মাহমুদউল্লাহও চোট নিয়ে মাঠের বাইরে!

স্পোর্টস এডিটর, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ, ছবি: সংগৃহীত

চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

১৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশের ইনিংসকে টেনে সামনের দিকে বাড়াচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সিরিজের প্রথম তিন ইনিংসে ব্যর্থ মাহমুদউল্লাহ দারুণভাবে লড়ছিলেন ইডেনের দ্বিতীয় ইনিংসে। মারার বল মারছিলেন। ছাড়ার বল ছাড়ছিলেন ঠিক কায়দায়। শেষ পর্যন্ত বলের দিকে নজর রেখে বল ছাড় ছিলেন। কিন্তু সেই তিনিও বেশি সময় ধরে ব্যাট করতে পারলেন না। না আউট হননি। কিন্তু মাঠ ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন। ৪১ বলে ৩৯ রান করার পর হঠাৎ পায়ের পেশিতে টান পড়ে তার। মাঠে ফিজিও আসেন। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ টান পড়া পেশি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতেও পারছিলেন না। বাধ্য হয়ে তাকে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে। দ্বিতীয় ইনিংসে তখন ১৯ ওভারের খেলা হয়েছে। বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৪ উইকেটে ৮২ রান। মুশফিক রহিমের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহ পঞ্চম উইকেট জুটিতে ততক্ষণে যোগ হয়েছে ৬৯ রান। দুই ব্যাটসম্যান শুরুর সঙ্কট কাটিয়ে উঠে বেশ সাহসী ভঙ্গিতে ব্যাট করে যান।

মাহমুদউল্লাহ প্রতিটি বলের ওপর শেষ পর্যন্ত নজর রেখে তারপর শট খেলছিলেন। নয়তো ডিফেন্স করছিলেন। ৩৯ রানের তার ইনিংসে বাউন্ডারির সংখ্যা ৭। বেশ আক্রমণাত্মক ব্যাটিংই করে যান তিনি। অপরপ্রান্তে মুশফিকুর রহিমও উইকেটে জমে যান। খেলছিলেন ৩২ রানে। মাহমুদউল্লাহ হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে মাঠ ছাড়লে মেহেদি হাসান মিরাজ ব্যাট করতে নামেন। এই জুটিতেই বাংলাদেশের ইনিংস তিন অঙ্কে পৌঁছায়।

ইডেনের গোলাপি বলের এই টেস্টে বাংলাদেশ দলের চোটে পড়া খেলোয়াড়ের সংখ্যা বাড়ছে। হেলমেটে বাউন্সারের চোট নিয়ে ইডেন টেস্টের প্রথম ইনিংসে লিটন দাস ও নাঈম হাসানের ম্যাচ শেষ। তাদের বদলি হিসেবে এই টেস্টে খেলছেন মেহেদি হাসান মিরাজ এবং তাইজুল ইসলাম। দ্বিতীয় ইনিংসে মোহাম্মদ মিঠুনকেও হেলমেটে ইশান্ত শর্মার বাউন্সারের চোট সহ্য করতে হয়েছে। এই ইনিংসে মুশফিক রহিমের হেলমেটেও বাউন্সারের আঘাত লাগে। তবে মুশফিক বিশ্রামে যাননি। দাঁত চেপে ঠিকই লড়াই চালিয়ে যান।

এই ম্যাচ তিন দিনে নিয়ে যেতে হলে দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে এমন লড়াইয়ের প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের।

আপনার মতামত লিখুন :