Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

নাদালের পতনের দিনে ফাইনালে জোকোভিচ

নাদালের পতনের দিনে ফাইনালে জোকোভিচ
ক্লে কোর্ট থেকে হতাশা নিয়ে ফিরলেন নাদাল
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ক্লে কোর্টের রাজা তিনি! রেকর্ড ১১বার জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ওপেনের এককের শিরোপা। মাদ্রিদ ওপেনেও দাপটে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু ষষ্ঠ শিরোপার জয়ের মিশন সফল হলো না রাফায়েল নাদালের। স্টেফানোস সিটসিপাস কাছে হেরে সেমি-ফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছেন তিনি।

তবে ফাইনালের টিকিট পেয়ে গেছেন আরেক ফেভারিট নোভাক জোকোভিচ। অস্ট্রিয়ার ডমেনিক থিয়েমকে হারান তিনি। ফাইনালে সিটসিপাসের সঙ্গে লড়বেন এই সার্বিয়ান টেনিস তারকা। অথচ নাদাল-জোকোভিচ ফাইনালের আশায় ছিলেন ভক্তরা!

সেমি-ফাইনাল লড়াইয়ে শনিবার থিয়েমকে সরাসরি সেটে হারান জোকোভিচ। ৭-৬ (৭-২), ৭-৬ (৭-৪) গেমে জেতেন তিনি। কিন্তু হিসাবের ছক উল্টে দেন স্টেফানোস সিটসিপাস। তিনি জেতেন ৬-৪, ২-৬, ৬-৩ গেমে। দ্বিতীয় সেট জিতে লড়াইয়ে ফিরলেও অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি। হতাশা নিয়েই কোর্ট ছাড়তে হয় স্প্যানিয়ার্ডের।

জয়ের পর বিস্ময়ের ঘোলে ছিলেন ২০ বছর গ্রিক তারকা সিটসিপাস। বলছিলেন, ‘অবিশ্বাস্য লাগছে আমার। নাদালের বিপক্ষে এভাবে খেলতে পারাটা সহজ নয়। সবকিছু এখনো স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে।’

হতাশা স্পর্শ করলেও হার মেনে নিয়ে সামনে চোখ রাখছেন নাদাল। ৩২ বছর বয়সী এই মহা তারকা বলছিলেন, ‘দেখুন, টেনিস এমনই। এখানে হার-জিত থাকবেই। বেশ কয়েক বছর এই ক্লে কোর্টে রাজত্ব করেছি আমি। এবারও লড়েছিলাম। কিন্তু দিনটা আমার ছিল না। সত্যি বলতে কী হারটাকে স্বাভাবিকভাবে নিতে শিখতে হবে। আমি সব ভুলে সামনে চোখ রাখতে চাই।’

আপনার মতামত লিখুন :

চাকরি বাঁচাতে পারলেন না হাথুরুসিংহে!

চাকরি বাঁচাতে পারলেন না হাথুরুসিংহে!
লঙ্কান কোচের চাকরি হারালেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে

বলা হচ্ছিল-বাংলাদেশের বিপক্ষে হোম সিরিজই কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শেষ অ্যাসাইনমেন্ট। এরপরই শ্রীলঙ্কা দলের কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়াতে হবে তাকে। গুঞ্জনটা এবার সত্যি হল।

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের জন্য কোচ হাথুরুসিংহেকে বরখাস্তের আদেশ দিয়েছেন শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া মন্ত্রী। শুক্রবার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) কর্মকর্তারা খবর নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষে শুধু প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেই নন, সঙ্গে সহকারী কোচরাও চাকরি হারাবেন। এসএলসির বিভিন্ন সূত্র এমনটিই জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসএলসির এক কর্মকর্তা জানান, ক্রীড়া মন্ত্রী হারিন ফার্নান্ডো সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ শেষে কোচদের চলে যেতে হবে। ফার্নান্ডো আসলে বিশ্বকাপের আগেই পুরো কোচিং স্টাফ পাল্টে ফেলতে চেয়ে ছিলেন।

চাপে থাকা কোচ হাথুরসিংহে বিশ্বকাপ শেষে কলম্বোতে ফিরে সাংবাদিকদের গত সপ্তাহে জোর দিয়েই জানিয়ে ছিলেন, চুক্তির মেয়াদ পূর্ণ করে তবেই চাকরি ছাড়বেন তিনি, ‘আমার চুক্তির মেয়াদ এখনো ১৬ মাস বাকি। প্রত্যাশা করছি, চুক্তি শেষ না হওয়া পর্যন্ত থেকে যাব।’

বাংলাদেশের কোচ হিসেবে সাফল্যের সঙ্গে তিন বছর কাটানোর পর দেশে ফেরেন হাথুরুসিংহে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে তার হাতে দলের দায়িত্ব দিয়ে সমস্যায় পড়ে যায় এসএলসি। দেশ ও দেশের বাইরে ভারতের কাছে বাজে ভাবে টেস্টে হারে তারা। খারাপ খেলতে থাকে একদিনের ক্রিকেটেও। হাথুরুসিংহের অধীনে তাদের উল্লেখযোগ্য টেস্ট জয় বলতে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। আর ৯ ম্যাচে মাত্র তিন জয়ে ষষ্ঠ স্থানে থেকে বিশ্বকাপ মিশন শেষ করে শ্রীলঙ্কা।

মেয়াদ শেষে ফিল্ডিং কোচ স্টিভ রিক্সন, ব্যাটিং কোচ জন লুইস, ফাস্ট বোলিং কোচ রামেশ রত্ননায়েকের চুক্তিও নবায়ন করবে না বোর্ড।

শনিবার শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ২১ এপ্রিল আত্মঘাতি বোমা হামলায় ২৫৮ নিহত হওয়ার পর প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দল হিসেবে দ্বীপ রাষ্ট্র সফরে যাচ্ছে টাইগাররা। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ২৬ জুলাই মাঠে গড়াবে সিরিজ। শেষ হবে ৩১ জুলাই।

আইসিসি হল অব ফেমে শচীন

আইসিসি হল অব ফেমে শচীন
আইসিসি হল ফেমে অভিষিক্ত শচীন টেন্ডুলকার, ছবি: সংগৃহীত

অনন্য এক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের মালিক শচীন টেন্ডুলকার। বর্ণাঢ্য সেই ক্যারিয়ারে এ শত সেঞ্চুরির মালিক যে কত শত রেকর্ড গড়েছেন, ভেঙেছেন তার কোনো ইয়ত্তা নেই। বিশ্বকাপসহ জিতেছেন ভূরি ভূরি শিরোপা। সুবাদে দেশ ও দেশের বাইরে পেয়েছেন অঢেল সম্মান আর পুরস্কার।

কিংবদন্তি ক্রিকেট সম্রাট শচীনের মুকুটে এবার যুক্ত হল আরও একটি পালক। অভিষিক্ত হলেন ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) হল অব ফেমে। ক্রিকেটে অসামান্য অবদান রাখার পুরস্কার হিসেবে এ সম্মাননা পেলেন মাস্টার ব্লাস্টার।

লিটল মাস্টারের সঙ্গে আইসিসি হল অব ফেমে ভূষিত হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ফাস্ট বোলার অ্যালান ডোনাল্ড ও দুই বারের বিশ্বকাপ জয়ী অস্ট্রেলিয়ান নারী ক্রিকেটার ক্যাথরিন ফিৎসপ্যাট্রিক।

লন্ডনে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শচীনের হাতে এ সম্মাননা তুলে দেয় ক্রিকেট দুনিয়ার অভিভাবক সংস্থা আইসিসি। অনুষ্ঠানে পরিবার ও কোচের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ভারতের এ ক্রিকেট ঈশ্বর, ‘দীর্ঘ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে আমার পাশে যারা ছিলেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আমার মা-বাবা, ভাই অজিত ও স্ত্রী অঞ্জলি আমার শক্তির ভিত্তি। আমি সৌভাগ্যবান যে বাল্যকালে গাইড ও মেন্টর হিসেবে রামাকান্ত আচরেকারের মতো কোচকে পেয়েছিলাম।’

ভারতের ষষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট (১৫,৯২১) ও ওয়ানডে (১৮,৪২৬) ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের রেকর্ডধারী শচীন এ সম্মান পেলেন। যে সম্মাননাটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবশেষ ম্যাচ খেলার কম করে হলেও পাঁচ বছর পর দিয়ে থাকে আইসিসি।

বিশ্বের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার ৫২ বছরের অ্যালান ডোনাল্ড ২০০৩ সালে অবসর নেওয়ার আগে ৩৩০ টেস্ট ও ২৭২ ওয়ানডে উইকেট নেন।

নারী ক্রিকেটে সর্বকালের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ফিৎসপ্যাট্রিক। ওয়ানডেতে তার উইকেট ১৮০। আর টেস্টে ৬০টি। কোচ হিসেবে তিনি অস্ট্রেলিয়ান নারী ক্রিকেট দলকে উপহার দেন তিনটি বিশ্বকাপ ট্রফি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র