‘টঙ্গির ময়দানে বিশ্ব ইজতেমা হতেই হবে’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ছবি: বার্তা২৪.কম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

টঙ্গির ময়দানে বিশ্ব ইজতেমা হতেই হবে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ। তিনি বলেছেন, আমরা পরশু (বুধবার) সকালে উভয়পক্ষকে একত্রে আনবো। আমাদের চাপিয়ে দেওয়ার মতো একটি কথা আছে, তাহলো টঙ্গির ময়দানে বিশ্ব ইজতেমা হতে হবে। তারা সবাই মিলে একসঙ্গে করবেন এটা আমাদের সরকারের পক্ষ থেকে দাবি থাকবে। ওনারা যদি একমত হতে ব্যর্থ হন, পরে সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সোমবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের নিজামুদ্দিন পন্থীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজকের বৈঠকে তারা বিভিন্ন কথা বললেন। বুঝলাম, কতগুলো তাল গাছ আছে; তাল গাছগুলো আমরা চিহ্নিত করার চেষ্টা করছি। কোনো তাল গাছ থাকবে না, সেভাবেই আমরা সমস্যা নিরসনের চেষ্টা করছি। আমাদের উদ্দেশ্য হলো, যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত করতে হবে। টঙ্গির ইজতেমা সারাবিশ্বে অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য। বাংলাদেশে কি কি গুন আছে, তার মধ্যে একটি মহৎ গুণ বিশ্ব ইজতেমা। প্রধানমন্ত্রীর কথা হলো- কে কি করল না করল সেটি আমাদের বিষয় নয়, টঙ্গিতে এতোদিন যাবত ইজতেমা হয়ে আসছে। ইজতেমা হচ্ছে না বা স্থগিত হয়েছে, এ ধরনের কথা কাউকে বলতে দেবো না। গত বছরও ভাগাভাগি হচ্ছিল, গতবার আমরা একত্রিত করতে পেরেছি। এবার আমরা সেই প্রক্রিয়া চালু রেখেছি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/21/1548080645294.jpg

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সারাদেশের মানুষ বিশ্ব ইজতেমার জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। নির্বাচনের জন্য আমরা ইজতেমার সময় ‘রিপ্লেস’করেছিলাম। তাবলিগ জামাত দুই ধারায় বিভক্ত আছেন সেটাও সবাই জানেন। আমরা শেষ চেষ্টা করছি তাদের একত্রিত করে সুন্দরভাবে বাংলাদেশে ইজতেমা যেন চালু থাকে এবং আগামীতেও একত্রিতভাবে করতে পারি। আমরা আগামী পরশুদিন আবার বসবো সকাল সাড়ে দশটায়। এক পক্ষের লোক আজ আসেনি, তারা সময় চেয়েছে। তারা বলছে, তারা সময়মতো নোটিশ পায়নি তাই তারা আসতে পারছে না।

কোনো পক্ষের ওপর কোনো সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া হবে না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা কোনো সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিচ্ছি না। তারা তাদের মতো সিদ্ধান্ত নেবেন। তারা একসঙ্গে করবে, না কিভাবে করবেন, কবে করবেন সে সিদ্ধান্ত তারাই নেবেন। আমরা সেই অপেক্ষায় রয়েছি। আগামী পরশুদিন আশা করি সিদ্ধান্তে আসতে পারবেন। তারা যে সিদ্ধান্ত নেবেন সেটাই আমরা ইনপ্লিমেন্ট করব।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে সাদপন্থীদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন- শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, কাকরাইল শুরার সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ওয়াসিফুল ইসলাম ও কাকরাইলের মুকিম মাওলানা আশরাফ আলী।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ উপস্থিত, ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন।

তবে তাবলিগ ইস্যুতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত আজকের বৈঠকে আলেমরা অংশগ্রহণ করেননি। উলামায়ে কেরাম কেন অংশগ্রহণ করেননি সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ইসলাম এর আরও খবর