Alexa

চাঁদ দেখা যায়নি, বৃহস্পতিবার ঈদ

চাঁদ দেখা যায়নি, বৃহস্পতিবার ঈদ

চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে বক্তব্য দেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ / ছবি: বার্তা২৪

দেশের আকাশে কোথাও পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তাই আগামী বৃহস্পতিবার (৬ জুন) সারাদেশে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ইসলামিক ফাউন্ডেশনে চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে ৬৪ জেলার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের তথ্যের পাশাপাশি, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ও আবহাওয়া অফিসের তথ্য যাচাই-বাছাই করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় এবার রমজান মাস ৩০ দিনে শেষ হবে।

এদিকে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে মঙ্গলবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে।

আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী রমজানের পরবর্তী মাস শাওয়াল। এক মাসের সিয়াম সাধনার পর শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে পরদিন ঈদুল ফিতর উদযাপন করেন মুসলমানরা।

ইতোমধ্যেই দেশজুড়ে শেষ হয়েছে ঈদ উৎসবের সব প্রস্তুতি। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আলাদা বাণীতে এ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তারা।

ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায়। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাতের প্রস্তুতি শেষ করেছে। ডিএমপি জানিয়েছে, জাতীয় ঈদগাহে আসা ব্যক্তিরা জায়নামাজ ছাড়া আর কিছু আনতে পারবেন না। তবে যদি বৃষ্টি হয়, সেক্ষেত্রে জায়নামাজ ও ছাতা শিথিলযোগ্য।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ঈদের ৫টি জামাত হবে। এর মধ্যে প্রথম জামাত হবে সকাল ৭টায়। এছাড়া সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে অপর ৪ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতি বছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের বৃহত্তম ঈদ জামাতের সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। এছাড়া দেশের সব নগর-মহানগরে ঈদ জামাত অনুষ্ঠানে সব ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার থেকে ৩ দিনের সরকারি ছুটি শুরু হয়েছে। ঈদের দিন সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। কারাগার, শিশুসদন, হাসপাতাল, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, ভবঘুরে কেন্দ্র ও প্রবীণ নিবাসে ভালো খাবার বিতরণ করা হবে। ঈদ উপলক্ষে রাজধানীর প্রধান সড়ক ও সড়ক দ্বীপ জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ‘ঈদ মোবারক’ লেখা ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সাজানো হয়েছে এবং দেশের গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনে আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বেসরকারি রেডিও স্টেশন ও টেলিভিশন চ্যানেলগুলো ঈদ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা এ উপলক্ষে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসেও যথাযথ মর্যাদায় ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

আপনার মতামত লিখুন :