Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

অভিমানে জার্মানিকে বিদায়ই বলে দিলেন ওজিল

অভিমানে জার্মানিকে বিদায়ই বলে দিলেন ওজিল
  সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম  


  • Font increase
  • Font Decrease

গত কয়েকমাস ধরেই একটু একটু করে জমেছিল অভিমানের মেঘ। অবহেলায় মনটা বিষন্ন হয়ে উঠেছিল। এবার সেই অভিমানের মেঘ বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ল। নিজেকে আর আটকে রাখতে পারলেন না মেসুত ওজিল। জার্মানিকে বিদায় বলে দিলেন ক্ষুদ্ধ এই বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার। এখন আর্সেনালের হয়ে ক্লাব ফুটবলেই শুধু দেখা যাবে খেলা গড়ার এই কারিগরকে!

রোববার রাতে আচমকাই এই কঠিন সিদ্ধান্তটা নিয়েছেন ওজিল। এছাড়া অন্যকিছু যেন করারও ছিল না তুর্কি বংশোদ্ভুদ এই জার্মান ফুটবলারের। তার জাতিসত্বা প্রসঙ্গটা নিয়ে এতোই জলঘোলা হচ্ছিল যে যন্ত্রণায় কাবু হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তাইতো বিদায় বেলায় আবেগী এক খোলা চিঠিতে ধর্মপ্রাণ এই মুসলিম ফুটবলার লিখে গেলেন, 'দেখুন আমি খুবই দুঃখের সঙ্গে জানাতে চাই গত কিছুদিনের ঘটনার কারণে আমি আর জার্মানির জার্সি গায়ে দিতে চাইছি না। আমার মনে হয়েছে আমি বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছি। অসম্মান করা হয়েছে আমাকে।'

অথচ বয়স তার মাত্র ২৯। ইচ্ছে করলেই বছর চারেক খেলে যেতে পারতেন দেশের হয়ে। কিন্তু আত্মসম্মানের ওপর তো আর কিছু নেই। এ কারণেই বিদায় বলেই ফেললেন ওজিল।

ঘটনার সুত্রপাত রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে। লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপে এরদোয়ানের সঙ্গে একটি ছবিতে একসঙ্গে দেখা যায় তাকে। তারপরই বিষয়টা রাজনৈতিক রঙ পায়।

তুর্কি রাস্ট্রনায়ক এরদোয়ানকে স্বৈরাচারী বলে মনে করে জার্মানি। ওজিলের ছবি প্রকাশিত হওয়ার পর জার্মান ফুটবল ফেডারেশনের (ডিএফবি) প্রধান রেইনহার্ড গ্রিনডেল বলেন, ‘সম্প্রতি সময়ে স্বৈরাচারী অবস্থানে যাওয়া এরদোয়ানের সঙ্গে ছবি তোলা ভালো কোনো ব্যাপার নয়।’

ব্যস, এরপর থেকেই শুরু হয় তার প্রতি অবহেলা। রাশিয়া বিশ্বকাপে একাদশে তার জায়গাটাও হাতছাড়া হয়ে যায়। অবস্থা এখন এমনই হচ্ছিল যে দল জায়গা পাওয়া নিয়ে অসহায়ের মতো তাঁকিয়ে থাকতে হচ্ছিল তাকে। যদিও সেই ছবি প্রসঙ্গে ওজিল নিজের অবস্থান পরিস্কার করেছিলেন এভাবে, ‘এটার পেছনে কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ছিল না। শুধুই আমার পূর্বপুরুষের দেশ তুরস্কের সর্বোচ্চ কর্মকর্তার সম্মানে ছবিটি তুলেছিলাম।’ বলা দরকার, ওজিলের বাবা-মা দুজনই তুরস্কের। তারা একসময় পাড়ি জমান জার্মানিতে। সেখানেই অভিবাসী নাগরিক হয়ে বেড়ে উঠেছেন তিনি। 

পারফরম্যান্সের কারণে নয়, রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণে দলে কোনাঠাসা হয়ে পড়েন ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ জয়ী এই ফুটবলার। ২০০৯ সালে জার্মানির হয়ে অভিষেক। এরপর ৯৩ ম্যাচ খেলে ওজিল করেছেন ২৩ গোল। অনাকাংখিত এক পরিস্থিতির মধ্য দিয়েই শেষ হল এই মিডফিল্ডারের আর্ন্তজাতিক ক্যারিয়ার।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রীতি ম্যাচে মেসিহীন আর্জেন্টিনা

প্রীতি ম্যাচে মেসিহীন আর্জেন্টিনা
নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রীতি ম্যাচে খেলতে পারছেন না মেসি, ছবি: সংগৃহীত

লিওনেল মেসিকে ছাড়াই প্রীতি ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা। শুধু মেসি নন। দলে নেই সার্জিও আগুয়েরো এবং অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। তাদের অনুপস্থিতিতে আলবিসেলেস্তের আক্রমণভাগে নেতৃত্ব দিবেন পাওলো দিবালা।

৫ সেপ্টেম্বর চিলির বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা। পাঁচ দিন পর মোকাবেলা করবে মেক্সিকোকে। এই দুই প্রীতি ম্যাচকে সামনে রেখে ২৭ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে কোচ লিওনেল স্কালোনি।

সম্প্রতি শেষ হওয়া কোপা আমেরিকা চলাকালে দক্ষিণ আমেরিকা ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বেফাঁস মন্তব্য করে ছিলেন মেসি।

সে অপরাধে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিন মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন আর্জেন্টাইনে এ ফুটবল জাদুকর। একারণেই দল থেকে ছিটকে গেছেন বার্সার প্রাণভোমরা।

অক্টোবরে জার্মানির বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচ ও বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের একটি ম্যাচও মিস করবেন মেসি।

প্রীতি ম্যাচের আগে বার্সার হয়ে লা লিগায় প্রথম ম্যাচ মিস করেছেন মেসি। ম্যাচে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে অবশ্য ১-০ গোলে হেরে যায় তার দল। কাফ ইনজুরি কাটিয়ে এখন একা একা অনুশীলন করছেন তিনি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলন করতে প্রস্তুত এখন মেসি।

 

ভুয়া হুমকিতে কোহলিদের নিরাপত্তা জোরদার

ভুয়া হুমকিতে কোহলিদের নিরাপত্তা জোরদার
উইন্ডিজ সফররত ভারতীয় ক্রিকেটারদের জন্য বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা, ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হতে পারে। এমন আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। তাদের ভাষ্য, পুরো খবরটাই আসলে ভুয়া। ক্রিকেটাররা কোনো ধরনের হুমকির মধ্যে নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে খবর ছড়িয়ে পড়েছে তা পুরোপুরি ধোঁকাবাজি।

শোনা যায়, ১৬ আগস্ট শুক্রবার বেনামি এক ইমেইল পায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তাতে জানানো হয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফররত ভারতীয় ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হতে পারে। সঙ্গে সঙ্গে তারা ইমেইলটি পাঠিয়ে দেয় আইসিসিকে। ইমেইলের একটি কপি পায় বিসিসিআইও।

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পরিস্থিতি অবহিত করে বিসিসিআই। যোগাযোগ করে অ্যান্টিগাস্থ ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে। খবর দেওয়া হয় মহারাষ্ট্রের ডিরেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (ডিজিপি) ও মুম্বাই পুলিশকেও। সঙ্গে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অ্যান্টিগায় অবস্থানরত ভারতীয় ক্রিকেটারদের।

ইমেইল প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বিসিসিআই জানায়, ইমেইলে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে তা সত্য নয়। এটা ধাপ্পাবাজি ছাড়া আর কিছুই নয়।

ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে ইতোমধ্যে টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিয়েছে অধিনায়ক বিরাট কোহলির দল। এখন দুদল মোকাবেলা করবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে।

অ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারতের মধ্যে প্রথম টেস্ট শুরু হচ্ছে ২২ আগস্ট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র