সিরিজ হারের জন্য দুর্ভাগ্যকে দায়ী করছেন বিজয়



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
এনামুল হক বিজয়

এনামুল হক বিজয়

  • Font increase
  • Font Decrease

শক্তি, সামর্থ্য, পরিসংখ্যান, র‍্যাঙ্কিং ও মাঠের লড়াই সবদিক থেকে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু তারপরও জিম্বাবুয়ের কাছে টি-টোয়েন্টির পর ওয়ানডে সিরিজও হাতছাড়া করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

ব্যাট-বল হাতে সমানে মান লড়াই করেও লাভ হয়নি। সঙ্গী হয়েছে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডেতে একটি করে সান্ত্বনার জয়। আফ্রিকান দলটির কাছে দুই সিরিজ হারকে ‘দুর্ভাগ্য’ হিসেবেই দেখছেন এনামুল হক বিজয়।

আজ শুক্রবার জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফিরেছেন টাইগাররা। শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গণমাধ্যমকে বিজয় বলেন, ‘দুই বছরে ধরে ওয়ানডে ক্রিকেটে ধারাবাহিকভাবে আমরা খুব ভালো খেলছি। এটা (জিম্বাবুয়েতে হার) দুর্ভাগ্যবশত হয়ে গেছে। বাংলাদেশ দল কিন্তু ওয়ানডেতে অনেক ভালো। আমরা বিশ্বাস করি- প্রক্রিয়া ঠিক রেখে সেরাটা দিয়ে খেললে যেকোনো দলের বিপক্ষে জেতা সম্ভব।’

জিম্বাবুয়ে সফরে নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিতে না পারার আক্ষেপও ঝরল বিজয়ের কণ্ঠে, ‘প্রথম ম্যাচ হারার পর অবশ্যই অবাক হয়েছি। জিম্বাবুয়ের মাটিতে যেমন পারফরম্যান্সের প্রত্যাশা ছিল সে অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারিনি। এটা অবশ্যই খারাপ লাগার বিষয় ছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে যখন দেখলাম একইভাবে ওরা এগোচ্ছে, আমরা নার্ভাস ছিলাম। এটা শুধুই এমন একটা সিরিজ যেখানে নিজেদের শতভাগ দিয়ে খেলতে পারিনি।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে টানা ১৯ ম্যাচ পর জিতেছে জিম্বাবুয়ে। ৯ বছর স্বাগতিকরা পেয়েছে সিরিজ জয়ের স্বাদ। দলের ঘাটতি সফরে পিছিয়ে দিয়েছে টাইগারদের। দলের ঘাটতির ব্যাপারটা অকপটে স্বীকার করে নিলেন বিজয়, ‘জিম্বাবুয়ের মাঠে তাদের বিপক্ষে জেতাটা আসলে সহজ ছিল না। এটা সত্যি ওরা ভালো ক্রিকেট খেলেছে। আমাদেরও ঘাটতি ছিল। দুটা মিলিয়েই আমরা হেরে গেছি। অনেকদিন পর যেহেতু দলে এসেছি, চেষ্টা করেছি নিজের শতভাগ দেওয়ার। যতটুকু পেরেছি চেষ্টা করেছি। ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতেও চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করব।'

মেয়েদের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নারী ক্রিকেটাররা

নারী ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। নাম্বার ওয়ান গ্রুপে বাঘিনীদের বাকি দুই প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কা।

গ্রুপ দুইয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ইংল্যান্ড, ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ড। 

১০ দলের এই টুর্নামেন্টের ম্যাচগুলো হবে কেপ টাউন, পার্ল ও গেবেখায়। দুই সেমি-ফাইনাল ও ফাইনাল হবে কেপ টাউনে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি পর্দা উঠবে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ খেলবে ১২ ফেব্রুয়ারি।

পাঁচ বারের শিরোপাজয়ী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিগার সুলতানারা মাঠে নামবে ১৪ ফেব্রুয়ারি। নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তারা ১৭ ফেব্রুয়ারি। গ্রুপ পর্বে তাদের শেষ লড়াই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে, ২১ ফেব্রুয়ারি।

;

কাতার বিশ্বকাপে খরচ হচ্ছে ২২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দরজায় কড়া নাড়ছে ফুটবল বিশ্বকাপ। প্রথমবারের মতো এবারের আসরের আয়োজক দেশ মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ধনী রাষ্ট্র কাতার। আর তাই নতুন সব স্টেডিয়ামের সঙ্গে জাকজমকপূর্ণ সব আয়োজনে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করছে মরুভূমির উত্তপ্ত এই দেশটি।

কাতার বলেছে, এবারের ফিফা বিশ্বকাপে তারা ২২০ বিলিয়ন ডলার খরচ করছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। আর যা কিনা বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল আয়োজন হতে চলছে। ২০১৮ সালে রাশিয়া যে পরিমাণ খরচ করেছে, কাতার বিশ্বকাপে তার ২০ গুণ বেশি ব্যয় হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৭টি বিশ্বকাপের একত্রিত খরচকেও হার মানিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আয়োজক দেশ কাতার।

অন্যদিকে রেকর্ড পরিমাণ এই ব্যয়ের পেছনে রয়েছে নানাবিধ কারণ। প্রথমত, বিশ্বকাপের জন্য অত্যাধুনিক নতুন ৮টি স্টেডিয়াম তৈরি করেছে কাতার, সেইসঙ্গে তৈরি করা হয়েছে অনুশীলনের মাঠও।

এছাড়া ফুটবলার ও দর্শকদের নানা সুবিধা দিতে বিভিন্ন হোটেল ও পার্ক বিনোদন কেন্দ্রসহ অনেক কিছুই নির্মাণ করেছে দেশটি।

প্রথমবারের মতো মধ্যপ্রাচ্যে বিশ্বকাপের আসর বসতে চলছে। নানান দেশ থেকে নানা দর্শক দেখতে আসবেন এই মহাযজ্ঞ আয়োজন, তাদের জন্য কাতার তৈরি করেছে উন্নতমানের হোটেল। এছাড়া তাদের স্টেডিয়ামে ফ্রি যাতায়াতের জন্য পরিবহন খাতেও প্রচুর অর্থ ব্যয় হয়েছে। বিনামূল্যে নামানো হয়েছে চার হাজার বাস।

উল্লেখ্য, এর আগে খরচের দিক থেকে সবচেয়ে ব্যয়বহুল আসর ছিলো ব্রাজিল বিশ্বকাপ। ২০১৪ সালের এই আসরের জন্য ব্রাজিল খরচ করে প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডলার।

;

পাকিস্তানে ধরাশায়ী দেশের মেয়েরা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নারী ক্রিকেটাররা

নারী ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

জয় দিয়েই এশিয়া কাপ শুরু করেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। উদ্বোধনী ম্যাচে থাইল্যান্ডের মেয়েদের উড়িয়ে দিয়েছিল নিগার সুলতানারা।

সঙ্গে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। ছুটে চলছিল জয়ের পথে। অবশেষে তাদের থামতে হলো। পাকিস্তানের মেয়েদের ৯ উইকেটে বিধ্বস্ত হলো স্বাগতিকরা।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে থাই কন্যাদের ৯ উইকেটে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল দেশের মেয়েরা। এবার সেই ফলটাই বুমেরাং হয়ে দেখা দিলো লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের সামনে। 

সিলেটে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৭০ রানেই গুটিয়ে যায় বাঘিনীদের ইনিংস।

জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১২.২ ওভারে মাত্র ১ উইকেটের বিনিময়ে ৭২ রান তুলে হেসে-খেলেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় পাকিস্তান।

;

সিলেটের হেড কোচ নাজমুল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সাবেক পেসার নাজমুল হোসেন

সাবেক পেসার নাজমুল হোসেন

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় ক্রিকেট লিগে সিলেট বিভাগের প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন নাজমুল হোসেন। ইনজুরির কারণে ক্রিকেট ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতে না পারায় কোচিং বেছে নিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক এ পেসার।  

বিভাগীয় দল ছাড়াও বর্তমানে বিসিবির বাংলা টাইগার্সের বোলিং কোচ হিসেবে করছেন নাজমুল।

নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে যারপরনাই রোমাঞ্চিত নাজমুল, ‘আলহামদুলিল্লাহ, অনেক বড় একটি দায়িত্ব পেয়েছি। দেখেন বর্তমান সময়ে টেস্ট ক্রিকেটে কিন্তু সিলেটের পেসাররাই লিড করছে। বেশ দাপটের সাথেই তারা ভালো করছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। আমি যেহেতু নতুন করে সিলেট বিভাগের দায়িত্বে এসেছি লক্ষ্য থাকবে, পেসারদের এ ধারা অব্যাহত রাখার। এর পাশাপাশি ভালো ইয়াং ৩ থেকে ৪ জন ব্যাটারকে ইস্টাবলিশ করা। যেহেতু অলক ভাই, রাজিন ভাই অবসর নেওয়ার কারণে ব্যাটিংয়ে একটা বড় গ্যাপ পড়ে গেছে।’

ভালো খেলায় মনোযোগ থাকলেও চ্যাম্পিয়নের স্বপ্ন দেখছেন না নাজমুল, ‘এবার সিলেট দলে ৩-৪ জন দারুণ ব্যাটার রয়েছে। বিশেষ করে আবু বক্কর, অমিত হাসান, জাকির হাসান এদের ভালো করার সম্ভাবনা অনেক বেশি। একটা জিনিস বলি, সব বিভাগের খেলোয়াড়দের তুলনায় সবথেকে তরুণ ক্রিকেটার এবার সিলেট বিভাগে। আমি সে কারণে চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিয়ে খুব একটা ভাবছি না, ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো করার পরিকল্পনায় এগিয়ে যেতে চাই।’

;