‘একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা সম্ভব নয়’

মাওলানা আশরাফ আলী, ছবি: বার্তা২৪.কম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

কোনোভাবেই একসঙ্গে তাবলিগ জামাতের বার্ষিক সম্মেলন বিশ্ব ইজতেমা করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দিল্লি নিজামুদ্দিনের মুরুব্বি মাওলানা সাদের অনুসারীরা।

সোমবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের নিজামুদ্দিন পন্থীদের এক বৈঠক শেষে নিজামুদ্দিন মারকাজের অনুসারী মাওলানা আশরাফ আলী এ কথা জানান।

তিনি বলেন, আজকের বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। মন্ত্রীরা বলেছেন আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করব, একসঙ্গে যাতে বিশ্ব ইজতেমা করা যায়। আমরা বলেছি, আপনারা একসঙ্গে ইজতেমা করবেন, কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির কেন্দ্র দিল্লিতে। সেই দিল্লিতে ডিভিশন হয়েছে। সেখান থেকে কিছু ছোট ছোট গ্রুপ হয়েছে। কেন্দ্রে সমস্যা না মিটিয়ে সেটা এখানে মেটানো সম্ভব নয়। সমস্যা যেখানে সেখানে মিটাতে হয়। আমরা বলেছি, একসঙ্গে ইজতেমা করতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু বাইরের যারা আসবেন তাদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে হবে। কিছুদিন আগে মারামারিতে আমাদের দু’জন সাথী শহীদ হয়েছেন।

তিনি দাবি করেন, এখন একসঙ্গে ইজতেমা করার বিষয়ে সিদ্ধান্তে আসার আর কিছু নেই। আলোচনা করে যে যার মেহমানদের নিয়ে ইজতেমা করবে, সেটাই যুক্তিযুক্ত। জোর করে দুই পক্ষকে একসঙ্গে ইজতেমা করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে সেটা হবে জনগণের জন্য ক্ষতিকর। দুই পক্ষই যেহেতু ইজতেমা করবে সুতরাং যে যে নিজ নিজ জায়গা এবং নিজ নিজ সময় আসুক, সেটাই হবে নিরাপদ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/21/1548076917767.jpg

আশরাফ আলী বলেন, আমাদের তারিখ মতো আমরা আমাদের ইজতেমা করব, তারা তাদের তারিখ মতো করল। সেটা ১৫ দিন পর হতে পারে। এ বিষয়ে আমরা প্রস্তাবনা দিয়েছি । সরকার বারবার একসঙ্গে বসার জন্য বলছে। দুই মাস আগে যেখানে আমাদের দু’জন মানুষ মারা গেল প্রায় দুইশত আহত হলো, তাদের লোকজনও আহত হলো- সেখানে এতো মানুষের একসঙ্গে জমায়েত করাটা বাস্তবসম্মত কিনা সেটা বুঝতে হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশীয় মেহমান এবং বিদেশি মেহমানদের নিরাপত্তা দিতে সক্ষম হলে আপনারা একসঙ্গে করুন। তবে একসঙ্গে করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। বর্তমান প্রেক্ষাপটে সম্ভব নয়। একসঙ্গে করতে বলার কথার ভেতরে রাজনীতি আছে।

মাওলানা সাদ বাংলাদেশে আসলে এ ধরনের সংঘাত আবারও তৈরি হতে পারে এমন শঙ্কার বিষয়ে তিনি বলেন, মাওলানা সাদ সারাবিশ্বের আমির। আর আলাদা ইজতেমা হলে যার যার মেহমান তাদের মতো করে আসবেন। তখন আর ভায়োলেন্স হবে না।

ইসলাম এর আরও খবর