সুপার ওভার রোমাঞ্চে ইতিহাস ভারতের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট,বার্তা২৪.কম
জয়ের নায়ক রোহিত শর্মা

জয়ের নায়ক রোহিত শর্মা

  • Font increase
  • Font Decrease

রোমাঞ্চ ছড়ানো এক লড়াই। যেখানে ব্যাট-বলের উত্তেজনা থাকল শেষ অব্দি! শেষ ওভারের নাটকে হ্যামিল্টনে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি নির্ধারিত ২০ ওভারে টাই! ভারতের ১৭৯ রানের জবাবে ৬ উইকেটে ১৭৯ তুলে নিউজিল্যান্ড। খেলা গড়ায় সুপার ওভারে!

জিততে শেষ ওভারে কিউইদের দরকার ৯ রান। মনে হচ্ছিল সহজেই বুঝি জিততে যাচ্ছে স্বাগতিকরা। কিন্তু কে জানতো মোহাম্মদ শামির ওভারে এমন নাটক হবে?

শেষ চার বলে কিউইদের দরকার মাত্র মাত্র দুই রান। ক্রিজে ৯৫ রান নিয়ে অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু তৃতীয় বলেই ফেরেন তিনি (৪৮ বলে ৯৫। পরের বলে রান দেননি শামি। পঞ্চম বলে বাই। স্কোর সমান। শেষ বলে বোল্ড রস টেলর (১০ বলে ১৭)। ম্যাচ টাই!

খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। ভারতের হয়ে বল হাতে নেন জাসপ্রীত বুমরাহ। তার ছয় বলে কেন উইলিয়ামসন ও মার্টিন গাপটিল নেন ১৭। সিরিজ টিম ইন্ডিয়ার চাই ১৮। তারপরই শুরু হয় রোহিত শর্মার ম্যাজিক। যদিও প্রথম দু’বলে নেন তিন রান। তৃতীয় বলে লোকেশ রাহুল হাঁকালেন চার। পরের বলে ১ রান।

টিম সাউদির ওভারের শেষ দুই বলে রোহিতকে করতে হবে ১০ রান। কঠিন চ্যালেঞ্জ! এ অবস্থায় পঞ্চম বলে বিশাল ছক্কা! পরের বলটিও উড়িয়ে পাঠালেন সীমানার বাইরে! ব্যস, সুপার ওভার শেষে জয়ের আনন্দে মেতে উঠে ভারত!

এই জয়ে রীতিমতো ইতিহাস গড়ল ভারতীয় দল। এবারই প্রথম নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল ম্যান ইন ব্লুজরা। ৫ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া।

সিরিজে উত্তেজনা বাঁচিয়ে রাখতে জয় জরুরী ছিল নিউজিল্যান্ডের। টস ভাগ্যটাও সঙ্গে ছিল তাদের। প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু সিদ্ধান্তটা যৌক্তিক হতে দেননি লোকেশ রাহুল ও রোহিত শর্মা।

এরমধ্যে ৪০ বলে ৬৫ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন রোহিত। এই ইনিংস খেলার পথে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওপেনার হিসেবে দশ হাজার রানেরও মালিক হলেন তিনি। রাহুল তুলেন ২৭। এরপর বিরাট কোহলির ব্যাটে ৩৮। তিনিও গড়েন অনন্য কীর্তি। সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে টপকে হ্যামিল্টনে বুধবার নতুন কীর্তি গড়লেন টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক। ভারতীয় অধিনায়কদের মধ্যে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রানের মালিক বনে যান কোহলি।

চার নম্বরে নেমে ৩৮ রান তুলেন ভারত অধিনায়ক। অধিনায়ক হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে তার অর্জন ১১২৬ রান। অধিনায়ক হিসেবে ধোনির সংগ্রহ ১১১২। সব মিলিয়ে ধোনি অধিনায়ক হিসেবে খেলেন ৭২ ম্যাচ। আর কোহলি মাত্র ৩৭ ম্যাচেই পেছনে ফেললেন তাকে।

জবাবে নেমে শুরুটা ভালই ছিল নিউজিল্যান্ডের। মার্টিন গাপটিল ও কলিন মুনরোর ওপেনিং জুটি থেকে আসে ৪৭। তারপর দারুণ লড়লেন কেন উইলিয়ামসন। তার ব্যাট থেকে আসে ৪৮ বলে ৯৫। কিন্তু দলকে জেতাতে পারলেন না কিউই ক্যাপ্টেন!

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ভারত: ২০ ওভারে ১৭৯/৫ (রোহিত ৬৫, রাহুল ২৭, দুবে ৩, কোহলি ৩৮, শ্রেয়াস ১৭, পান্ডে ১৪*, জাদেজা ১০*; বেনেট ৩/৫৪, স্যান্টনার ১/৩৭, ডি গ্র্যান্ডহোম ১/১৩)।
নিউজিল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৭৯/৬ (গাপটিল ৩১, মানরো ১৪, উইলিয়ামসন ৯৫, স্যান্টনার ৯, ডি গ্র্যান্ডহোম ৫, টেলর ১৭, সাইফার্ট ০*; শার্দুল ২/২১, শামি ২/৩২, চেহেল ১/৩৬, জাদেজা ২/১৮)।
ফল: ম্যাচ টাই (সুপার ওভারে ভারত জয়ী)
সিরিজ: ৫ ম্যাচ সিরিজে ভারত ৩-০তে এগিয়ে
ম্যাচসেরা: রোহিত শর্মা

আপনার মতামত লিখুন :