সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল কুমিল্লা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্যটা ছিল মাত্র ৯৭। সহজ লক্ষ্য। কিন্তু সেই সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। জিতল ২ উইকেটে। রোমাঞ্চকর জয়টা আসল ৮ বল হাতে রেখেই। দাপুটে বোলিংয়ে সিলেট সিক্সার্সকে ৯৬ রানেই গুটিয়ে দিয়েছিল কুমিল্লা। কিন্তু জবাবে ব্যাট করতে নেমে তারাও পড়ে গিয়েছিল বিপদে। হারের দ্বারপ্রান্ত থেকে ফিরে দারুণ লড়াকু এক জয় ছিনিয়ে নিয়েছে ক্যাপ্টেন ইমরুল কায়েসের দল।

জয়ের স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নামলেও কুমিল্লার আশা মলিন হতে সময় নেয়নি মোটেই। ৫৫ রানে হারিয়ে ফেলে ৫ উইকেট। আর ৮৮ রানে অষ্টম উইকেট খুইয়ে ফেলে খাবি খেতে থাকে তারা। সেই ব্যাটিং বিপর্যয় থেকে কোনোমতো নিজেদের উদ্ধার করে ১৮.৪ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পা রেখেছে কুমিল্লা।

কুমিল্লার হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংসটা আসে করিম জানাতের ব্যাট থেকে। তবে সেটা সীমাবদ্ধ ছিল ১৮ রানেই। দলীয় স্কোরে ১৬ রান যোগ করে ফেরেন নাহিদুল ইসলাম ও ওপেনার ক্যামেরন ডেলপোর্ট। মমিনুল হক ১৫ ও ইমরুল কায়েস ১০ এনে দেন। সিলেটের হয়ে নাজমুল ইসলাম তিনটি উইকেট শিকার করেন। দুটি করে উইকেট নেন সোহাগ গাজী ও মোসাদ্দেক হোসেন।

তার আগে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দুরন্ত বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি সিলেট সিক্সার্স ব্যাটসম্যানরা। সিলেট গুটিয়ে গেছে মাত্র ৯৬ রানে। পুরো ২০ ওভারও খেলতে পারেনি তারা। সিলেটের ব্যাটিং যাত্রা থেমেছে ১৯.১ ওভারেই।

সিলেটের কলিন ইনগ্রাম করেন ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ২০ রান। রবি বোপারার ব্যাট থেকে আসে ১৭। আর সোহাগ গাজী এনে দেন ১২ রান। বাকিরা কেউ দুই অংকও স্পর্শ করতে পারেননি। কুমিল্লার হয়ে দুটি করে উইকেট শিকার করেন ম্যাচসেরা নাহিদুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান ও শহিদুল ইসলাম। 

অধিনায়কত্ব নিয়ে মুমিনুলের সঙ্গে বৈঠক করবেন পাপন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নাজমুল হাসান পাপন

নাজমুল হাসান পাপন

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্যাট হাতে রান পাচ্ছেন না মুমিনুল হক। তার অধিনায়কত্বেও নেই চমক। টাইগারদের ঝুলিতে যোগ হয়েছে আরও একটি দুঃখগাথা। ১০ উইকেটের হারে শ্রীলঙ্কার কাছে সিরিজ হাতছাড়া হয়েছে টাইগারদের। ক্যাপ্টেন মুমিনুলের কাঁধে চাপটা আরও বেড়েই গেল। এনিয়ে বিসিবি'র ভাবনা-চিন্তা কী? 

উত্তরে ব্যাপারটা মুমিনুলের ওপরই ছেড়ে দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন. ‘আজকে ওর সঙ্গে একটু ব্রিফলি বসেছি। সামনে আরও বসবো, কাল-পরশু ওর সাথে বসবো লম্বা আলোচনায়। দেখি আলোচনা করে ও কী মনে করে, আমরা বের করে ফেলব।’

মুমিনুল নিজে স্বীকার না করলেও পাপন বলেন, মানসিক চাপে আছেন লাল বলের কাপ্তান, ‘মুমিনুল রান পাচ্ছে না, এটা আমাদের কাছে যেমন চিন্তার বিষয় ওর কাছেও তো খারাপ লাগবে। অধিনায়ক যখন রান করতে পারে না, তখন চাপটা কিন্তু অনেক বেশি। আমার ধারণা ও প্রচণ্ড মানসিক চাপে আছে। কাল-পরশু বসে খোলামেলা কথা বলে দেখি ওর মাথায় কী আছে, ও কী চিন্তা করে। তারপর আপনাদেরকে নির্দিষ্টভাবে জানাব।’ 

অধিনায়কত্ব নিয়ে নয় পাপনের দুশ্চিন্তা মুমিনুলের ব্যাটিং অফ ফর্ম নিয়ে, 'সো ফার মুমিনুলের অধিনায়কত্ব নিয়ে আমরা খুব একটা চিন্তিত নই। সমস্যাটা হচ্ছে ওর ব্যাটিং নিয়ে, ও রান পাচ্ছে না। এটা তো চিন্তার বিষয়। একজন অধিনায়ক যখন রান করে না, তখন ওর কী মানসিক চাপটা পড়ে তা চিন্তা করেন। তাই আমরা এখন শুধু আশা করতে পারি যে ও তাড়াতাড়ি রানে ফিরুক।’

;

হেসে-খেলেই সিরিজ জিতল শ্রীলঙ্কা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস

সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্যটা ছিল মাত্র ২৯! সহজ লক্ষ্যটা হেসে-খেলেই ছুঁয়ে ফেললো শ্রীলঙ্কা। এবং কোনো উইকেট না হারিয়েই। সেটা হলো মাত্র তিন ওভারেই। ওপেনার ওশাদা ফার্নান্দোর ব্যাট থেকে আসে ২১* রান। তার ওপেনিং পার্টনার দিমুথ করুনারত্নে তোলেন ৭* রান।

মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টাইগারদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ১০ উইকেটে জিতল সফরকারীরা। সঙ্গে দুই টেস্টের সিরিজ ১-০ ব্যবধানে জিতল লঙ্কানরা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট ছিল অমীমাংসিত।

সাকিব-লিটনের ফিফটির পরও দ্বিতীয় ইনিংসে ১৬৯ রানে গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। লিড আসে মাত্র ২৮ রানের। শ্রীলঙ্কার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৯ রান।

ওয়ানডে স্টাইলে খেলে। ৭২ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫৮ রানের অসাধারণ এক ক্রিকেটীয় ইনিংস খেলেন সাকিব। লিটন ১৩৫ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ৫২ রানের ধৈর্যশীল ইনিংস খেলে সাকিবকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন। ২৩ রান করে ফিরে গেছেন মুশফিক।

শ্রীলঙ্কার হয়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন কাসুন রাজিথা। তবে একাই ৬ উইকেট শিকার করেন ম্যাচসেরা আসিথা ফার্নান্দো। বাকি উইকেটটি পান রমেশ মেন্ডিস।

তার আগে ৪ উইকেটে ৩৪ রান নিয়ে পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। ১৪ রান নিয়ে দিন শেষে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক। ১ রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন লিটন।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের দুরন্ত সেঞ্চুরিতে প্রথম বাংলাদেশ গড়েছে ৩৬৫ রানের পুঁজি। জবাবে সিরিজসেরা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দিনেশ চান্দিমালের জোড়া সেঞ্চুরির সুবাদে সবকটি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে ৫০৬ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। এতে সফরকারীরা লিড পায় ১৪১ রানের

;

হারের দ্বারপ্রান্তে টাইগাররা, ২৯ রান করলেই সিরিজ শ্রীলঙ্কার



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
লিটন দাস

লিটন দাস

  • Font increase
  • Font Decrease

হারের দ্বারপ্রান্তে এখন টাইগাররা। সাকিব-লিটনের ফিফটির পরও দ্বিতীয় ইনিংসে ১৬৯ রানে গুটিয়ে গেছে স্বাগতিকরা। লিড বলতে ২৮ রান। ২৯ রান করলেই ম্যাচের সঙ্গে সিরিজও পেয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা।

ওয়ানডে স্টাইলে খেলে? ৭২ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫৮ রানের অসাধারণ এক ক্রিকেটীয় ইনিংস খেলেন সাকিব। লিটন ১৩৫ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ৫২ রানের ধৈর্যশীল ইনিংস খেলে সাকিবকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন। ২৩ রান করে ফিরে গেছেন মুশফিক।

শ্রীলঙ্কার হয়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন কাসুন রাজিথা। তবে একাই ৬ উইকেট শিকার করেন আসিথা ফার্নান্দো। বাকি উইকেটটি পান রমেশ মেন্ডিস।

তার আগে ৪ উইকেটে ৩৪ রান নিয়ে পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। ১৪ রান নিয়ে দিন শেষে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক। ১ রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন লিটন। 

;

সাকিবের পর লিটনের ফিফটি, লড়ছে টাইগাররা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সাকিব আল হাসান

সাকিব আল হাসান

  • Font increase
  • Font Decrease

চতুর্থ দিনের শেষ দিকে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় বাংলাদেশ। ২৩ রানে চার উইকেট হারিয়ে ইনিংস হারের শঙ্কায় পড়ে যায় দল। পরে মুশফিকুর রহিম বিদায় নিলে শঙ্কাটা বেড়ে যায়। 

তবে সাকিব আল হাসান ও লিটন দাসের দুরন্ত জুটিতে ইনিংস হারের শঙ্কা কেটে গেলেও হারের শঙ্কা এখনো কাটেনি। 

ম্যাচ বাঁচাতে ব্যাটিং ঝলক দেখিয়ে যাচ্ছেন সাকিব। বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার ফিফটি হাঁকিয়ে ছুটছেন সেঞ্চুরির পথে। ফিফটির ছোঁয়ার স্বাদ পেয়েছেন লিটনও।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সাকিব-লিটনের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫২ রান তুলেছে টাইগাররা। মিরপুরের দ্বিতীয় টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে ১১ রানের লিড পেয়েছে স্বাগতিকরা। ওয়ানডে স্টাইলে খেলে ৬২ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫৩* রানের অসাধারণ এক ক্রিকেটীয় ইনিংস খেলে ব্যাটিং লড়াইটা চালিয়ে যাচ্ছেন সাকিব। লিটন ১৩০ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ৫০* রানের ধৈর্যশীল ইনিংস খেলে সাকিবকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন। এর আগে ২৩ রান করে ফিরে গেছেন মুশফিক।

শ্রীলঙ্কার হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো।

তার আগে ৪ উইকেটে ৩৪ রান নিয়ে পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। ১৪ রান নিয়ে দিন শেষে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক। ১ রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন লিটন।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের দুরন্ত সেঞ্চুরিতে প্রথম বাংলাদেশ গড়েছে ৩৬৫ রানের পুঁজি। জবাবে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দিনেশ চান্দিমালের জোড়া সেঞ্চুরির সুবাদে সবকটি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে ৫০৬ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। এতে সফরকারীরা লিড পায় ১৪১ রানের।

;