লাহিরুকে ফেরালেন মিরাজ



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মেহেদী হাসান মিরাজ

মেহেদী হাসান মিরাজ

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের রান পাহাড়ের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে জবাবটা ভালোই দিয়ে যাচ্ছিল শ্রীলঙ্কা। কিছুতেই যেন তাদের আউট করা যাচ্ছিল না। অবশেষে তাদের সাবধানী উদ্বোধনী জুটিতে আঘাত হানলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে ফেলে এ তারকা স্পিনার সাজঘরে ফিরিয়ে দিয়েছেন ওপেনার লাহিরু থিরিমান্নেকে। ১১৪ রানে ভাঙে স্বাগতিক লঙ্কানদের ওপেনিং পার্টনারশিপ।

বিদায় নেওয়ার আগে ক্যান্ডির পাল্লেকেলেতে ফিফটি হাঁকান লাহিরু। ১২৫ বলে ৮ বাউন্ডারিতে খেলেন ৫৮ রানের ইনিংস। তার অর্ধ-শতকে ৩৯ ওভার শেষে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে এক উইকেটে ১১৪ রান দিয়ে চা বিরতিতে গেছে শ্রীলঙ্কা।

১১২ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ৪৩* (ব্যাটিং) রানে ক্রিজে আছেন ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে। শ্রীলঙ্কা এখনো ৪২৭ রানে পিছিয়ে।

তার আগে ৭ উইকেটে ৫৪১ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। ওপেনার তামিম ইকবাল (৯০) দশ রানের জন্য শতক মিস করলেও সেঞ্চুরি হাঁকান নাজমুল হোসেন শান্ত (১৬৩) ও ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক (১২৭)। মুশফিকুর রহিম (৬৮*) ও লিটন দাস (৫০) অর্ধ-শতকের দেখা পান তৃতীয় দিন এসে।

৫৪১ রান তুলে নতুন রেকর্ডে নাম লিখেছে বাংলাদেশ। পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টেস্টে এটাই সর্বোচ্চ দলীয় ইনিংস। ২০১৮ সালে ৪৮৭ রানের আগের রেকর্ডটা করে ছিল ভারত। 

টাইগাররা খেলেছে ১৭৩ ওভার। এর চেয়ে বেশি ওভার বাংলাদেশ খেলেছে মাত্র একবার। ২০১৩ সালের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গল টেস্টে ১৯৬ ওভার খেলেছিল মুশফিকুর রহিমরা। ইতিহাস গড়া সেই ইনিংসে নিজেদের দলীয় সর্বোচ্চ ৬৩৮ রানের সংগ্রহ গড়েছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

তার আগে ৪ উইকেটে ৪৭৪ রানের স্কোর নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে ব্যাটিং দাপটটা ধরে রেখে দ্রুত ৫০০ রানের স্কোর ছাড়িয়ে যায় টাইগাররা। ৪৩ রানে দ্বিতীয় দিন শেষ করে ছিলেন মুশফিকুর রহিম। শুক্রবার সকালে এ উইকেটকিপার-ব্যাটার মাঠে নামেন সেই স্কোর নিয়ে। তাকে সঙ্গ দিয়ে ২৫ রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় দিন খেলা শুরু করেন লিটন দাস।