বিপিএলের দল কিনতে চায় আট ফ্র্যাঞ্চাইজি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বিপিএল

বিপিএল

  • Font increase
  • Font Decrease

সামনে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। টুর্নামেন্টের নতুন আসরের জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজি চেয়ে দরপত্র আহ্বান করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিপিএলের আগামী আসরে ৬টি দল যোগ দিবে।

দরপত্র জমা দেওয়ার সময়সীমা গতকাল, রোববার ৫ ডিসেম্বর শেষ হয়ে গেছে। খুব বেশি যে সাড়া মিলেছে তা কিন্তু নয়। মাত্র ৮টি ফ্র্যাঞ্চাইজি দল পেতে দরপত্র জমা দিয়েছে। এই তালিকা থেকে যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত হবে দল।

আজ সোমবার, ৬ ডিসেম্বর রাজধানী এক পাঁচতারকা হোটেলে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আজ যেটা জানলাম, এবারের আসরের জন্য ৮টি ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহ দেখিয়েছে। আমরা তাদের দেখব, যাচাই-বাছাই করব, তারপর ফাইনাল করবো। এখনও কিছু ফাইনাল হয়নি।’

শোনা যাচ্ছে, বিপিএলের আসন্ন আসরে থাকছে না দেশের দুই শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ও বসুন্ধরা। বসুন্ধরার মালিকানায় ছিল রংপুর রাইডার্স। আর ঢাকা ডায়নামাইটস ছিল বেক্সিমকোর।

বেক্সিমকো ও বসুন্ধরার সরে দাঁড়ানোর ব্যাপারটা নিয়ে আসলে পরিষ্কার করে কিছু বলতে পারেননি বোর্ড প্রধান, ‘এটা বলা মুশকিল, আসলে বেক্সিমকো থাকবে কি থাকবে না। এটা আমি এখনো জানি না। তবে অনেকেরই আগ্রহ আছে। আসলে হয় কি ছোট সংস্করণ তো এক বছর এক বছর করে অনেকেই আগ্রহী না। অনেকেই দীর্ঘ সময়ের জন্য আগ্রহী। তাহলে ওরা একটা পরিকল্পনা করে নামতে পারে। আমি জানি না, বসুন্ধরাও আগ্রহী কি না।’

এবার বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে দেশী ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের খুব বেশি তফাৎ রাখতে চাচ্ছে না বোর্ড বিসিবি। পাপন বলেন, ‘প্রথমে যখন আমি বিপিএল নিয়ে কথা বলি তখনই আমি প্রশ্নটা তুলেছিলাম যে বিদেশি খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমাদের খেলোয়াড়দের বিশেষ করে ড্রাফটে যারা আছে তাদের পার্থক্যটা খুব বেশি না হয়। আমাদের প্লেয়াররা যেন তাদের ন্যায্য পারিশ্রমিকটুকু পায়।’

করোনাকালে গত মৌসুমে হয়নি বিপিএল। যদিও এই টুর্নামেন্টের আদলে দেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে গত মৌসুমে বিসিবি আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। ফলে ২০১৯-২০ মৌসুমের পর ফের মাঠে গড়াচ্ছে বিপিএল। ২০ জানুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বিপিএল আয়োজন করতে চায় বিসিবি।

জাহানারাকে নিয়ে বাংলাদেশের নারী বিশ্বকাপ দল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
জাহানারা আলম

জাহানারা আলম

  • Font increase
  • Font Decrease

মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত আইসিসি কমনওয়েলথ গেমস-২০২২ বাছাইপর্বের মূল দলে জায়গা পাননি জাহানারা আলম। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে দল থেকে বাদ দেয়া হয়েছিল তাকে। এ নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। দলের কয়েক জনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের পাল্টা অভিযোগ করে বোর্ডে চিঠিও দেন এ স্টার ক্রিকেটার। 

সেই বিতর্ক পাশ কাটিয়ে অবশেষে জাতীয় দলে ফিরলেন জাহানারা। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেটাররা। এ বছর মার্চে নিউজিল্যান্ডে বসবে মেয়েদের বৈশ্বিক এ ক্রিকেট আসর। টুর্নামেন্টের জন্য শুক্রবার ১৬ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। এই দলেই ডাক পেয়েছেন জাহানারা।

নিউজিল্যান্ডের মাঠের নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপ শুরু হবে ৪ মার্চ। ফাইনাল হবে ৩ এপ্রিল। বাংলাদেশের মেয়েরা নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে মাঠে নামবে ৫ মার্চ। নিজেদের উদ্বোধনী ম্যাচে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা লড়বে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

দেশের মেয়েদের বাকি ম্যাচ পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারত নারী দলের বিপক্ষে ১৪, ১৮ ও ২২ মার্চ। ২৫ মার্চ গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতির দল মোকাবেলা করবে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের। 

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে আজ শনিবার, ২৯ জানুয়ারি থেকে ক্যাম্প শুরু করবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেটাররা। 

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল: নিগার সুলতানা জ্যোতি (অধিনায়ক), সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদ, ফারজানা হক পিংকি, জাহানারা আলম, শারমিন সুলতানা, ফাহিমা খাতুন, রিতু মনি, মুর্শিদা খাতুন হ্যাপি, নাহিদা আক্তার, শারমিন আক্তার সুপ্তা, লতা মন্ডল, সোবহানা মোস্তারি, ফারিহা ইসলাম তৃষ্ণা, সুরাইয়া আজমিম ও সানজিদা আক্তার মেঘলা।

;

নতুন ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে নাদাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রাফায়েল নাদাল

রাফায়েল নাদাল

  • Font increase
  • Font Decrease

নতুন এক ইতিহাস গড়ার খুব কাছে রাফায়েল নাদাল। দরকার আর মাত্র একটি জয়। পুরুষ এককে সর্বাধিক গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের বিশ্ব রেকর্ড নিজের করে নিতে এখন শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের দিকেই তাকিয়ে স্প্যানিশ এ সুপারস্টার। ইতালিয়ান প্রতিপক্ষ মাত্তেও বেরেত্তিনিকে বিদায় করে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে নাম লিখেছেন ক্লে-কোর্টের এ রাজা।

মেলবোর্নে আজ শুক্রবার প্রথম সেমি-ফাইনালে প্রথম দুই সেট ৬-৩ ও ৬-২ গেমে জিতে এগিয়ে যান নাদাল। তৃতীয় সেট ৬-৩ গেমে জিতে লড়াইয়ে ফেরার চেষ্টা করেন বেরেত্তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফল হননি। ৩৫ বছরের নাদাল ফাইনালে পৌঁছে যান ৬-৩ গেমে জিতে।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে একবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন নাদাল। সে আবার ২০০৯ সালে। এরপর আর বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম ট্রফি জেতা হয়নি তার। এবার সেই ট্রফি খরা কাটানোর সুবর্ণ সুযোগ ২৯বারের মতো গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে খেলতে যাওয়া নাদালের সামনে।

রজার ফেদেরার ও নোভাক জোকোভিচের সঙ্গে পুরুষ এককে সর্বোচ্চ ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম ট্রফি জয়ের রেকর্ডটা ভাগ করে নিয়েছেন নাদাল আগেই। চোটের জন্য আসরে নেই সুইস তারকা ফেদেরার। আর সার্বিয়ান তারকা জোকোভিচের ভিসা বাতিল হওয়ায় অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে ফিরতে হয়েছে না খেলেই। রেকর্ডটি একার করে নিতে লড়ে যাচ্ছেন এখন নাদাল।

রোববারের ফাইনালে দ্বিতীয় বাছাই রাশিয়ান তারকা দানিল মেদভেদেভের মুখোমুখি হবেন নাদাল। দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে গ্রীসের স্তেফানোস সিৎসিপাসকে ৭-৬ (৭-৫), ৪-৬, ৬-৪ ও ৬-১ গেমে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কেটেছেন ইউএস ওপেনের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মেদভেদেভ।

;

তামিমের শতকে উড়ে গেল সিলেট



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
তামিম ইকবাল

তামিম ইকবাল

  • Font increase
  • Font Decrease

শুরুতে শতক হাঁকালেন লেন্ডল সিমন্স। জবাবে সেঞ্চুরি ছিনিয়ে নিলেন তামিম ইকবালও। কিন্তু শেষ হাসিটা হাসলেন চট্টগ্রামের ছেলে তামিমই। কেনন তার জাদুকরী তিন অঙ্কের ছোঁয়াতে সিলেট সানরাইজার্সকে ৯ উইকেট উড়িয়ে দিয়েছে মিরিস্টার গ্রুপ ঢাকা। ধ্বংসাত্মক এ জয়টা এসেছে ১৮ বল হাতে রেখেই।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের ব্যাটিং পিচে টস হেরে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে ঝলক দেখা সিমন্স। হাঁকান এবারের বিপিএলের প্রথম সেঞ্চুরি। ৬৫ বলে ১৫ বাউন্ডারি ও ৫ ছক্কায় খেলেন ১১৬ রানের দুরন্ত এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। তাতেই সিলেটের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৭৫ রান। ঢাকার হয়ে একটি করে উইকেট শিকার করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, আন্দ্রে রাসেল, এবাদত হোসেন ও কাইস আহমদ।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বিস্ফোরক ব্যাটিং শুরু করেন ম্যাচসেরা তামিম। ৬৪ বলে ১৭ বাউন্ডারি ও চার ছক্কায় খেলেন ১১১* রানের হার না মানা অনন্য এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। ফলে দুই ইনিংসে দুদলই পেল সেঞ্চুরির দেখা। তামিমের ওপেনিং পার্টনার মোহাম্মদ শাহজাদ খেলেন ফিফটি। ৩৯ বলে ৭ চার ও এক ছয়ে ৫৩ রান এনে দিয়ে তবেই ফেরেন। উদ্বোধনী জুটিতেই দুজনে তুলে ফেলেন ১৭৩ রান।

পরে ১৭তম ওভারের শেষ বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ঢাকাকে জয়ের ঠিকানায় পৌঁছে দেন তামিম। এক উইকেট হারিয়ে ঢাকা ছুঁয়ে ফেলে ১৭৭ রানের জয়ের লক্ষ্য। সিলেটের হয়ে একমাত্র উইকেটটি নেন আলাউদ্দিন বাবু।

;

বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে তামিমের সেঞ্চুরি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সেঞ্চুরিয়ান তামিম ইকবাল

সেঞ্চুরিয়ান তামিম ইকবাল

  • Font increase
  • Font Decrease

মিরপুরে ব্যাটিং দাপট দেখিয়েছেন আগেই। পেয়েছেন দুটি ফিফটির দেখা। ঘরের মাঠ বলে কথা। বিপিএল জন্মশহর চট্টগ্রামে ফিরতেই আরও যেন তেতিয়ে উঠলেন তামিম ইকবাল। বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে আদায় করলেন দুর্বার এক সেঞ্চুরি। এবারের বিপিএলে এটা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। সেটা এলো চট্টগ্রাম পর্বে। আর শতকটি নিজের করে নিলেন ঘরের ছেলে তামিম।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৬৩ বলে ১৬ চার ও চার ছক্কায় ১০৭* নিয়ে এখনো ব্যাটিংয়ে টিকে আছেন মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার তারকা ওপেনার তামিম। তবে তার ওপেনিং পার্টনার মোহাম্মদ শাহজাদ ফিরে গেছেন ৫৩ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে। তবে ঢাকা এক উইকেট হারিয়ে তুলে ফেলেছে ১৭৩ রান। জয়ের জন্য তাদের দরকার মাত্র চার রান।

এর আগে ঢাকার প্রথম দুই ম্যাচেই অর্ধ-শতকের দেখা পান তামিম। প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে ৫০ করে ফেরেন। দ্বিতীয় ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে দলকে এনে দেন ৫২ রান। দুই ম্যাচ বিরতি দিয়ে এবার পেলেন সেঞ্চুরি।

অথচ আগের দিন আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে ছয় মাসের জন্য ছুটি নিয়েছেন তামিম। জোর দিয়েই জানিয়েছেন, তরুণদের যথেষ্ট সুযোগ করে দিলে টাইগারদের কুড়ি ওভারের দলে তাকে আর প্রয়োজন পড়বে না। কিন্তু আজ যেভাবে ধ্বংসাত্মক ব্যাটিংয়ের দ্যুতি দেখালেন, তাতে করে জাতীয় দলে তামিমের প্রয়োজনটা আরও বেশি করে অনুভূত হবে এনিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

তার আগে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের ব্যাটিং পিচে টস হেরে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে ঝলক দেখা সিমন্স। হাঁকান এবারের বিপিএলের প্রথম সেঞ্চুরি। ৬৫ বলে ১৫ বাউন্ডারি ও ৫ ছক্কায় খেলেন ১১৬ রানের দুরন্ত এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। ফলে দুই ইনিংসে দুদলই পেল সেঞ্চুরির দেখা।

;