স্নায়ুচাপের কারণে ব্যর্থ হচ্ছেন দেশের পেসাররা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
টাইগার ক্রিকেটাররা

টাইগার ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের টার্নিং ও মন্থর উইকেটে সাফল্য পাচ্ছেন পাকিস্তানের পেসাররা। কিন্তু দেশের পেসাররা খাচ্ছেন খাবি। উইকেটই ধরা পড়ছে না তাদের ছড়ানো পেস জালে। এর বড় কারণ স্নায়ুচাপ সামাল দিতে না পারা।

অতিথি দলের পেসারদের সঙ্গে উইকেট শিকারের শীতল যুদ্ধে মেতে কোনো কিছুই করা হয়ে উঠছে না এবাদত হোসেন-খালেদ আহমেদদের। ভালো বোলিং করার বাড়তি চাপই তাদের মানসিকভাবে পিছিয়ে দিচ্ছে। এমনটাই মনে করেন বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত ফিল্ডিং কোচ মিজানুর রহমান বাবুল।

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে ভিনদেশি পেসারদের সঙ্গে পারফরম্যান্স বিচারে বাংলাদেশের পেসারদের দশের মধ্যে ৫-৬ পয়েন্ট দিলেন তিনি।

ফিল্ডিং কোচ বাবুল বলেন, ‘একেক দেশ একেক রকম। আমাদের স্পিনাররা পেসারদের চেয়ে এগিয়ে থাকে। অন্য দেশের সাথে আমাদের পেসারদের তুলনা করলে দশের মধ্যে ৫-৬ দিব। পাকিস্তানের পেস বোলাররা ডমিনেট করছে, আমাদের উইকেট নিচ্ছে। তাদের সাথে আমাদের পেসাররা তুলনা করলে, উইকেট নিতে না পারার কথা ভাবলে হয়তো মানসিকভাবে পিছিয়ে যাচ্ছে। উইকেট নেওয়ার জন্য বাড়তি কিছু করতে গিয়ে তাদের জায়গাগুলো নড়ে যাচ্ছে। এটা একটা কারণ হতে পারে।’

বৃষ্টিভেজা মাঠে ভালো পারফরম্যান্স করতে না পারার আক্ষেপও ঝরল বাবুলের কণ্ঠে, ‘ওভাবে মূল্যায়ন করলে ভালো না আসলে। প্রথম বলে (দ্বিতীয় দিনে) চার হয়েছে। পয়েন্ট পেছনে ছিল, অফ স্টাম্পেই বেশি ফিল্ডার ছিল। ভালো বোলিং করা হয়নি আর কী। আবহাওয়া আমাদের অনুকূলে ছিল। ওই অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারিনি, এটাই বাস্তবতা।’

তবে নিউজিল্যান্ড সফরে পেসারদের সাফল্যের ব্যাপারে দৃঢ় আশাবাদী বাবুল, ‘নিউজিল্যান্ডে পেসবান্ধব উইকেট থাকে। বাংলাদেশের সেরা পেস ইউনিটই যাচ্ছে। যারা পারফর্ম করছে বা জোরে বল করছে। তাসকিন যাচ্ছে, এবাদত দিনদিন উন্নতি করছে। শহিদুল আছে শরিফুল আছে। খালেদ তো এই ম্যাচেও খেলছে। আশা করছি ছেলেরা ওখানে ভালো বোলিংই করবে। রেকর্ড যদিও অন্য কিছু বলে, তবে আমি আশা করি ভালো হবে।’

লিটনের সেঞ্চুরি, শতকের পথে মুশফিক



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরির আভাস দিয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু দুর্ভাগ্য জাদুকরী তিন অঙ্ক ছোঁয়া হয়নি তার চট্টগ্রামে। তবে মিরপুরে আর সে ভুল হয়নি। এবার ঠিকই শতক ছিনিয়ে নিয়েছেন এ তারকা ব্যাটসম্যান। তার সঙ্গে সেঞ্চুরির পথ রয়েছেন মুশফিকুর রহিমও। ১০৬* রান নিয়ে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন লিটন। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি। ৮৭* রানে তাকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন মুশফিক।

শুরুতেই ভয়ংকর বোলিং আক্রমণ করে বসেছিল শ্রীলঙ্কা। পেস তোপটা দাগান কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো। তাতেই মহাবিপর্যয়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে গিয়েছিল টাইগাররা। দলীয় মাত্র ২৪ রানেই হারিয়ে ফেলেছিল ৫ উইকেট। মিরপুর টেস্টের খেলা হয়েছে তখন মাত্র ৬.৫ ওভার। 

উদ্বোধনী জুটি কোনো রানই যোগ করতে পারেনি দলীয় স্কোরে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান জয় দুজনেই ফিরেছেন শূন্য রানে। ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক এবারও ব্যাট হাতে ব্যর্থ। তার কল্যাণে দল পেয়েছে মাত্র ৯ রান। ওয়ানডাউনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত করেন ৮ রান। সাকিব আল হাসান বিদায় নেন শূন্য হাতে।

চরম বিপদের দলের ব্যাটিং লাইনআপের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। প্রথম টেস্টের মতো দুজনে মিলে লঙ্কান বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে গড়ে তুলেছেন তীব্র প্রতিরোধ। 

মুশফিক ও লিটন মিলে ব্যাটিং লড়াইটা বেশ ভালোই চালিয়ে যাচ্ছেন। এগিয়ে নিচ্ছেন সামনের দিকে তথা বড় ইনিংসের পথে। ষষ্ঠ উইকেটে এরমধ্যে ১৮৯* রানের পার্টনারশিপ গড়ে ফেলেছেন। 

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করেছে ২১৩ রান। শ্রীলঙ্কার হয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন কাসুন রাজিথা। দুটি উইকেট পেয়েছেন আসিথা ফার্নান্দো।

;

মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ

মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের লড়াকু ব্যাটিংয়ে শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে উঠছে বাংলাদেশ। দিনের দ্বিতীয় সেশন শেষ করে বিরতিতে যাওয়ার আগে অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন এই দুই ব্যাটার।

চা বিরতিতে যাওয়ার আগে অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন লিটন ও মুশফিক।

মিরপুরে সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। তবে অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি ব্যাটাররা। মাত্র ২৪ রানের মধ্যেই ৫ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে টাইগাররা। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলছেন দুই অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিক ও লিটন।

চট্রগ্রাম টেস্টে মুশফিক ও লিটনের ১৬৫ রানের দুর্দান্ত পার্টনারশিপের পর ঢাকা টেস্টেও তারা সেই ধারা অব্যাহত রেখেছেন তারা। চা পানের বিরতির আগে এই জুটি থেকে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে যুক্ত হয়েছে ১২৯ রান। অর্ধশতকের মাইলফলক স্পর্শ দুইজনই। লিটন দাস তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩তম ফিফটি। আর মুশফিক পেয়েছেন ২৬তম ফিফটির দেখা।

দ্বিতীয় সেশনের বিরতির আগ পর্যন্ত ৫৩ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। ১২৫ বল থেকে ১০টি বাউন্ডারিতে লিটন অপরাজিত আছেন ৭২ রানে। আরেক অপরাজিত ব্যাটার মুশফিকের ব্যাট থেকে সমান ১০টি বাউন্ডারিতে ১৫৬ বলে ৬২ রান এসেছে।

এদিকে দিনের শুরুতে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল জয় ফেরেন শূন্য হাতে। অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও রানের খাতা খুলতে পারেননি। অধিনায়ক মুমিনুল কিংবা শান্ত কেউই দলের হাল পারেননি। এরপরই বাংলাদেশের জন্য ত্রাতা হয়ে আসেন মুশফিক ও লিটন। লঙ্কানদের হয়ে এখন পর্যন্ত কাসুন রাজিথা তিনটি ও আসিথা ফার্নান্দো দুইটি করে উইকেট শিকার করেছেন।

;

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট লড়াই

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট লড়াই

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে টস ভাগ্যটা ঠিক সহায় হয়নি বাংলাদেশের। তবে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সেই অপূর্ণতা ঘুচল। টস জিতে শুরুতে ব্যাটিং বেছে নিয়েছেন টাইগার ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক।

বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা দুদলেই দুটি করে পরিবর্তন এসেছে। ইনজুরি নিয়ে টাইগারদের একাদশ থেকে ছিটকে গেছেন নাঈম হাসান ও শরিফুল ইসলাম। তাদের বদলে দলে জায়গা করে নিয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন ও এবাদত হোসেন। 

লঙ্কান একাদশ থেকে মাঠের বাইরে চলে গেছেন বিশ্ব ফার্নান্দো। তার বদলে খেলবেন কাসুন রাজিথা। প্রথম টেস্টে ভালো পারফরম্যান্স না করায় বাদ পড়েছেন লাসিথ এম্বুলদেনিয়া। তার বদলে দলে এসেছেন প্রবীণ জয়াবিক্রমা। 

প্রথম টেস্ট থেকে গেছে ড্র। তাই সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে যারা জিতবে সিরিজ ট্রফি ছিনিয়ে নেবে তারাই। 

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), সাকিব আল হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন, তাইজুল ইসলাম, খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: ওশাদা ফার্নান্দো, দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), কুসল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, দিনেশ চান্দিমাল, নিরোশান ডিকভেলা (উইকেটরক্ষক), রমেশ মেন্ডিস, প্রবীণ জয়াবিক্রমা, আসিথা ফার্নান্দো ও কাসুন রাজিথা।

;

প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জিতল ম্যানসিটি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ম্যানচেস্টার সিটি চ্যাম্পিয়ন

ম্যানচেস্টার সিটি চ্যাম্পিয়ন

  • Font increase
  • Font Decrease

শিরোপা লড়াইয়ে আগে থেকেই এগিয়ে ছিল ম্যানচেস্টার সিটি। লিগ ট্রফি জয়ের দৌড়ে তাদের পিছে লেগে ছিল লিভারপুল। তবে রোমাঞ্চকর শেষ দিনে এসে লিভারপুলকে হতাশ করল তারা। অ্যাস্টন ভিলাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতে নিয়েছে কোচ পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা।

এ মৌসুমে ৩৮ ম্যাচে ২৯ জয় ৬ ড্র ও ৩ হারে ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ম্যানসিটি। সমান ম্যাচে ২৮ জয় ৮ ড্র ও ২ হারে ৯২ পয়েন্ট নিয়ে রানার আপ হয়েছে কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

নিজেদের মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ইলকে গুন্ডোগানের জোড়া গোলের সঙ্গে ম্যানসিটির নামের পাশে আরও একটি গোল যোগ করেন রদ্রি। অতিথি অ্যাস্টন ভিলার হয়ে গোল করেন ম্যাটি ক্যাশ ও ফিলিপ্পে কুতিনহো।

 

;