করোনা মহামারীতে ম্যানইউ’র ক্ষতি ২৮ মিলিয়ন পাউন্ড এবং...

স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
বেড়েই চলেছে ম্যানইউ’র আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ

বেড়েই চলেছে ম্যানইউ’র আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ

  • Font increase
  • Font Decrease

লাভের ঘর ফাঁকা। ক্ষতির তালিকা ক্রমশ দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। করোনাভাইরাস মহামারীতে বিশ্বজুড়ে আর্থিক ব্যবস্থায় ক্ষতির কবলে পড়েছে বিশ্বের বিখ্যাত ধনী ফুটবল ক্লাবগুলোও। ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তাদের বছরের প্রথম তৃতীয়াংশের আর্থিক হিসাবে জানিয়েছে- এই সময়টায় ক্লাবটির ক্ষতি হয়েছে ২৮ মিলিয়ন পাউন্ড। এবং সার্বিক পরিস্থিতি জানাচ্ছে এই ক্ষতির পরিমাণ আরো বাড়বে।

ম্যানইউ’র প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) ক্লিফ ব্যাটি বলেন- ‘এই ক্ষতির মধ্যে শুধু টিভি সম্প্রচার বাবদের পরিমাণ ২০ মিলিয়ন পাউন্ড। মৌসুমের বাকি ম্যাচগুলো পুরো হলেও টিভি সম্প্রচার কোম্পানিকে তাদের এই পরিমাণ প্রদান করতে হবে। মার্চের শেষ তিন সপ্তাহে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের তিনটি ম্যাচ স্থগিত করা হয়। সেই তিন ম্যাচ যথাসময়ে না হওয়ায় ক্লাবটির ক্ষতি হয়েছে আরো অতিরিক্ত ৮ মিলিয়ন পাউন্ড! সব মিলিয়ে করোনাভাইরাস মহামারীতে ম্যানইউ’র ১১ টি ম্যাচ স্থগিত হয়েছে। তাতে সার্বিক ক্ষতির পরিমাণ এসে ঠেকেছে ২৮ মিলিয়ন পাউন্ডে। হাতে থাকা হিসেব জানাচ্ছে এই ক্ষতির পরিমাণ আরো বাড়বে।’

মহামারীর কারণে খেলার তারিখ এবং সময়ের হেরফেরের কারণে এখন প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের টিভি সম্প্রচারের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানের কাছে ম্যানইউ’কে ২০ মিলিয়ন পাউন্ড ফিরিয়ে দিতে হবে। যথাসময়ে খেলা সম্প্রচার না হওয়ায় ম্যানইউ’কে এই পরিমাণ ক্ষতি গুনতে হচ্ছে।

ব্রিটিশ সরকার এখন প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ শুরুর পরিকল্পনা নিচ্ছে। তবে মৌসুমের সামনের ম্যাচগুলো যদিও বা হয় তবে সেটা হবে দর্শক শূন্য গ্যালারিতে। আর ফাঁকা গ্যালারিতে খেলা মানেই আর্থিক ক্ষতির পরিমাণও আরো বৃদ্ধি পাওয়া।

বছরের প্রথম তৃতীয়াংশে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের রাজস্ব আয়ের পরিমাণ কমেছে ১২৭.৭ মিলিয়ন পাউন্ড। শতকরার হিসাবে যার পরিমাণ ১৮.৭ ভাগ। সেই সঙ্গে ক্লাবটির আর্থিক দেনার পরিমাণও বেড়েছে বিপুল পরিমাণ। আগে দেনা ছিল ১২৪.৪ মিলিয়ন পাউন্ড এখন তার পরিমাণ ৪২৯.১ মিলিয়ন পাউন্ড।

বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবটি এখন মাঠের বাইরের এই আর্থিক লড়াইয়ে বড় পরীক্ষার সামনে। ম্যানইউ’র সিএফও ক্লিফ ব্যাটি অবশ্য বেশ আশাবাদী- ক্লাবটি এই সঙ্কট কাটিয়ে উঠবে। তিনি বলছিলেন- ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড একটি শক্ত ভিত্তির ওপর তৈরি হয়েছে। ক্লাবটি ১৪২ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো এমন অভূতপূর্ব এক কঠিন পরীক্ষার মধ্যে পড়েছে। আমরা আশা করছি কাজ শুরু হলে আমরা দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা সফল করে এই সঙ্কটও কাটিয়ে উঠতে পারব।’

আপনার মতামত লিখুন :