Alexa

বেরোবিতে ১৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন চায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা 

বেরোবিতে ১৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন চায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা 

রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ১৭ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন, ছবি: বার্তা২৪

ছাত্র সংসদ নির্বাচনের আয়োজন ও উপাচার্যের সার্বক্ষণিক ক্যাম্পাসে অবস্থানসহ ১৭ দফা দাবি তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ায় ‘সাধারণ শিক্ষার্থী পরিষদ’ ব্যানারে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

এতে পরিষদের আহ্বায়ক রোকন-উজ-জামান রবিউল লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘দ্রুত বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের নির্বাচন আয়োজন করতে হবে। কারণ ছাত্রসংসদ না থাকার পরও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসক গত এক দশকে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ছাত্রসংসদ ফি আদায় করেছেন। ছাত্রসংসদ ছাড়া সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে ন্যায্য দাবি দাওয়া আদায় করা কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে ১৭টি দাবি তুলে ধরে বলা হয়,  অবিলম্বে শিক্ষক ও কর্মকর্তা নিয়োগে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়া,  একাডেমিক ভবন নির্মাণ করে ক্লাসরুম সংকট নিরসন ও বিভিন্ন বিভাগের প্রয়োজনীয় উপকরণ নিশ্চিত করা, ক্যাম্পাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বেগম রোকেয়ার প্রতিকৃতি স্থাপন, আবাসিক সংকট নিরসনে নতুন হল নির্মাণ, হলের ফি কমানো, হলের খাবারে ভর্তুকি দেয়া, ভর্তি ফরম পূরণ ও সনদ-নম্বরপত্র উত্তোলনের ফি কমানো, ড. ওয়াজেদ রিসার্স ইনস্টিটিউট, শেখ হাসিনা হল,  স্বাধীনতা স্মারক, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করতে হবে।

এছাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদ সম্প্রসারণ, অন্যান্য ধর্মানুসারী শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের জন্য উপাসানালয় তৈরি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক নির্মাণ, পরিবহন সংখ্যা বৃদ্ধি করে রুট বাড়ানো, মেডিকেল সেন্টার পূর্ণাঙ্গভাবে নির্মাণ করে ২৪ ঘণ্টা স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা, নতুন বিভাগ অন্তর্ভুক্তিকরণ, বিভাগের সেমিনার ও কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে বই সংখ্যা বাড়ানো, লাইব্রেরি প্রতিদিনই সকাল নয়টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখা, স্থায়ী ব্যাংক চালু, টিএসসি ও অডিটরিয়াম নির্মাণ, ক্যাম্পাসে মাদকরোধ ও সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ সৃষ্টি করা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা ও সহশিক্ষা কার্যক্রমের প্রসার ঘটাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

সাধারণ শিক্ষার্থী পরিষদের আহ্বায়ক রোকন-উজ-জামান রবিউল বলেন, ‘আমরা যে দাবিগুলো করেছি, সেগুলো বেরোবি শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন খুব দ্রুত এই যৌক্তিক দাবিগুলো মেনে নেবেন। অন্যথায় আমাদের আন্দোলনে নামতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে পরিষদের অন্যান্য নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :