Alexa

সিরিজ জয়োৎসবের অপেক্ষায় শ্রীলঙ্কা

সিরিজ জয়োৎসবের অপেক্ষায় শ্রীলঙ্কা

এম. এম. কায়সার, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

দু’দলের প্রয়োজনের ধরণটা এমন।

ম্যাচ জিততে হলে দক্ষিণ আফ্রিকার চাই আরও ৩৫১ রান। শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন মাত্র ৫ উইকেট। খেলার এখনো দুদিন বাকি। এই ম্যাচের সম্ভাব্য ফল আপনি এখনই জেনে নিতে পারেন; শ্রীলঙ্কা জিতছে। এবং সেই জয় যদি চতুর্থদিনের সকালের সেশনেই চলে আসে তবে মোটেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। জিতলেই শ্রীলঙ্কা টেস্টে সিরিজ জয়োৎসবে মেতে উঠবে। গলে সিরিজের প্রথম টেস্টেও শ্রীলঙ্কা বড় ব্যবধানেই হারিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

স্পিনের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার চিরায়িত দুর্বলতা আরেকবার প্রমাণিত হচ্ছে এই সিরিজে, খুবই স্পষ্ঠভাবে। ম্যাচ জিততে কলম্বোতে সিরিজের দ্বিতীয় এই টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে ৪৯০ রানের প্রায় অসম্ভব একটা টার্গেট দিয়েছে শ্রীলঙ্কা। কলম্বোর স্পিন সহায়ক উইকেটে ম্যাচের চতুর্থ ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকা যে এই চ্যালেঞ্জ নিতে পারবে না- সেটা জানাই ছিল। তৃতীয়দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার জমা ১৩৯ রানের। জয়ের টার্গেট ছুঁতে এখনো তাদের চাই আরও ৩৫১ রান।

এর আগে শ্রীলঙ্কা তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটে ২৭৫ রান তুলে ডিক্লেয়ার্ড করে। ম্যাচ জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে টার্গেট দেয় তারা ৪৯০ রানের। টেষ্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত চতুর্থ ইনিংসে কোন দলের এতবেশি রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড নেই। দক্ষিণ আফ্রিকা সতর্ক ভঙ্গিতে ব্যাটিং শুরু করলেও উইকেট একবার পড়তে শুরু করায় আর সামাল দিতে পারেনি। গোটা সিরিজেই শ্রীলঙ্কার স্পিনারদের সামনে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানদের নাজেহাল ব্যাটিং চিত্রের দেখা মিলেছে।

দ্বিতীয়দিনের সকালে শ্রীলঙ্কা একটু দ্রুতগতিতে রান তোলার দিকে মনোযোগ দেয়। সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলা ম্যাথুস ব্যাট হাতে অনেকদিন পরে নিজেকে মেলে ধরার সুযোগটা গ্রহণ করলেন। শ্রীলঙ্কা অপেক্ষায় ছিল ম্যাথুসের সেঞ্চুরি হয়ে গেলে ইনিংস ঘোষণা করবে। কিন্তু ১৪৭ বল খেলে ম্যাথুস ৭১ রানে আউট হয়ে যান। তার আউটের সঙ্গে সঙ্গেই শ্রীলঙ্কা ৫ উইকেটে ২৭৫ রানে ইনিংস ডিক্লোয়ার্ড করে। যথারীতি এই ইনিংসেও দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা বোলার স্পিনার কেশব মহারাজ। ১৫৪ রান দিয়ে মহারাজ ৩ উইকেট পান। ম্যাচে সবমিলিয়ে ২৮৪ রানে ১২ উইকেট পান দক্ষিণ আফ্রিকার এই বাঁহাতি স্পিনার।

কলম্বো টেষ্টের উইকেট স্পিনারদের এতবেশি সহায়তা করছে যে এখন পর্যন্ত এই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক তার পেস বোলারদের হাতে বলই দেননি! দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংসেও শুধুমাত্র শ্রীলঙ্কার তিন স্পিনার বোলিং করেই গুটিয়ে দেন। দ্বিতীয় ইনিংসেও এখন পর্যন্ত ৪১ ওভারের সবগুলোই করেছেন লঙ্কার তিন স্পিনার। ‘স্পিনারদের ম্যাচ’-এই টেস্টের নামকরণ এখন তাই!

সংক্ষিপ্ত স্কোর (তৃতীয় দিন শেষে): শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ৩৩৮/১০ (গুনাথিলাকা ৫৭, কারুনারত্নে ৫৩, ধনাঞ্জয় ৬০, আকিলা ৪৩, মহারাজ ৯/১২৯)

শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস: ২৭৫/৫ ডিক্লেয়ার্ড (গুনাথিলাকা ৬১, কারুনারতেœ ৫৯*, ম্যাথুস ৭১*, মহারাজ ৩/১৫৪) দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস: ১২৪/১০(৩৪.৫ ওভারে, ফ্যাপ ডু প্লেসি ৪৮, ডি কক ৩২, পেরেইরা ৪/৪০, ধনঞ্জয়া ৫/৫২, হেরাথ ১/৩২)।

দক্ষিণ আফ্রিকা দ্বিতীয় ইনিংস: ১৩৯/৫ (এলগার ৩৭, ব্রুইন ৪৫*, বাভুমা ১৪*, হেরাথ ২/৫৪, পেরেইরা ১/৩৮, আকিলা ২/৩৫)।

খেলা এর আরও খবর