খালেদের ৫ উইকেট, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪০৮



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
খালেদ আহমেদের উইকেট উদযাপন

খালেদ আহমেদের উইকেট উদযাপন

  • Font increase
  • Font Decrease

বল হাতে ঝড় তুলে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন খালেদ আহমেদ। টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো তরুণ এ পেসার শিকার করলেন পাঁচ উইকেট। কিন্তু তারপরও ব্যাট হাতে ঝলক দেখিয়েছেন কাইল মেয়ার্স। হাঁকিয়েছেন দারুণ এক সেঞ্চুরি। তার শতকের ওপর ভর করে রান পাহাড়ে পৌঁছে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সবকটি উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকরা দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে গড়েছে ৪০৮ রানের পুঁজি। এতে উইন্ডিজ লিড পেয়েছে ১৭৪ রানের।

সেন্ট লুসিয়ায় মেয়ার্স খেলেছেন ১৪৬ রানের দুরন্ত এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। দাপুটে এ ইনিংসটি সাজান তিনি ২০৮ বলে ১৮ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায়। বৃষ্টি বিঘ্নিত তৃতীয় দিনে তাকে ফিরিয়ে দিয়েছেন খালেদ আহমেদ। 

পরে আর কেউ সেভাবে দাপট দেখাতে পারেননি। ২৯ রান নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন জোশুয়া ডি সিলভা। কেমার রোচ অপরাজিত রয়ে গেছেন ১৮ রান নিয়ে।

খালেদ ১০৬ রান দিয়ে শিকার করেছেন ৫ উইকেট। ৯১ রান খরচ করে তিনটি উইকেট পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দুটি উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম। বিনিময়ে দেন তিনি ৭৬ রান।

তার আগে ৫ উইকেটে ৩৪০ রান নিয়ে তৃতীয় তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে মেন ইন মেরুন শিবির। ১২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন মেয়ার্স। ২৬ রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন জোশুয়া ডি সিলভা। 

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি টাইগারদের। জোরালো আঘাত হেনেছেন কেমার রোচ। তৃতীয় দিনে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫২ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে সফরকারীরা। এখনো ১২২ রানে পিছিয়ে টাইগাররা।তিনটি উইকেটই গেছে কেমার রোচের পকেটে।

ক্রিকেট অনুরাগীদের হতাশ করে বিদায় নিয়েছেন তামিম ইকবাল (৪), এনামুল হক বিজয় (৪) ও মাহমুদুল হাসান জয় (১৩)। এখন ব্যাটিং করে যাচ্ছেন নাজমুল হোসেন শান্ত (১৬) ও লিটন দাস (১৪)।

লিটন দাসের ফিফটিতে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে যায় ২৩৪ রানে।

টি-টোয়েন্টি থেকে সরানো হচ্ছে ডমিঙ্গোকে



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রাসেল ডমিঙ্গো

রাসেল ডমিঙ্গো

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলের দায়িত্ব থেকে কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে সরিয়ে দিচ্ছে বিসিবি। বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট হিসেবে শ্রীধরন শ্রীরামকে নিয়োগ দেয়ার পর এমন গুঞ্জনই ছড়িয়ে পড়েছে চারদিকে। শোনা যাচ্ছে, আসন্ন এশিয়া কাপ থেকে শ্রীরামকে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি প্রধান করতে যাচ্ছে বোর্ড।

তবে সিদ্ধান্ত এখনো চূড়ান্ত হয়নি। টি-টোয়েন্টি দলে ডমিঙ্গো থাকবেন কিনা সেটা জানা যাবে দিন কয়েক পর। বিভিন্ন সূত্র বলছে, সব কিছুই ঠিকঠাক হয়ে গ

টি-টোয়েন্টি দলের কোচিংয়ে শুধু পরামর্শক শ্রীরামকে থাকবেন নাকি তার সঙ্গে ডমিঙ্গোও থাকবেন- এনিয়ে আজ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘এটা আমরা এখনো ঠিক করিনি। ২২ তারিখ সবার সঙ্গে বসা হবে। বসে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। অনেক পরিবর্তনই আসবে। একটা-দুটি জিনিস নয়। আমরা রাসেল ডমিঙ্গোকে রেখেই পরিবর্তন করব নাকি না রেখে করব, এসব কিছু আমরা ২২ তারিখ সিদ্ধান্ত নেব। আমাদের সবার সঙ্গে বসব। তাদের কথা শুনব।’

তবে পাপনের কথায় বিষয়টা স্পষ্ট- টি-টোয়েন্টি থেকে বিদায় নিচ্ছেন ডমিঙ্গো। ডমিঙ্গোকে শুধু ওয়ানডে ও টেস্ট দলের কোচের দায়িত্বে রাখতে চায় বিসিবি। অতিরিক্ত ক্রিকেটের কথা ভেবেই বোর্ডের এ পরিকল্পনা। নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমাদের এখন পর্যন্ত চিন্তাধারা হচ্ছে, ডমিঙ্গোর ওয়ানডে ও টেস্টে মনোযোগী হতে হবে। আমরা সবকিছু একটু আলাদা করতে চাচ্ছি। যে পরিমাণ খেলা, ডমিঙ্গোর পক্ষে এত কিছুতে মনোযোগ দেওয়া সম্ভব নয়। তার সঙ্গে আমাদের যে চুক্তি, অনেক সিরিজে সে যেতেই পারবে না। তার ছুটির একটা নির্দিষ্ট সময় আছে তো। বুঝতে হবে। এটা এত সহজ নয়।’

কোচ হিসেবে ডমিঙ্গোর মানসিকতা টি-টোয়েন্টির সঙ্গে মানানসই নয় মোটেই। ব্যাপারটা অকপটে স্বীকার করে নিয়েছেন নাজমুল হাসান, ‘মানসিকতার একটা ব্যাপার আছে। টেস্ট ও ওয়ানডের সঙ্গে টি-টোয়েন্টির কোনো মিল নেই। এসব নিয়ে চিন্তাভাবনা করে আলাদা করার কথা ভাবছি।’

ভবিষ্যতে ভিন্ন ভিন্ন সংস্করণে ভিন্ন ভিন্ন কোচ নিয়োগ দেওয়ার কথাও ভেবে রেখেছে বিসিবি। তবে সেটা নির্ভর করছে এশিয়া কাপ ও টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের পারফরম্যান্সের ওপর, ‘যদি পারি আমরা কোচিং স্টাফও আলাদা করে দেব। আমরা এশিয়া কাপে দেখব, বিশ্বকাপে দেখব। এরপর একটা সিদ্ধান্ত নেব। তারপর শ্রীরামকে টি-টোয়েন্টিতে রেখে দেব নাকি অন্য কাউকে দেখব, এটা পারফরম্যান্সের ওপর নির্ভর করবে।’

;

সেরা একাদশ নির্বাচন করবেন সাকিব নিজেই: পাপন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সেরা একাদশ নির্বাচন করবেন সাকিব নিজেই: পাপন

সেরা একাদশ নির্বাচন করবেন সাকিব নিজেই: পাপন

  • Font increase
  • Font Decrease

দলের সেরা একাদশ নির্বাচন করবেন সাকিব আল হাসান নিজেই। কোচ যেই থাকুক না কেন কাজটা সাকিবই করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

এর আগে অধিনায়ক থাকাকালে ‘একাদশ ঠিক করার বিষয়টা আমার হাতে নেই। এটা সম্পূর্ণ বোর্ড বা ম্যানেজমেন্টের ওপর নির্ভর করে।’ এমন মন্তব্য করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক থাকাকালীন এমন ক্ষমতা পাননি রিয়াদ, সেটা স্বীকার করেছেন অকপটেই।

রিয়াদ না পারলেও নিজের দলের সেরা একাদশ নির্বাচন করোর ক্ষমতা পেয়েছেন সাকিব আল হাসানই।

শুক্রবার গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতায় এ প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘না। সাকিবের কোনো সমস্যা নেই। একটা জিনিস মনে রাখবেন, সাকিব যখন অধিনায়ক হয় কে কোচ বা কে না এটা নিয়ে কোনো ইস্যু হয় না। সেরা একাদশ ওই (সাকিব) ঠিক করে। এটা তো বোঝা উচিত আপনাদের। ও ওর মতো ঠিক করে।’

একাদশ সাকিব নিজে ঠিক করলেও প্রয়োজনে প্রধান কোচের সঙ্গে পরামর্শ করেন বলে নিশ্চিত করেছেন পাপন। তবে ম্যাচের পরিকল্পনা কোচের কাছ থেকেই নেন সাকিব। এদিকে প্রধান কোচ না থাকলে কখনও কখনও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন ম্যাচের পরিকল্পনা সাজাতে সাহায্য করেন বলে জানান তিনি।

পাপন বলেন, ‘অবশ্যই ওইখানে হয়তো কোচের সঙ্গে পরামর্শ করে। কিন্তু কোচও প্রাধান্য দেয় অধিনায়ককে সেরা একাদশের ক্ষেত্রে। খেলার পরিকল্পনা কি হবে এটা হয়তো ব্যাখ্যা করে দেয়। ওইটা ব্যাখ্যা করতে পারে। এটা তো যে কেউই বাদ দিতে পারে। আমাদের যদি হেড কোচ নাও থাকে ওইখানে খালেদ মাহমুদ সুজনও করে, ওখানে জালাল ইউনুস থাকলে সেও করবে।’

এশিয়া কাপের আগে শ্রীধরন শ্রীরামকে টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বিসিবি। অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত কাজ করার কথা রয়েছে তার।

;

বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীরাম



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের টেকনিক্যাল কনসালটেেন্টর দায়িত্বে শ্রীরাম

বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের টেকনিক্যাল কনসালটেেন্টর দায়িত্বে শ্রীরাম

  • Font increase
  • Font Decrease

গুঞ্জন ছিল আসন্ন এশিয়া কাপকে সামনে রেখে শ্রীরাম শ্রীধরনকে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। যদিও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন এই ভারতীয়কে টেকনিক্যাল কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।

বিসিবির সঙ্গে আলোচনার জন্য ২১ আগস্ট দুপুরে বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ব্যাটিং ও স্পিন কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করা শ্রীরামের। তার সঙ্গে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন বিসিবি সভাপতি।

এ প্রসঙ্গে পাপন বলেন, 'শ্রীরাম শ্রীধরনকে আমরা শর্টলিস্ট করেছিলাম। সে আমাদের ওই লিস্টে ছিল। সে আমাদের এখানে আসছে। ২১ তারিখ দুপুর বেলা তার আসার কথা। সে কোচ হিসেবে আসছে না, সে অবশ্যই প্রধান কোচের দায়িত্ব নেবে না। সে আসছে টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত কাজ করতে আসছে সে।'

শ্রীরামকে নেয়ার কারণ হিসেবে পাপন বলেছেন, 'সে যেহেতু আইপিএলে দলের সঙ্গে আছে। তার সঙ্গে যেহেতু সম্পৃক্ততা আছে তার এবং আমরা এমন একজনকে চাইছিলাম যে কিনা টি-টোয়েন্টির সঙ্গে অভিজ্ঞতা আছে। এটা একটা কারণ। আরেকটা হচ্ছে অস্ট্রেলিয়াতে আমাদের বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়াতে সে বহুদিন কাজ করেছে। এই দুটো কারণে তাকে আমরা টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট হিসেবে নিচ্ছি।'

বেশ কয়েক বছর ধরে কোচ হিসেবে কাজ করছেন শ্রীরাম। জাতীয় দল, বয়স ভিত্তিক কিংবা ফ্র্যাঞ্চাইজি সব জায়গাতেই কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে তার। অস্ট্রেলিয়া দলে স্পিন কোচ হিসেবে কাজ করেছেন বেশ কিছু দিন। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া 'এ' দলের ভারত সফরে কোচিং প্যানেলে ছিলেন তিনি।

২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফরেও ছিলেন তিনি। ২০১৯ সালে অ্যাশেজ সিরিজেও অস্ট্রেলিয়ার কোচিং প্যানেলের অন্যতম সদস্য করা হয়েছিল তাকে। ২০১৯ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ব্যাটিং ও স্পিন কোচ হিসেবেও কাজ করেছেন শ্রীরাম।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ক্রিকেট খেলারও অভিজ্ঞতা আছে শ্রীরামের। ২০০০ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ভারত জাতীয় দলে খেলেছেন তিনি। এই সময়ে ভারতের জার্সিতে ৮টি ওয়ানডে খেলেছেন। তামিলনাড়ূর এ ক্রিকেটারের ঘরোয়া রেকর্ডও খুবই সমৃদ্ধ। রঞ্জি ট্রফিতে এক মৌসুমে রেকর্ড ১০৭৫ রান করেছেন তিনি।

;

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের নতুন কোচ শ্রীরাম!



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
এশিয়া কাপে বাংলাদেশের নতুন কোচ শ্রীরাম!

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের নতুন কোচ শ্রীরাম!

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন এশিয়া কাপে বাংলাদেশের কোচ থাকছেন না রাসেল ডমিঙ্গো। তার পরিবর্তে দায়িত্ব ‘দেওয়া হচ্ছে’ শ্রীধরন শ্রীরামকে। আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত এই পদে থাকবেন তিনি।

শ্রীরামকে কোচিং প্যানেলে যুক্ত করার বিষয়টি এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে জানায়নি বিসিবি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিসিবির একজন বোর্ড পরিচালক গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের নতুন কোচ হয়েছেন ভারতীয় শ্রীরাম। শিগগিরই তিনি কাজ শুরু করবেন সাকিব আল হাসান-আফিফ হোসেনদের সঙ্গে। আপাতত বাকি দুই সংস্করণে অর্থাৎ ওয়ানডে ও টেস্ট দলের কোচের দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন ডমিঙ্গো। পরবর্তীতে তার সঙ্গে আলোচনায় বসবে বিসিবি। ছুটি কাটিয়ে নিজ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এদিন বাংলাদেশে ফিরছেন তিনি।

তিনি বলেন, টি-টোয়েন্টিতে নতুন মানসিকতা নিয়ে এগোতে চাওয়ার অংশ হিসেবে শ্রীরামকে নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত এসেছে। আমরা যেহেতু নতুন একটা মানসিকতা ও চিন্তাভাবনা নিয়ে এগোচ্ছি, তাই এশিয়া কাপ থেকেই নতুন কোচ দেখা যাবে। আমাদের মূল লক্ষ্য যেহেতু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, তাই এশিয়া কাপ থেকে নিয়োগ না দিলে তিনি মানিয়ে নেওয়ার সময় পাবেন না। অনেকে হয়তো বলতে পারেন, এশিয়া কাপেরও তো আর খুব বেশি বাকি নেই। কিন্তু যেটা বললাম, আমাদের মূল ফোকাস হলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।
বেশ কয়েক বছর ধরে কোচ হিসেবে কাজ করছেন শ্রীরাম। জাতীয় দল, বয়স ভিত্তিক কিংবা ফ্র্যাঞ্চাইজি সব জায়গাতেই কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে তার। অস্ট্রেলিয়া দলে স্পিন কোচ হিসেবে কাজ করেছেন বেশ কিছু দিন। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া 'এ' দলের ভারত সফরে কোচিং প্যানেলে ছিলেন তিনি।

২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফরেও ছিলেন তিনি। ২০১৯ সালে অ্যাশেজ সিরিজেও অস্ট্রেলিয়ার কোচিং প্যানেলের অন্যতম সদস্য করা হয়েছিল তাকে। ২০১৯ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ব্যাটিং ও স্পিন কোচ হিসেবেও কাজ করেছেন শ্রীরাম।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ক্রিকেট খেলারও অভিজ্ঞতা আছে শ্রীরামের। ২০০০ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ভারত জাতীয় দলে খেলেছেন তিনি। এই সময়ে ভারতের জার্সিতে ৮টি ওয়ানডে খেলেছেন। তামিলনাড়ূর এ ক্রিকেটারের ঘরোয়া রেকর্ডও খুবই সমৃদ্ধ। রঞ্জি ট্রফিতে এক মৌসুমে রেকর্ড ১০৭৫ রান করেছেন তিনি।

;