পাকিস্তানকে উড়িয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ অস্ট্রেলিয়ার

স্পোর্টস এডিটর, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ব্যাট হাতে দুরন্ত ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার

ব্যাট হাতে দুরন্ত ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তান যা করলো সেটাকে বলে ‘ক্লুলেস ব্যাটিং!’

২০ ওভার খেলে ৮ উইকেটে মাত্র ১০৬ রান। অস্ট্রেলিয়া মামুলি সেই টার্গেট টপকে গেল অনায়াস ভঙ্গিতে। ম্যাচ জিতল ১০ উইকেটে। তাও আবার ম্যাচের ৪৯ বল বাকি থাকতে। বিশাল এই জয়ের সঙ্গে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের ট্রফি জিতল অস্ট্রেলিয়া ২-০ ব্যবধানে। সিরিজের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে বাতিল হয়েছিল।

পার্থের শেষ ম্যাচে কোনো কিছুই পাকিস্তানের পক্ষে গেল না। ১০৬ রানের মধ্যে দলের মাত্র দুজন ডাবল ফিগারে পৌঁছালেন। ওপেনার ইমাম-উল-হক করলেন ১৪ রান। আর মিডলঅর্ডারে ইফতিখার আহমেদের ব্যাট থেকে এলো ৩৭ বলে ৪৫ রানের ইনিংস। দলের বাকি আট ব্যাটসম্যানের সবাই সিঙ্গেল ডিজিট নিয়ে ফিরলেন। সবচেয়ে অবাক হওয়ার ঘটনা ঘটল পাকিস্তান ইনিংসের শেষ দুই ওভারে। ১৯ নম্বর ওভারে পাকিস্তান করল মাত্র ১ রান। ২০তম ওভারেও তাই। টি-টোয়েন্টিতে শেষ দুই ওভারে তাই বলে ২ রান! হাতে উইকেট জমা থাকতেও? সবমিলিয়ে পাকিস্তান ইনিংসের ডট বলের সংখ্যা ৬১!

অস্ট্রেলিয়ার তিন পেসার মিচেল স্টার্ক, শন অ্যাবোট ও কেন রিচার্ডসনের বোলিংয়ের সামনে এক অর্থে খাবি খায় পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা। এই তিন পেসার সাত উইকেট ভাগাভাগি করে নেন। স্টার্ক ও অ্যাবোট পান দুটি করে উইকেট। কেন রিচার্ডসন ১৮ রানে শিকার করেন ৩ উইকেট।

জবাব দিতে নেমে মাত্র ১১.৫ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ জিতে নেয়। অধিনায়ক অ্যারোন ফিঞ্চ ৩৬ বলে অপরাজিত ৫২ রান করেন। ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে আসে ৩৫ বলে হার না মানা ৪৮ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান: ১০৬/৮, ২০ ওভার (ইফতিখার ৪৫, ইমাম-উল-হক ১৪; রিচার্ডসন ৩/১৮, অ্যাবোট ২/১৪, স্টার্ক ২/২৯ ও আগার ১/২৫)।

অস্ট্রেলিয়া: ১১১/০, ১১.১ ওভার (ফিঞ্চ ৫২* ও ওয়ার্নার ৪৮*)।

ম্যাচ সেরা: শন অ্যাবোট।

সিরিজ সেরা: স্টিভেন স্মিথ।

ম্যাচ ফল: অস্ট্রেলিয়া ১০ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ ফল: অস্ট্রেলিয়া ২-০ তে জয়ী।

আপনার মতামত লিখুন :