রনি-ফ্লেচার-থিসারার ঝড়ে জিতল খুলনা টাইগার্স



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
খুলনা টাইগার্সেরে ক্রিকেটাররা

খুলনা টাইগার্সেরে ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

তামিম ইকবালের সঙ্গে ব্যাটিং ঝলক দেখান মোহাম্মদ শাহজাদ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ত্রয়ী তারকার দুরন্ত ব্যাটিংয়ে রানের পাহাড় গড়ে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। জবাবে ব্যাট হাতে ঝড় তুললেন রনি তালুকদার, আন্দ্রে ফ্লেচার ও থিসারা পেরেরা। তাদের ব্যাটিং দাপটেই রানের পাহাড় টপকে গেল খুলনা টাইগার্স। জমজমাট ব্যাটিংয়ের ম্যাচে পেল ৫ উইকেটের রোমাঞ্চমাখা দুর্বার এক জয়।

ম্যাচসেরা রনি তালুকদার পান দারুণ এক ফিফটি। ৪২ বলে ৭ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় খেলেন ৬১ রানের অসাধারণ এক ইনিংস। তবে পাঁচ রানের জন্য অর্ধ-শতককে বঞ্চিত হন ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচার। ২৩ বলে ৭ চার ও এক ছয়ে সংগ্রহ করেন তিনি ৪৫ রান। আর ১৮ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৩৬* রানের হার না মানা দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দলকে রান পাহাড় টপকানোর চমৎকার এক জয় এনে দেন। এক ওভার হাতে রেখেই ৫ উইকেটের বিনিময়ে লক্ষ্য পেরিয়ে ১৮৬ রান তুলে ফেলে মুশফিকুর রহিমের খুলনা। ঢাকার হয়ে দুটি করে উইকেট নেন আন্দ্রে রাসেল ও এবাদত হোসেন। আর একটি উইকেট পান শুভাগত হোম।

মিরপুরে তার আগে তামিম ইকবালের ফিফটি। আর মোহাম্মদ শেহজাদ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে খুলনা টাইগার্সের সামনে ১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা।

শুরুতেই পাওয়ার হিটিং শুরু করেন মোহাম্মদ শেহজাদ। তবে আফগান এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ফিফটি ছুঁতে পারেননি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউটের শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। ২৭ বলে ৮ বাউন্ডারিতে খেলেন ৪২ রানের দাপুটে এক ইনিংস। শাহজাদ ঝড়ো ব্যাটিং করলেও তার ওপেনিং পার্টনার তামিম ইকবাল খেলেন রয়ে সয়ে। ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরেই খেললেন দারুণ এক ইনিংস। ব্যাটিং দৃঢ়তায় নিজের প্রত্যাবর্তনটা রাঙালেন অর্ধ-শতক দিয়ে। ৪২ বলে ৭ চারে ৫০ পূর্ণ করে কামরুল ইসলাম রাব্বীর বলে নাভিন উল হকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তামিম।

তামিম ফেরার পর ঢাকার ব্যাটিং লাইন-আপের হাল ধরেন ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আন্দ্রে রাসেলকে সঙ্গে নিয়ে আভাস দেন ছক্কা ঝড়ের। তবে অবিশ্বাস্যভাবে ৭ রান নিয়ে সাজঘরে ফেরেন ক্যারিবিয়ান এ বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। ফিল্ডার মেহেদী হাসান বল ছুঁড়ে ছিলেন মাহমুদউল্লাহকে আউট করতে। কিন্তু বল ব্যাটিং প্রান্তের স্টাম্প ভেঙে আঘাত করে বোলিং প্রান্তের স্টাম্পে। শেষ দিকে কিছুটা ধীর গতিতে প্রান্ত স্পর্শ করতে যাওয়া রাসেলের চোখ যেন কিছুতেই ব্যাপারটা বিশ্বাস করতে পারছিল না। তার শারীরিক ভাষা তো তেমনটাই বলে।

তবে মাহমুদউল্লাহ ২০ বলে খেলেন ৩৯ রানের দুর্বার এক ইনিংস। অসাধারণ ইনিংসটি সাজান তিনি ২ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়। তাতেই রান পাহাড়ে উঠে বসে ঢাকা। ৬ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮৩ রানের বিশাল পুঁজি গড়ে দলটি। খুলনা টাইগার্সের হয়ে ৪৫ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন কামরুল ইসলাম। একটি উইকেট পান থিসারা পেরেরা।

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নেয় খুলনা টাইগার্স। তাই তো শুরুতে বল হাতে মাঠে নামে ক্যাপ্টেন মুশফিকুর রহিমের দল। বিদেশি কোটায় মোহাম্মদ শাহজাদ, ইসুরু উদানা ও আন্দ্রে রাসেলকে নিয়ে একাদশ সাজিয়েছে ঢাকা। আর খুলনায় বিদেশি খেলোয়াড় রয়েছেন তিনজন। আন্দ্রে ফ্লেচার, থিসারা পেরেরা ও নাভিন উল হক। 

বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে টস জিতে বোলিং বেছে নিয়ে সাফল্য পেয়েছে সাকিবের ফরচুন বরিশাল। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে জয় দিয়ে নতুন মিশন শুরু করেছে তিন আসর পর টুর্নামেন্টে ফেরা দলটি। এবার তাদের দেখাদেখি খুলনাও একই পথে হাঁটল।

খুলনা টাইগার্স টাইগার্স: মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), আন্দ্রে ফ্লেচার, তানজিদ হাসান তামিম, রনি তালুকদার, ইয়াসির আলী চৌধুরী, থিসারা পেরেরা, শেখ মাহেদী হাসান, ফরহাদ রেজা, সোহরাওয়ার্দী শুভ, নাভিন উল হক ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা একাদশ: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (ক্যাপ্টেন), তামিম ইকবাল, নাঈম শেখ, জহুরুল ইসলাম, শুভাগত হোম চৌধুরী, আরাফাত সানি, রুবেল হোসেন, এবাদত হোসেন চৌধুরী, ইসুরু উদানা, মোহাম্মদ শাহজাদ ও  আন্দ্রে রাসেল।

চার উইকেট হারিয়ে দিন শেষে বিপদে টাইগাররা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নাজমুল হোসেন শান্ত

নাজমুল হোসেন শান্ত

  • Font increase
  • Font Decrease

চতুর্থ দিনের শেষ দিকে মাঠে নেমেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে টাইগাররা। দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ। এখনো ১০৭ রানে পিছিয়ে স্বাগতিকরা।

মাহমুদুল হাসান জয় ১৫, তামিম ইকবাল ০, নাজমুল হোসেন শান্ত ২ ও মুমিনুল হক ০ রান নিয়ে ফিরে গেছেন। এখন ব্যাটিংয়ে আছেন প্রথম ইনিংসের দুই সেঞ্চুরিয়ান মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। ১৪* রান নিয়ে এখন ব্যাটিং করে যাচ্ছেন মুশফিকুর রহিম। ১* রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন লিটন দাস। আসিথা ফার্নান্দো দুটি ও কাসুন রাজিথা একটি উইকেট পেয়েছেন।

তৃতীয় দিনে বল হাতে ঝলক দেখালেও আজ প্রথম দুই সেশন থেকে উইকেট পাননি সাকিব আল হাসান। কিন্তু চা বিরতির পর জ্বলে উঠেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। কেড়ে নেন আরও দুটি উইকেট। সব মিলিয়ে তার উইকেট দাঁড়াল পাঁচটি। টেস্টের এক ইনিংসে এনিয়ে ১৯বারের মতো পাঁচ উইকেট পেলেন এ বাঁ-হাতি স্পিনার। 

তবে শ্রীলঙ্কা তাদের কাজের কাজ আগেই সেরে ফেলেছে। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দিনেশ চান্দিমালের জোড়া সেঞ্চুরির সুবাদে সবকটি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে ৫০৬ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। সুবাদে সফরকারীরা লিড পায় ১৪১ রানের।

দুরন্ত ব্যাটিং করে যাচ্ছিলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও চান্দিমাল। বেশ দাপটের সঙ্গেই দুজনে হাঁকিয়েছেন সেঞ্চুরি। ম্যাথুস ৩৪২ বলে ১২ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ১৪৫* রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলে অপরাজিত রয়ে গেছেন। আর চান্দিমাল ২১৯ বলে ১১ বাউন্ডার ও ১ ছক্কায় ১২৪ রান নিয়ে এবাদতের বলে ফিরে গেছেন সাজঘরে। 

বাংলাদেশের হয়ে ৪০.১ ওভারে ৯৬ রান খরচ করে পাঁচটি উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর ৩৮ ওভারে ১৪৮ রান দিয়ে এবাদত হোসেন পেয়েছেন চারটি উইকেট।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের দুরন্ত সেঞ্চুরিতে প্রথম বাংলাদেশ গড়েছে ৩৬৫ রান। 

;

সাকিবের পাঁচ উইকেট, শ্রীলঙ্কা থামল ৫০৬ রানে



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সাকিব আল হাসান

সাকিব আল হাসান

  • Font increase
  • Font Decrease

তৃতীয় দিনে বল হাতে ঝলক দেখালেও আজ প্রথম দুই সেশন থেকে উইকেট পাননি সাকিব আল হাসান। কিন্তু চা বিরতির পর জ্বলে উঠেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। কেড়ে নেন আরও দুটি উইকেট। সব মিলিয়ে তার উইকেট দাঁড়াল পাঁচটি। টেস্টের এক ইনিংসে এনিয়ে ১৯বারের মতো পাঁচ উইকেট পেলেন এ বাঁ-হাতি স্পিনার। 

তবে শ্রীলঙ্কা তাদের কাজের কাজ আগেই সেরে ফেলেছে। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দিনেশ চান্দিমালের জোড়া সেঞ্চুরির সুবাদে সবকটি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে ৫০৬ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। সফরকারীরা লিড পেয়েছে ১৪১ রানের।

দুরন্ত ব্যাটিং করে যাচ্ছিলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও চান্দিমাল। বেশ দাপটের সঙ্গেই দুজনে হাঁকিয়েছেন সেঞ্চুরি। ম্যাথুস ৩৪২ বলে ১২ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ১৪৫* রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলে অপরাজিত রয়ে গেছেন। আর চান্দিমাল ২১৯ বলে ১১ বাউন্ডার ও ১ ছক্কায় ১২৪ রান নিয়ে এবাদতের বলে ফিরে গেছেন সাজঘরে। 

বাংলাদেশের হয়ে ৪০.১ ওভারে ৯৬ রান খরচ করে পাঁচটি উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর ৩৮ ওভারে ১৪৮ রান দিয়ে এবাদত হোসেন পেয়েছেন চারটি উইকেট।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের দুরন্ত সেঞ্চুরিতে প্রথম বাংলাদেশ গড়েছে ৩৬৫ রান। চতুর্থ দিনের শেষ দিকে মাঠে নেমেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে টাইগাররা। দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ। আসিথা ফার্নান্দো দুটি ও কাসুন রাজিথা একটি উইকেট পেয়েছেন। 

;

ম্যাথুস-চান্দিমালের শতকে এগিয়ে শ্রীলঙ্কা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
দিনেশ চান্দিমাল ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস

দিনেশ চান্দিমাল ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস

  • Font increase
  • Font Decrease

দুরন্ত ব্যাটিং করে যাচ্ছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। বেশ দাপটের সঙ্গেই হাঁকিয়েছেন সেঞ্চুরি। তার সঙ্গী দিনেশ চান্দিমালও পেয়েছেন শতকের দেখা।

ম্যাথুস ১০৬* রান করে এখনো ব্যাটিং লড়াইটা চালিয়ে যাচ্ছেন। চান্দিমাল ১০০* রান নিয়ে টিকে আছেন ক্রিজে। 

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ম্যাথুস-চান্দিমালের ব্যাটিংয়ে দৃঢ়তায় ৫ উইকেট প্রথম ইনিংসে ৪২০ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। অতিথিরা এগিয়ে রয়েছে ৫৫ রানে।

তার আগে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৮২ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করে শ্রীলঙ্কা। দিন শেষে ৫৮ রানে অপরাজিত ছিলেন ম্যাথুস। চান্দিমাল ১০ নিয়ে তাকে সঙ্গ দিয়ে অজেয় থেকে যান।

বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর এবাদত হোসেন পেয়েছেন দুটি উইকেট। তবে বোলিংয়ে সুবিধা করে উঠতে পারছেন না টাইগাররা। চতুর্থ দিনে এখনো পর্যন্ত কোনো উইকেট ফেলতে পারেনি স্বাগতিকরা। 

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের দুরন্ত সেঞ্চুরিতে প্রথম বাংলাদেশ গড়েছে ৩৬৫ রান। 

;

আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে তাইজুলের শাস্তি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
তাইজুল ইসলাম

তাইজুল ইসলাম

  • Font increase
  • Font Decrease

অতি উৎসাহী হওয়ার খেসারত দিতে হলো তাইজুল ইসলামকে। আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগে শাস্তি পেয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এই স্পিনার।

স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারী শ্রীলঙ্কার মধ্যকার চলমান ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের দিকে অযথা বল ছুঁড়ে মারায় বাংলাদেশের বাঁহাতি স্পিনারকে জরিমানা করেছে আইসিসি।

আইসিসি আচরণবিধির ২.৯ ধারা ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত করা হয় তাকে। এই ধারায় আছে, কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ চলার সময় কোনো ক্রিকেটারের দিকে বা কাছাকাছি বিপজ্জনক বা অনুপযুক্তভাবে বল ছুঁড়ে মারা। এই দায়ে ম্যাচ ফির শতকরা ২৫ ভাগ জরিমানা করা হয় তাইজুলকে। একইসঙ্গে তার নামের পাশে যোগ করা হয় একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। ২৪ মাস সময়ের মধ্যে তাইজুলের প্রথম ডিমেরিট পয়েন্ট এটিই।

;