গোলাপি বলের উত্তেজনায় রোমাঞ্চিত বিরাট, তবে...

আপন তারিক, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, কলকাতা (ভারত) থেকে
গোলাপি বল হাতে ভারতীয় ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি, ছবি: সংগৃহীত

গোলাপি বল হাতে ভারতীয় ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কোথায় যেন আড়ালে চলে গেল ব্যাট-বলের উত্তেজনা! মাঠে কার কেমন সম্ভাবনা সেই আলোচনাটাও উধাও। সবকিছু ছাপিয়ে এখন ইস্যু একটাই-গোলাপি বল। কলকাতায় দর্শকদের আগ্রহটাও আকাশ ছুঁয়েছে। গত দু'দিন ধরেই দেখছি টিকিটের জন্য হাহাকার। একটা টেস্ট ম্যাচকে ঘিরে দর্শকদের এমন আগ্রহ মুগ্ধ করেছে বিরাট কোহলিকে।

ভারত-বাংলাদেশ ইডেন টেস্টের প্রথম চার দিনের টিকিট বিক্রি শেষ। খবরটায় বিস্মিত বিরাট। বৃহস্পতিবার ইডেনে অনুশীলন শুরুর আগেই জানাচ্ছিলেন, 'আমার কাছে তো বিস্ময়কর লাগছে। ভাবতেই পারছি না টেস্ট ম্যাচ নিয়ে সবাই এভাবে আগ্রহ দেখাচ্ছে। ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টিতে ভারতে এমনটা আগে দেখেছি। কিন্তু টেস্টে সাম্প্রতিককালে টিকিট নিয়ে এমন আগ্রহ দেখিনি। আমার তো মনে হচ্ছে ভারত-পাকিস্তানের উত্তেজনাকেও হারিয়ে দিয়েছে গোলাপি বলের টেস্ট।'

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দিন-রাতের টেস্টে গোলাপি বলে খেলতে নামছে ভারত। একই অভিজ্ঞতা সঙ্গী হবে বাংলাদেশেরও। শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় মাঠের লড়াইয়ে নামবে দুই দল।

তবে দর্শকদের ম্যাচটা নিয়ে আগ্রহ থাকলেও গোলাপি নয়, লাল বলের ঐতিহ্যবাহী টেস্ট ম্যাচটাকেই এগিয়ে রাখছেন বিরাট কোহলি। ভারত অধিনায়ক জানাচ্ছিলেন, 'দেখুন, গোলাপি বলে মেতে উঠে আমরা যেন লাল বলের ক্রিকেটকে ভুলে না যাই। সেটাই কিন্তু আসল ক্রিকেট। লাল বলে খেলতে আলাদা উত্তেজনা খুঁজে পাই আমি। গোলাপি বলকে কেউ যদি টেস্টের ভবিষ্যৎ বলে থাকে তবে সেটা মানি না আমি।'

ভারত অবশ্য এর আগেও গোলাপি বলে খেলার প্রস্তাব পেয়েছিল। কিন্তু নৈশলোকের টেস্টে রাজি ছিলেন না বিরাট কোহলি। বৃহস্পতিবার সেই প্রসঙ্গটাও ফিরে এসেছে। এবার সৌরভ গাঙ্গুলি ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সভাপতি হয়েই প্রস্তাব দিতেই রাজি হলেন বিরাট। কেন, সেটা ভারত অধিনায়ক ইডেনের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে বসে বলছিলেন, 'প্রায় ৭০ হাজার মানুষের সামনে খেলব। এখন দেশের মাঠে টেস্ট ক্রিকেটে এমনটা হয় কোথায়? ইডেনে টিকিটের জন্য হাহাকার দেখে বুঝতে পারছি গ্যালারির চেহারাটা কেমন হবে। ঐতিহাসিক ম্যাচ খেলতে নামছি আমরা।'

অবশ্য গোলাপি বলের টেস্টে সমস্যার মুখে পড়তে হতে পারে ক্রিকেটারদের। বিশেষ করে ফিল্ডিংয়ে। কোহলি জানাচ্ছিলেন, 'আমার মনে হয় ব্যাটিং নিয়ে সমস্যা হবে না। মানিয়ে নিতে পারব। অসুবিধা ফিল্ডিংয়ে। বুধবার বিকেলে স্লিপ ক্যাচ নেওয়ার সময় মনে হয়েছে- আমরা হকি বল ধরছি। লাল বা সাদা বলের ক্ষেত্রে যা হয় না। আরও বেশি সমস্যা উঁচু ক্যাচ ধরার সময়। এই বল বেশি গতিতে নিচে নেমে আসে তাই লাইন ধরা কঠিন। পিঙ্ক বলে খেলা আমাদের সবার কাছে আলাদা চ্যালেঞ্জ।'

আর সেই চ্যালেঞ্জটা হাসিমুখেই নিচ্ছেন বিরাট। টাইগারদের বিপক্ষে টেস্টের আগে অবশ্য গোলাপি বলে একটা অনুশীলন ম্যাচও খেলে নিলে ভালো হতো বলে মনে করেন ভারত অধিনায়ক। তবে এখন আর পেছন ফিরে তাকানোর সময় নেই। শুক্রবার শুরু নতুন এই চ্যালেঞ্জেও ধরে রাখতে চান ইন্দোরের সেই চমক! যেখানে তিন দিনেই টাইগারদের হারিয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেছে মেন ইন ব্লুজরা!

আপনার মতামত লিখুন :