বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ার শঙ্কায় পর্তুগাল-ইতালি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের বাধা উতরে যেতে পারেনি পর্তুগাল ও ইতালি। যে কারণে কাতার বিশ্বকাপের সরাসরি টিকিট পায়নি তারা। 

তবে বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা একেবারে শেষ হয়ে যায়নি পর্তুগাল ও ইতালির। ফুটবলের বৈশ্বিক আসরের মূল পর্বে যেতে হলে প্লে অফের বৈতরণী পার হতে হবে তাদের।

এ ক্ষেত্রেও রয়েছে সমস্যা। বিশ্বকাপে উঠবে এই দুই দলের মধ্যে একটি। হয় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল উঠবে নয়তো ইতালি। মানে দুদলের একটি বাদ পড়বে বিশ্বকাপ থেকে। 

২০১৬ সালের ইউরোজয়ী পর্তুগাল প্লে অফের সেমি-ফাইনালে খেলবে তুরস্কের বিপক্ষে। আর ২০২০ সালের ইউরোজয়ী ইতালি প্লে অফের শেষ চারে লড়বে উত্তর মেসিডোনিয়াকে বিপক্ষে। 

প্লে অফের সেমি-ফাইনালে নিজ নিজ ম্যাচে জিতলেই ফাইনালে উঠবে ইতালি ও পর্তুগাল। ফাইনালে একে অপরের মুখোমুখি হবে দুদল। এই চূড়ান্ত লড়াইয়ে যারা জিতবে তারাই পৌঁছে যাবে বিশ্বকাপে। অন্য দল ছিটকে যাবে বিশ্বকাপ থেকে। 

রনি-ফ্লেচার-থিসারার ঝড়ে জিতল খুলনা টাইগার্স



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
খুলনা টাইগার্সেরে ক্রিকেটাররা

খুলনা টাইগার্সেরে ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

তামিম ইকবালের সঙ্গে ব্যাটিং ঝলক দেখান মোহাম্মদ শাহজাদ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ত্রয়ী তারকার দুরন্ত ব্যাটিংয়ে রানের পাহাড় গড়ে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। জবাবে ব্যাট হাতে ঝড় তুললেন রনি তালুকদার, আন্দ্রে ফ্লেচার ও থিসারা পেরেরা। তাদের ব্যাটিং দাপটেই রানের পাহাড় টপকে গেল খুলনা টাইগার্স। জমজমাট ব্যাটিংয়ের ম্যাচে পেল ৫ উইকেটের রোমাঞ্চমাখা দুর্বার এক জয়।

ম্যাচসেরা রনি তালুকদার পান দারুণ এক ফিফটি। ৪২ বলে ৭ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় খেলেন ৬১ রানের অসাধারণ এক ইনিংস। তবে পাঁচ রানের জন্য অর্ধ-শতককে বঞ্চিত হন ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচার। ২৩ বলে ৭ চার ও এক ছয়ে সংগ্রহ করেন তিনি ৪৫ রান। আর ১৮ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৩৬* রানের হার না মানা দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দলকে রান পাহাড় টপকানোর চমৎকার এক জয় এনে দেন। এক ওভার হাতে রেখেই ৫ উইকেটের বিনিময়ে লক্ষ্য পেরিয়ে ১৮৬ রান তুলে ফেলে মুশফিকুর রহিমের খুলনা। ঢাকার হয়ে দুটি করে উইকেট নেন আন্দ্রে রাসেল ও এবাদত হোসেন। আর একটি উইকেট পান শুভাগত হোম।

মিরপুরে তার আগে তামিম ইকবালের ফিফটি। আর মোহাম্মদ শেহজাদ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে খুলনা টাইগার্সের সামনে ১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা।

শুরুতেই পাওয়ার হিটিং শুরু করেন মোহাম্মদ শেহজাদ। তবে আফগান এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ফিফটি ছুঁতে পারেননি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউটের শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। ২৭ বলে ৮ বাউন্ডারিতে খেলেন ৪২ রানের দাপুটে এক ইনিংস। শাহজাদ ঝড়ো ব্যাটিং করলেও তার ওপেনিং পার্টনার তামিম ইকবাল খেলেন রয়ে সয়ে। ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরেই খেললেন দারুণ এক ইনিংস। ব্যাটিং দৃঢ়তায় নিজের প্রত্যাবর্তনটা রাঙালেন অর্ধ-শতক দিয়ে। ৪২ বলে ৭ চারে ৫০ পূর্ণ করে কামরুল ইসলাম রাব্বীর বলে নাভিন উল হকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তামিম।

তামিম ফেরার পর ঢাকার ব্যাটিং লাইন-আপের হাল ধরেন ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আন্দ্রে রাসেলকে সঙ্গে নিয়ে আভাস দেন ছক্কা ঝড়ের। তবে অবিশ্বাস্যভাবে ৭ রান নিয়ে সাজঘরে ফেরেন ক্যারিবিয়ান এ বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। ফিল্ডার মেহেদী হাসান বল ছুঁড়ে ছিলেন মাহমুদউল্লাহকে আউট করতে। কিন্তু বল ব্যাটিং প্রান্তের স্টাম্প ভেঙে আঘাত করে বোলিং প্রান্তের স্টাম্পে। শেষ দিকে কিছুটা ধীর গতিতে প্রান্ত স্পর্শ করতে যাওয়া রাসেলের চোখ যেন কিছুতেই ব্যাপারটা বিশ্বাস করতে পারছিল না। তার শারীরিক ভাষা তো তেমনটাই বলে।

তবে মাহমুদউল্লাহ ২০ বলে খেলেন ৩৯ রানের দুর্বার এক ইনিংস। অসাধারণ ইনিংসটি সাজান তিনি ২ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়। তাতেই রান পাহাড়ে উঠে বসে ঢাকা। ৬ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮৩ রানের বিশাল পুঁজি গড়ে দলটি। খুলনা টাইগার্সের হয়ে ৪৫ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন কামরুল ইসলাম। একটি উইকেট পান থিসারা পেরেরা।

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নেয় খুলনা টাইগার্স। তাই তো শুরুতে বল হাতে মাঠে নামে ক্যাপ্টেন মুশফিকুর রহিমের দল। বিদেশি কোটায় মোহাম্মদ শাহজাদ, ইসুরু উদানা ও আন্দ্রে রাসেলকে নিয়ে একাদশ সাজিয়েছে ঢাকা। আর খুলনায় বিদেশি খেলোয়াড় রয়েছেন তিনজন। আন্দ্রে ফ্লেচার, থিসারা পেরেরা ও নাভিন উল হক। 

বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে টস জিতে বোলিং বেছে নিয়ে সাফল্য পেয়েছে সাকিবের ফরচুন বরিশাল। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে জয় দিয়ে নতুন মিশন শুরু করেছে তিন আসর পর টুর্নামেন্টে ফেরা দলটি। এবার তাদের দেখাদেখি খুলনাও একই পথে হাঁটল।

খুলনা টাইগার্স টাইগার্স: মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), আন্দ্রে ফ্লেচার, তানজিদ হাসান তামিম, রনি তালুকদার, ইয়াসির আলী চৌধুরী, থিসারা পেরেরা, শেখ মাহেদী হাসান, ফরহাদ রেজা, সোহরাওয়ার্দী শুভ, নাভিন উল হক ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা একাদশ: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (ক্যাপ্টেন), তামিম ইকবাল, নাঈম শেখ, জহুরুল ইসলাম, শুভাগত হোম চৌধুরী, আরাফাত সানি, রুবেল হোসেন, এবাদত হোসেন চৌধুরী, ইসুরু উদানা, মোহাম্মদ শাহজাদ ও  আন্দ্রে রাসেল।

;

জোটার ডাবলে ফাইনালে লিভারপুল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সতীর্থদের সামনে জয়ের নায়ক ডিয়েগো জোটার গোল উদযাপন

সতীর্থদের সামনে জয়ের নায়ক ডিয়েগো জোটার গোল উদযাপন

  • Font increase
  • Font Decrease

মাঠের লড়াইয়ে দুরন্ত পারফরম্যান্সে ডাবল গোল পেলেন ডিয়েগো জোটা। তার জোড়া গোলের নৈপুণ্যে আর্সেনালকে ২-০ গোলে হারিয়ে দিল লিভারপুল। সুবাদে ইংলিশ কাপের ফাইনালের টিকিট কেটেছে দ্য রেড শিবির।

এ নিয়ে ছয় বছরের মধ্যে এই প্রথম লন্ডনের ওয়েম্বলিতে শিরোপা নিধারণী ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে কোচ ইর্য়ুগেন ক্লপের দল। ২৭ ফেব্রুয়ারির ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ কোচ টমাস টাচেলের চেলসি।

ম্যাচের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে গেছেন অ্যালেজান্দ্রে ল্যাকাজেট। গোলের সুযোগও পেয়েছিলেন। কিন্তু ভাগ্যটা সহায় ছিল না তার। তার নেয়া ফ্রি কিক আঘাত করে গোলপোস্টে।

নিজে গোল করতে না পারলেও দুধের স্বাদ ঘোলে মিটিয়েছেন ল্যাকাজেট। সতীর্থ জোটাকে গোল করিয়েছেন। তার দুটি গোলেই অ্যাসিস্ট করেন ল্যাকাজেট।

;

দুঃস্বপ্নের রাতে বার্সার বিদায়, শেষ আটে রিয়াল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রিয়াল মাদ্রিদের ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস

রিয়াল মাদ্রিদের ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস

  • Font increase
  • Font Decrease

দুঃস্বপ্নের এক রাত কাটিয়েছে বার্সেলোনা। পাঁচ গোলের থ্রিলার ম্যাচে হেরে কোপা দেল রে থেকে বিদায় নিয়েছে কাতালান জায়ান্ট ক্লাবটি। তবে টুর্নামেন্টের শেষ আটে ঠিকই পৌঁছে গেছে বার্সার চিরশত্রু রিয়াল মাদ্রিদ।

বার্সেলোনাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে আসরের কোয়ার্টার ফাইনালে নাম লিখেছে অ্যাথলেটিক বিলবাও। ইনাকি মুনিয়াইন জোড়া গোল করেন। সঙ্গে বিলবাওকে গোল এনে দেন ইনিগো মার্তিনেজও। তবে বার্সার হয়ে গোল করেন ফেরান তোরেস ও পেদ্রি।

শেষ ষোল পর্বের অন্য ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ ২-১ গোলে হারিয়েছে এলচেকে। সুবাদে টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে কোচ কার্লো আনচেলত্তির দল। সান্টিয়াগো বার্নাব্যু শিবিরের হয়ে গোল করেন ইসকো ও ইডেন হ্যাডার্ড। এলচের হয়ে একটি গোল শোধ করেন ভেরদু।

অতিরিক্ত সময়ে দুদলই দশ জনে পরিণত হয়। রিয়ালের লাল কার্ড দেখেন মার্সেলো। আর এলচের হয়ে লাল কার্ড খান মিল্লা। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচ ছিল গোল শূন্য। অতিরিক্ত সময়ে এসে দুদল গোলের দেখা পায়।

;

তামিম-শেহজাদ-রিয়াদের ব্যাটিং ঝলকে ঢাকার পুঁজি ১৮৩



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা-খুলনা টাইগার্স

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা-খুলনা টাইগার্স

  • Font increase
  • Font Decrease

তামিম ইকবালের ফিফটি। আর মোহাম্মদ শেহজাদ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে খুলনা টাইগার্সের সামনে ১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। 

শুরুতেই পাওয়ার হিটিং শুরু করেন মোহাম্মদ শেহজাদ। তবে আফগান এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ফিফটি ছুঁতে পারেননি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউটের শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। ২৭ বলে ৮ বাউন্ডারিতে খেলেন ৪২ রানের দাপুটে এক ইনিংস।

শেহজাদ ঝড়ো ব্যাটিং করলেও তার ওপেনিং পার্টনার তামিম ইকবাল খেলেন রয়ে সয়ে। ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরেই খেললেন দারুণ এক ইনিংস। ব্যাটিং দৃঢ়তায় নিজের প্রত্যাবর্তনটা রাঙালেন অর্ধ-শতক দিয়ে। ৪২ বলে ৭ চারে ৫০ পূর্ণ করে কামরুল ইসলাম রাব্বীর বলে নাভিন উল হকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তামিম।

তামিম ফেরার পর ঢাকার ব্যাটিং লাইন-আপের হাল ধরেন ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আন্দ্রে রাসেলকে সঙ্গে নিয়ে আভাস দেন ছক্কা ঝড়ের। তবে অবিশ্বাস্যভাবে ৭ রান নিয়ে সাজঘরে ফেরেন ক্যারিবিয়ান এ বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। ফিল্ডার মেহেদী হাসান বল ছুঁড়ে ছিলেন মাহমুদউল্লাহকে আউট করতে। কিন্তু বল ব্যাটিং প্রান্তের স্টাম্প ভেঙে আঘাত করে বোলিং প্রান্তের স্টাম্পে। শেষ দিকে কিছুটা ধীর গতিতে প্রান্ত স্পর্শ করতে যাওয়া রাসেলের চোখ যেন কিছুতেই ব্যাপারটা বিশ্বাস করতে পারছিল না। তার শারীরিক ভাষা তো তেমনটাই বলে।

তবে মাহমুদউল্লাহ ২০ বলে খেলেন ৩৯ রানের দুর্বার এক ইনিংস। অসাধারণ ইনিংসটি সাজান তিনি ২ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়। তাতেই রান পাহাড়ে উঠে বসে ঢাকা। ৬ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮৩ রানের বিশাল পুঁজি গড়ে দলটি।

খুলনা টাইগার্সের হয়ে ৪৫ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন কামরুল ইসলাম। একটি উইকেট পান থিসারা পেরেরা।

;