লড়াইহীন সিরিজে টাইগারদের হোয়াইটওয়াশ করল ক্যারিবিয়ানরা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
এনামুল হক বিজয়

এনামুল হক বিজয়

  • Font increase
  • Font Decrease

ইনিংস হারের সব রকম ব্যবস্থাই প্রস্তুত ছিল। কিন্তু নুরুল হাসান সোহানের ব্যাটিং দৃঢ়তায় সেই লজ্জা এড়ানো গেলেও ম্যাচ বাঁচানো যায়নি। এড়ানো যায়নি হার। ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হার মানল টাইগাররা। দ্বিতীয় ইনিংসে কোনো উইকেট না হারিয়েই জয়ের লক্ষ্য ১৩ রান তুলে শিরোপা উৎসবে মাতলো স্বাগতিকরা। প্রথম টেস্টের মতো এ ম্যাচের ব্যাট বলের লড়াইও থামল চতুর্থ দিনের খেলা মাঠে গড়়াতেই। প্রকৃতি শত চেষ্টা করেও যেন টাইগারদের ম্যাচ বাঁচাতে পারল না। বৃষ্টির হানায়ও হলো না কোনো লাভ। 

এ জয়ে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে সাকিব বাহিনীকে ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করল উইন্ডিজ। অ্যান্টিগায় প্রথম টেস্টে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে ধরাশায়ী হয়েছিল দেশের ছেলেরা। টাইগারদের ফের ধসিয়ে দিয়ে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের র‍্যাঙ্কিংয়ের মূল্যবান ১২টি পয়েন্ট পেল মেন ইন মেরুন শিবির। 

প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংটা ভালো হয়নি সাকিব-তামিমদের। দ্বিতীয় ইনিংসেও সফরকারীদের ব্যাটিং হলো যাচ্ছে তাই বাজে। ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় মাত্র ১৩। মাত্র ২.৫ ওভার ব্যাট করেই সহজ এই টার্গেটটা ক্যাপ্টেন ক্রেইগ ব্রাথওয়েটের দল তুড়ি মেরে তুলে ফেলে উদ্বোধনী জুটিতেই। জন ক্যাম্পবেল ৯ আর ব্রাথওয়েট ৪ রান এনে দিতেই জয়ের বন্দরে পা রাখার আনন্দে নেচে উঠে উইন্ডিজ।

ব্যাট হাতে একাই লড়ে গেছেন নুরুল হাসান সোহান। হাঁকালেন দাপুটে এক হাফ-সেঞ্চুরি। ৫০ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় খেলেন ৬০ রানের দারুণ এক ইনিংস। তবে আলজারি জোসেফ, জেডেন সিলেস ও কেমার রোচের পেস ঝড়ে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের সংগ্রহটা বড় হয়নি। যে কারণে সেন্ট লুসিয়া টেস্টও জমে উঠেনি। তার সঙ্গে সিরিজ জয়ের লড়াইটাও হলো একপেশে। ক্যারিবিয়ানদের কাছে রীতিমতো উড়ে গেল লাল-সবুজ পতাকাধারীরা। লাল বলের ক্রিকেটে শততম ম্যাচ হারল বাংলাদেশ।

সোহানের ফিফটিতেই দ্বিতীয় ইনিংসে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৮৬ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। তবে এতে লিড দাঁড়ায় মাত্র ১২ রানের। মেহেদী হাসান মিরাজ ৪ এনে দিয়ে সাজঘরে ফিরে দর্শকদের হতাশ করেন। লেজের দিকের তিন ব্যাটসম্যান এবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম ও খালেদ আহমেদ ডাক মারায় সোহানের ইনিংস বড় হয়নি। বাড়েনি টাইগারদের লিড।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন কেমার রোচ, আলজারি জোসেফ ও জেডেন সিলেস। তার আগে ৬ উইকেটে ১৩২ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। নুরুল হাসান সোহান ১৬ ও মেহেদী হাসান মিরাজ শূন্য রান নিয়ে ব্যাটিং করতে মাঠে নামেন। বৃষ্টি বিঘ্নিত চতুর্থ দিনে দীর্ঘ সময় পর খেলা শুরু হলেও টাইগারদের ব্যাটিং লড়াই টিকল মাত্র ৯ ওভার।

দুই ওপেনার ব্যর্থ হলেও হাল ধরে দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন ওয়ানডাউনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে ফিফটি পাননি তিনি। ৯১ বলে ৮ বাউন্ডারিতে খেলেন ৪২ রানের ইনিংস। 

ড্যারেন স্যামি ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাকি ব্যাটসম্যানরা ছিলেন আসা যাওয়ার পথে। ক্রিকেট অনুরাগীদের হতাশ করে বিদায় নেন তামিম ইকবাল (৪), এনামুল হক বিজয় (৪) ও মাহমুদুল হাসান জয় (১৩)। লিটন দাস ১৯ ও সাকিব করেন ১৬ রান। 

ম্যাচসেরা ও সিরিজসেরা কাইল মেয়ার্সের সেঞ্চুরিতে সবকটি উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকরা দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে গড়ে ৪০৮ রানের পুঁজি। এতে উইন্ডিজ লিড পায় ১৭৪ রানের। আর লিটন দাসের ফিফটির পরও বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে যায় ২৩৪ রানে।

সান্ত্বনার জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়াল বাংলাদেশ



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
টাইগার ক্রিকেটাররা

টাইগার ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পর বোলিংটাও হলো দুরন্ত। তাতেই বড় জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়েকে ১০৫ রানে হারিয়ে টাইগাররা পেল সান্ত্বনার জয়। দারুণ এ জয়েই হোয়াইটওয়াশের লজ্জা থেকে রেহাই পেল তামিম বাহিনী। তবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

জিম্বাবুয়ের কোনো ব্যাটসম্যান সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেননি। ২৪ রান করেন ক্লাইভ মাদানে। লুক জংওয়ে ১৫, টনি মুনিয়োঙ্গা ১৩ ও ইনোসেন্ট কাইয়ার ব্যাট থেকে আসে ১০ রান। শেষ দিকে ব্যাট হাতে যা একটু ঝলক দেখান রিচার্ড এনগারাভা (৩৪*) ও ভিক্টোর নিয়াউচি (২৭)। চার-ছয়ের বৃষ্টি ঝরালেও লাভ হয়নি।৩২.২ ওভারে ১৫১ রানেই থেমে যায় জিম্বাবুয়ের ইনিংস।

বাংলাদেশের হয়ে চার উইকেট নেন মুস্তাফিজুর রহমান। দুটি করে উইকেট পান এবাদত হোসেন ও তাইজুল ইসলাম। একটি করে উইকেট গেছে হাসান মাহমুদ ও মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে।

ব্যাট হাতে দাপট দেখিয়েছেন ম্যাচসেরা আফিফ হোসেন ও এনামুল হক বিজয়। দুজনেই হাঁকিয়েছেন দাপুটে দুটি ফিফটি। দুজনের ব্যাটিং নৈপুণ্যে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৫৬ রানের পুঁজি গড়েছে বাংলাদেশ।

শুরু থেকে হাসল এনামুল হক বিজয়ের ব্যাট। ৭১ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় ৭৬ রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলেন তিনি। মিডল অর্ডারে তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ৮১ বলে ৬ বাউন্যডারি ও ২ ছক্কায় উপহার দেন হার না মানা ৮৫ রানের দুর্বার এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। তবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ টেস্ট মেজাজে খেলে ৬৯ বলে দলীয় স্কোরে যোগ করেন ৩৯ রান। দলের পাঁচজন ব্যাটসম্যান রানের খাতাই খুলতে পারেননি। নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, হাসান মাহমুদ, মুস্তাফিজুর রহমান ও এবাদত হোসেন। অভিষিক্ত এবাদত অবশ্য অপরাজিত থেকে যান

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে দুটি করে উইকেট শিকার করেন ব্রাড ইভান্স ও লুক জংওয়ে। একটি করে উইকেট পান রিচার্ড এনগারাভা ও সিরিজসেরা সিকান্দার রাজা।

;

টাইগারদের পুঁজি ২৫৬



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
আফিফ হোসেন

আফিফ হোসেন

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্যাট হাতে দাপট দেখিয়েছেন আফিফ হোসেন ও এনামুল হক বিজয়। দুজনেই হাঁকিয়েছেন দাপুটে দুটি ফিফটি। দুজনের ব্যাটিং নৈপুণ্যে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৫৬ রানের পুঁজি গড়েছে বাংলাদেশ।

শুরু থেকে হাসল এনামুল হক বিজয়ের ব্যাট। ৭১ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় ৭৬ রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলেন তিনি। মিডল অর্ডারে তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ৮১ বলে ৬ বাউন্যডারি ও ২ ছক্কায় উপহার দেন হার না মানা ৮৫ রানের দুর্বার এক ক্রিকেটীয় ইনিংস। তবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ টেস্ট মেজাজে খেলে ৬৯ বলে দলীয় স্কোরে যোগ করেন ৩৯ রান। দলের পাঁচজন ব্যাটসম্যান রানের খাতাই খুলতে পারেননি। নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, হাসান মাহমুদ, মুস্তাফিজুর রহমান ও এবাদত হোসেন। অভিষিক্ত এবাদত অবশ্য অপরাজিত থেকে যান

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে দুটি করে উইকেট শিকার করেন ব্রাড ইভান্স ও লুক জংওয়ে। একটি করে উইকেট পান রিচার্ড এনগারাভা ও সিকান্দার রাজা।

;

ব্যাটিংয়ে টাইগাররা, শরিফুল-তাসকিনের বদলি মুস্তাফিজ-এবাদত



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট সিরিজ

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট সিরিজ

  • Font increase
  • Font Decrease

জিম্বাবুয়ে সফরে টস ভাগ্য কথাই বলল না বাংলাদেশের হয়ে। টি-টোয়েন্টির পর সব ওয়ানডেতেও টসে হেরেছে দেশের ছেলেরা। এ নিয়ে টানা ছয় ম্যাচেই টস হারল তামিম ইকবালরা।

প্রথম দুই ওয়ানডের মতো তৃতীয় ও শেষ ম্যাচেও টসে হেরেছে টাইগাররা। টস জিতে বোলিং বেছে নিয়েছে জিম্বাবুয়ে। তাই শুরুতে ব্যাট হাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের একাদশ থেকে ছিটকে গেছেন শরিফুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ। তাদের জায়গায় দলে ঢুকেছেন মুস্তাফিজুর রহমান ও এবাদত হোসেন। এ ম্যাচ দিয়েই এবাদতের ওয়ানডে অভিষেক হলো।

জিম্বাবুয়ের একাদশে রেগিস চাকাভা। তার বদলে গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়েছেন ক্লাইভ মাদানে। আজকের ম্যাচে আফ্রিকান দলটির নেতৃত্বে থাকছেন সিকান্দার রাজা।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-০ ব্যবধানে নিশ্চিত করে রেখেছে জিম্বাবুয়ে। আজ তারা জিতলেই ৩-০ তে হোয়াইটওয়াশ হবে অতিথি টাইগাররা। সিরিজ ট্রফি খুইয়ে বাংলাদেশের সামনে এখন কেবল সান্ত্বনার জয় ছিনিয়ে নেওয়ার সুযোগ।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), এনামুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, হাসান মাহমুদ, এবাদত হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: টি মারুমনি, টি কাইতানো, আই কাইয়া, ডব্লিউ মাধভেরে, সিকান্দার রাজা (অধিনায়ক), সি মাদান্দে (উইকেটরক্ষক), টি মুনিওঙ্গা, বি ইভান্স, এলএম জংওয়ে, ভিএম নিয়াউচি ও আর নাগারভা। 

;

সিরিজ খুইয়ে জরিমানা দিল তামিম বাহিনী



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
টাইগার ক্রিকেটাররা

টাইগার ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

জিম্বাবুয়ের কাছে ওয়ানডে সিরিজ হাতছাড়া করেছে বাংলাদেশ। এবং সেটা এক ম্যাচ হাতে রেখেই। সিরিজ ট্রফি খুইয়ে আরও একটি খারাপ খবর পেয়েছে টাইগাররা। আইসিসির দেয়া শাস্তির খড়গ চেপে বসেছে তামিম ইকবালদের কাঁধে।

হারারে স্পোর্টস ক্লাবে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নির্ধারিত সময়ে বোলিং শেষ করতে পারেনি টাইগার ক্রিকেটাররা। স্লো ওভার রেটের কারণে অতিথি খেলোয়াড়দের ম্যাচ ফির ৪০ শতাংশ জরিমানা করেছে ক্রিকেট দুনিয়ার সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

ইনিংসের শেষ দুই ওভার নির্ধারিত সময়ের পর করে তামিম ইকবালের দল। বোলিংয়ে বিলম্বের শাস্তি হিসেবে প্রতি ওভারের জন্য খেলোয়াড়দের ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ জরিমানা করেছে আইসিসি।

ক্যাপ্টেন তামিম স্লো ওভার রেটের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন। এ কারণে আনুষ্ঠানিক কোনো শুনানির প্রয়োজন হয়নি।

;