সমর্থকদের তাণ্ডবে ম্যাচ স্থগিত, পয়েন্ট খোয়াতে পারে ম্যানইউ



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সমর্থকদের বাধায় এই প্রথম প্রিমিয়ার লিগের কোনো ম্যাচ স্থগিত হলো

সমর্থকদের বাধায় এই প্রথম প্রিমিয়ার লিগের কোনো ম্যাচ স্থগিত হলো

  • Font increase
  • Font Decrease

রোববার রাতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মাঠে আতিথ্য নেওয়ার কথা ছিল লিভারপুলের। কিন্তু রেড ডেভিল ভক্ত-সমর্থকদের তাণ্ডবে তা আর হয়ে উঠেনি। স্থগিত হয়ে গেছে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি। এই প্রথম ফুটবল অনুরাগীদের বিক্ষোভের কারণে স্থগিত হয়ে গেল প্রিমিয়ার লিগের কোনো ম্যাচ।

প্রায় ২০০ সমর্থক নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে ওল্ড ট্রাফোর্ডের ভিতরে ঢুকে পড়ে। ক্লাবের মালিক গ্ল্যাজার পরিবারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করতে থাকে। ভাঙচুরও চালায় অনেকে। গ্ল্যাজার পরিবার ও ইউরোপিয়ান সুপার লিগের (ইএসএল) বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে। এবারই প্রথম নয়। গ্ল্যাজার পরিবারের বিরুদ্ধে মূল বিক্ষোভ হয়েছিল ২০১০ সালে। আসলে ‘অর্থ লোভী’ মালিক পক্ষ গ্ল্যাজার পরিবারকে শুরু থেকেই পছন্দ করে না সমর্থকরা।

ভাঙচুর চালায় ম্যানইউ সমর্থকরা

২ মে ভক্ত-সমর্থকদের প্রতিবাদ-বিক্ষোভের সময় দু'জন পুলিশ অফিসার আহত হন। পরে ফুটবলার, কর্মকর্তা ও কোচিং স্টাফসহ সবার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে দুই ক্লাব, প্রিমিয়ার লিগ এবং আইন- শৃঙ্খলা বাহিনীর যৌথ সিদ্ধান্তে ম্যাচটি পরে স্থগিত করা হয়। সমর্থকদের এমন হিংসাত্মক কাণ্ডে এখন প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট খোয়াতে পারে ম্যানইউ। ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এফএ) আর্থিক জরিমানার সঙ্গে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা শাস্তিও দিতে পারে ম্যানইউ’কে।

ম্যানইউ‘র মালিকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছে সমর্থকরা
বিক্ষোভ করছে ম্যানইউ‘র সমর্থকরা

প্রতিবাদ জানাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডের বাইরে ভক্ত-সমর্থকরা জড়ো হতে থাকে। ম্যানইউ’র প্রথম জার্সির সবুজ ও সোনালি রঙের ধোঁয়া ছড়িয়ে দিতে থাকে। গত মাসে প্রিমিয়ার লিগের অন্য পাঁচ জায়ান্ট ক্লাবের সঙ্গে বিতর্কিত ফুটবল টুর্নামেন্ট ইউরোপিয়ান সুপার লিগে (ইএসএল) যোগদানের ঘোষণা দিয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। পরে অবশ্য সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়ায় ক্লাব কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সেই ঘটনার জেরে এই বিক্ষোভ-সমাবেশ করল ম্যানেইউ সমর্থকরা।

নিরাপত্তা কর্মীদের সঙ্গে সমর্থকদের সংঘর্ষ

করোনাভাইরাসের কারণে এখন মাঠে প্রবেশ নিষিদ্ধ সমর্থকদের জন্য। কিন্তু নিয়ম ভেঙ্গে কিছু সমর্থক ওল্ড ট্রাফোর্ডের মূল পিচে ঢুকে বিক্ষোভ জানাতে থাকে। তাদের বের করে দেওয়ার পর আরও কিছু সমর্থক ঢুকে পড়ে মাঠের ভিতর।

ম্যানইউ’র মালিকানায় গ্ল্যাজার পরিবারকে দেখতে চায় না সমর্থকরা

কিছু সমর্থক লোরি হোটেলের সামনে অবস্থান নেয়। কেননা এই হোটেলেই অবস্থান করছিল ম্যানইউ স্কোয়াড। ম্যাচের জন্য দুদল একাদশও ঘোষণা করে ফেলেছিল। কিন্তু মাঠের বাইরে ঝামেলা শুরু হওয়ায় ম্যাচ স্থগিতের আগে হোটেল ছাড়েনি ফুটবলাররা।

প্রতিবাদ জানাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডের সামনে জড়ো হওয়া ভক্ত-সমর্থকরা

কোচ ওলে গুনার সোলশজায়েরের দল প্রিমিয়ার লিগে এখন দ্বিতীয় স্থানে আছে। রোববার রাতে লিভারপুলের কাছে তারা হেরে গেলে চার মৌসুমের মধ্যে তৃতীয় প্রিমিয়ার লিগ ট্রফি জিতে নিতে পারত ম্যানসিটি। কিন্তু সেটা না হওয়ায় এখন শিরোপা উৎসবের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে ইতিহাদ শিবিরকে।

কর্নার ফ্লাগ হাতে এক সমর্থক