত করা যায়, তাহলে সেটা ভালো হবে।'

মুশফিকুর রহিম-তামিম ইকবালদের কিভাবে খেলার মধ্যে রাখা যায় তা পরিকল্পনায় এখন বিসিবি’র। নাজমুল হাসান সোমবার গণমাধ্যমে জানাচ্ছিলেন, 'সামনে কর্পোরেট লিগ হতে পারে বা বিসিবি’র দল হতে পারে। এমন একটা চিন্তা ভাবনা করছি। আবার একটা কথা হয়েছে যে এমনও হতে পারে আমাদের জাতীয় দল, এইচপি, অনূর্ধ্ব ১৯ ওদেরকে নিয়ে আমরা তিন-চারটি দল বানিয়ে ফেলতে পারি। এদের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতা হতে পারে, কিংবা ওদের মধ্যে একটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করলাম। যেখানে বিসিবি স্পন্সর থাকবে।'

ক্রিকেটার মাঠেই রাখতে চাইছে বোর্ড। কারণ করোনার কারণে লম্বা একটা সময় থাকতে হয়েছে ঘরে। বিসিবি প্রধান সোমবার বলছিলেন, 'খেলা তো চলবে, এদের তো এখনও ১৫ দিনের ক্যাম্প বাকি আছে। এই অনুশীলনটা চলবে। এরপর খেলা হবে। তিনটি অনুশীলন ম্যাচ হবে ওদের মধ্যেই। এরমধ্যেই শুরু হবে যে টুর্নামেন্টটি আমরা করতে চাচ্ছি সেটা। এটা যে নামেই হোক। জাতীয় দল, এইচপি, অনূর্ধ্ব ১৯ দলের বেশিরভাগ ক্রিকেটার নিয়ে যদি আমরা টুর্নামেন্ট করতে পারি, তাহলে সেটি দিয়েই ক্রিকেট শুরু হবে। এখন পর্যন্ত যা বুঝতে পারছি টি-টোয়েন্টিই হবে। এই সময়ের মধ্যে আমাদের যে লিগ, প্রথম শ্রেণী, দ্বিতীয় শ্রেণী, প্রিমিয়ার লিগ যা যা বাকি আছে সেগুলো শেষ করে ফেলা হবে। এটার প্রস্তুতির জন্যই একটু সময় নিচ্ছি।'

স্থগিত লিগ কিভাবে ফের চালু করা যায় তাও ভাবছে বিসিবি। হতে পারে চার দলীয় টুর্নামেন্টও। নাজমুল হাসান জানালেন, 'এখনো কিছু চূড়ান্ত হয়নি। সামনে এটা চার হতে পারে, পাঁচ হতে পারে, তিন হতে পারে।' তবে বোর্ড প্রধান একটু নিশ্চিত করলেন মাঠেই থাকবে ক্রিকেট আর মুশফিকুর রহিমরা।