Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

রজার্স কাপ

চোটের কাছে ট্রফি খোয়ালেন সেরেনা

চোটের কাছে ট্রফি খোয়ালেন সেরেনা
ইনজুরির কাছে হেরে অশ্রুসিক্ত সেরেনার পাশে প্রতিপক্ষ অ্যান্দ্রেস্কু
স্পোর্টস ডেস্ক
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

শিরোপা জয়ের স্বপ্ন নিয়েই কোর্টে নেমে ছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। তলোয়ার স্বরূপ র‌্যাকেট থাকলেও তার সঙ্গে ছিল না ভাগ্য। তাই তো ফাইনালে এসে শিরোপা স্বপ্ন ভাঙল তার। তবে প্রতিপক্ষ নয়, যুক্তরাষ্ট্রের এ টেনিস কিংবদন্তি হার মানলেন ইনজুরির কাছে।

রজার্স কাপের মেয়েদের এককের ফাইনাল খেলতে কোর্টে নেমে ছিলেন সেরেনা। তবে খুব বেশি দূর আগাতে পারেননি। পিঠের চোট পেয়ে বসে যুক্তরাষ্ট্রের উইলিয়ামস পরিবারের এ ছোট মেয়েকে। চোটের সঙ্গে পেরে না উঠে শেষ পর্যন্ত রিটায়ার্ড আউট হয়ে কোর্ট ছাড়েন সেরেনা।

প্রথম সেটও শেষ করতে পারেননি সেরেনা। ৩-১ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েই ৩৭ বছরের এ তারকা চোখের জলে বিদায় নেন কোর্ট থেকে। আর এক রকম না খেলেই শিরোপা পেয়ে যান ১৯ বছরের কানাডিয়ান খেলোয়াড় বিয়ানকা অ্যান্দ্রেস্কু। তবে সেরেনাকে সান্ত্বনা দিতে ভুলেননি তিনি।

নিজের হতাশা ব্যক্ত করে ২৩ গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক এ মার্কিন মেগাস্টার বলেন, ‘আমি দুঃখিত, আজ খেলতে পারলাম না। চেষ্টা করেছি। কঠিন একটা বছর যাচ্ছে। কিন্তু তারপরও আমরা সামনে এগিয়ে যাব।’

চলতি বছরই ইন্ডিয়ান ওয়েলসে ক্যারিয়ারের প্রথম ডব্লিউটিএ শিরোপা জেতেন অ্যান্দ্রেস্কু। ১৯৬৯ সালের পর এই প্রথম এ আসরের মেয়েদের এককে শিরোপা জিতল কোনো কানাডিয়ান নাগরিক।

অ্যান্দ্রেস্কু বলেন, ‘সেরেনা, তুমি আমাকে কাঁদিয়েছো। আমি জানি টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেলে কেমন লাগে। এটা সহজ ব্যাপার নয়।’

রজার্স কাপের একক ফাইনাল থেকে সেরেনা এর আগে অবসর নিয়ে ছিলেন ২০০০ সালে। মজার ব্যাপার হল, ঠিক এ বছরই পৃথিবীর আলো দেখেন অ্যান্দ্রেস্কু।

২০১৮ সালে কোর্টে ফেরার পর প্রথম শিরোপা জয়ের চেষ্টা করে যাচ্ছেন কন্যার মা সেরেনা।

২৬ আগস্ট থেকে শুরু হতে যাওয়া ইউএস ওপেনেই ক্যারিয়ারের ২৪তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের স্বপ্ন দেখছেন তিনি।

গত মাসে উইম্বলডনের ফাইনালে উঠেও সিমোনা হ্যালেপের কাছে হেরে যান সেরেনা। হাঁটুর ইনজুরিও ভুগিয়েছে তাকে।

আপনার মতামত লিখুন :

হেডিংলিতে জেতার লড়াই জমাট

হেডিংলিতে জেতার লড়াই জমাট
দ্বিতীয় ইংনিসে জো রুট ৭৫ রানের অনবদ্য এক ইংনিস খেলেন, ছবি: সংগৃহীত

খেলার আরও বাকি দুদিন। ম্যাচ জিততে ইংল্যান্ডের চাই আর মাত্র ২০৩ রান। হাতে উইকেট অক্ষত ৭। অপরাজিত ৭৫ রান নিয়ে খেলছেন অধিনায়ক জো রুট। সময় এবং অক্ষত উইকেটের হিসেব জানাচ্ছে হেডিংলি টেস্টে ইংল্যান্ড এখন ফেভারিট। তবে টেস্ট ম্যাচের চেহারা বদলে যায় যে কোনো এক স্পেলেই। তেমন একটা স্পেলের অপেক্ষায় এখন অস্ট্রেলিয়া। আর তাই বলা যায় এখনো সমতায় ঝুলছে হেডিংলি টেস্ট!

দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া খুব বেশি এগুতো না পারলেও ম্যাচে লিড যে পেয়ে গেলো তার বেশ বড়ই-৩৫৮ রান! ম্যাচ জিততে হলে হেডিংলির শেষ ইনিংসে ইংল্যান্ডকে তুলতে হবে ৩৫৯ রান। হাতে সময় আছে প্রচুর। এই ম্যাচ যে পঞ্চমদিনে গড়াচ্ছে না- সেটা নিশ্চিত। তবে চতুর্থদিন শেষে কে হাসবে শেষ হাসি- সেই অনিশ্চয়তা কিন্তু রয়েই গেছে!

প্রথম ইনিংসে মাত্র ৬৭ রানে গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে বেশ ভালো ভাবেই সামলে নিয়েছে। জয়ের জন্য শেষ ইনিংসে ৩৫৯ রানের পিছু ধাওয়া করতে নেমে তৃতীয়দিন শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৭২ ওভারে ৩ উইকেটে ১৫৬ রান। ম্যাচ জিততে চাই আর মাত্র ২০৩ রান।

পুরো সিরিজে ব্যাট হাতে এবং অধিনায়ক হিসেবে বাজে পারফর্ম করা জো রুট হেডিংলিতে যেন ‘প্রাণ’ ফিরে পেয়েছেন। দুই ওপেনার সিঙ্গেল ডিজিটে আউট হলেও জো রুট এবং জো ডেনলি ইংল্যান্ডকে ম্যাচ জেতার স্বপ্ন দেখান। তৃতীয় উইকেট জুটি এই দুজনে যোগ করেন ১২৬ রান। ডেনলি ১৫৫ বলে ৫০ রান করে আউট হলেও জো রুট দিনটা শেষ করে অপরাজিত ৭৫ রানে। তার সঙ্গী হিসেবে ২ রান নিয়ে খেলছিলেন বেন স্টোকস। এই দুই ব্যাটসম্যান ভালোই জানেন কিভাবে দলকে জেতাতে হয়। তবে সমস্যা হলো অস্ট্রেলিয়ার পেস বোলাররাও হেডিংলিতে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে। প্রথম ইনিংসে ৩০ রানে ৫ উইকেট শিকারি জস হ্যাজেলউড দ্বিতীয় ইনিংসেও দুই উইকেট তুলে নিয়েছেন।

পেস বোলারদের কাছ থেকে চতুর্থদিনও ম্যাজিক স্পেলের অপেক্ষায় আছেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক টিম পাইন। অস্ট্রেলিয়ার ২৪৬ রানের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে নায়ক সেই নবীন ব্যাটসম্যান মার্কাস লাবুশানে। রান আউট হওয়ার আগে এই মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান করেন ৮০ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে এটাই অস্ট্রেলিয়ার একমাত্র হাফসেঞ্চুরি। লাবুশানে প্রথম ইনিংসেও দলের সর্বোচ্চ স্কোরার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিং: ১৭৯/১০ (৫২.১, ওয়ার্নার ৬১, লাবুসচাঙ্গে ৭৪, পাইন ১১, আর্চার ৬/৪৫, ব্রড ২/৩২)। দ্বিতীয় ইনিংস: ২৪৬/১০ (৭৫.২ ওভারে, খাজা ২৩, লাবুশানে ৮০, হেড ২৫, ওয়েড ৩৩, স্টোকস ৩/৫৬, আর্চার ২/৪০, ব্রড ২/৫২)। ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস ৬৭/১০ (২৭.৫ ওভারে, জো ডেনলি ১২, হ্যাজেলউড ৫/৩০, কামিন্স ৩/২৩, প্যাটিসন ২/৯)। দ্বিতীয় ইনিংসে: ১৫৬/৩ (৭২ ওভারে, জো রুট ৭৫*, জো ডেনলি ৫০, স্টোকস ২*, হ্যাজেলউড ২/৩৫)।

জয়ে শুরু রোনালদোর জুভেন্টাসের

জয়ে শুরু রোনালদোর জুভেন্টাসের
জয়সূচক গোলদাতা চিয়েলিনির সঙ্গে রোনালদোর আনন্দ ভাগাভাগি, ছবি: সংগৃহীত

প্রথম ম্যাচেই গোলের দেখা পেয়ে ছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কিন্তু অফ-সাইডের কারণে ভিএআর তার গোল বাতিল করে। তবে তাতে কোনো প্রভাব পড়ে ম্যাচে। ঠিকই জয় দিয়ে নতুন সেরি এ মৌসুম শুরু করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস। পার্মাকে ১-০ গোলে হারিয়ে লিগ শিরোপা ধরে রাখার মিশনে শুভ সূচনা করেছে সিআর সেভেনের দল।

প্রতিপক্ষের মাঠে জয়সূচক গোলটি করেন ক্যাপ্টেন জর্জিও চিয়েলিনি। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে আলেক্স সান্দ্রো মিস শট নিলে খুব কাছ থেকে আলতো খোঁচায় জালে বল পাঠিয়ে দেন ডিফেন্ডার চিয়েলিনি।

পর্তুগিজ মহাতারকা রোনালদো গোল ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে ছিলেন। কিন্তু তার হেড অল্পের জন্য অফ-সাইডের অভিযোগে বাতিল করে ভিএআর।

৬৭.৫ মিলিয়ন পাউন্ডে কেনা ম্যাথিজস ডি লিগট বদলি হিসেবেও মাঠে নামেননি। আর্সেনাল থেকে আসা অ্যারন রামসে স্কোয়াডেই ছিলেন না।

দলের সঙ্গে পার্মা সফরে যাননি কোচ মাউরিজিও সারি। কারণ নিউমোনিয়ার চিকিৎসা করাচ্ছেন তিনি। আগামী সপ্তাহে অ্যালিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে নাপোলির বিপক্ষে ম্যাচও মিস করবেন চেলসির সাবেক এ কোচ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র