Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

চট্টগ্রামে বেড়েছে কিশোর গ্যাংয়ের অপরাধ

চট্টগ্রামে বেড়েছে কিশোর গ্যাংয়ের অপরাধ
চট্টগ্রামে আটক কিশোর গ্যাংদের একাংশ, ছবি: বার্তা২৪.কম
আবদুস সাত্তার
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
চট্টগ্রাম


  • Font increase
  • Font Decrease

নগরীতে হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে কিশোর গ্যাংয়ের অপরাধ। সম্প্রতি সময়ে চট্টগ্রামে ঘটে যাওয়া কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এ কিশোর গ্যাং। হত্যাকাণ্ড ছাড়াও মাদকদ্রব্য সেবন এবং বিক্রিতে জড়িয়ে যাচ্ছে গ্যাংস্টারদের কেউ কেউ। কিশোর গ্যাংস্টারদের অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বিগ্ন পুলিশ প্রশাসনের কর্তারা।

জানা গেছে, নগরীতে বেশ কিছু অপরাধের নেপথ্যে রয়েছে সম্প্রতি গজিয়ে ওঠা বেশ কয়েকটি কিশোর গ্যাং। এসব গ্যাংয়ের প্রতিটিতে সদস্য থাকে ২০ থেকে ৩০ জন। প্রত্যেক সদস্যের পরিচিত গ্যাংস্টার হিসেবে। এসব গ্যাংস্টাররা প্রত্যেকেই ধনীর সন্তান ও নামি-দামি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। শুধু স্কুল-কলেজ নয় বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও জড়িত এসব গ্যাংদের সঙ্গে। আবার তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে কথিত রাজনৈতিক বড় ভাইদের। তবে এবার রাজনৈতিক বড় ভাইদের খোঁজছে পুলিশ।

শুক্রবার (১০ মে) নগরীর পাঁচলাইশ থানার মুরাদপুর ফিলখানা এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের হাতে ছুরিকাঘাতে খুন হন মোস্তাক আহমেদ (৩৫)। ছেলের সঙ্গে বখাটে কিশোরদের ঝগড়া মিটাতে গেলে তাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। এ ঘটনায় জড়িত ছিলো ১০/১৫ জনের একদল কিশোর। যাদের বয়স ১৮ বছরের কম।

মঙ্গলবার (১৪ মে) নগরী ডবলমুরিং থানার হাজিপাড়ায় রিক্সা চালক রাজু আহমেদকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ হত্যাকাণ্ডে নেতৃত্ব দেয় ১০/১২ জনের কিশোর গ্যাং। তাদের বড় ভাই ছগির হোসেন জেল থেকে নির্দেশ দেন মফিজ নামের একজনকে খুন করার জন্য। কিন্তু টার্গেট মিস করে কিশোররা রাজুকে খুন করে। এ কিশোররা মাদক সেবন ও ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত। এদের ৮ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের সবার বয়স ১৮ বছরের মধ্যে।

অন্যদিকে ১৪ এপ্রিল ইয়াবা সেবনের টাকা না পেয়ে বাবা রঞ্জন বড়ুয়াকে ছুরিকাঘাতে খুন করে ছেলে রবিন বড়ুয়া। কোতোয়ালী থানার কাজির দেউড়ীর ব্যাটারী গলিতে এ ঘটনা ঘটে। বাবাকে হত্যাকারী রবিনও কিশোর বয়সের।

কিশোর গ্যাংদের কাছ থেকে উদ্ধার করা অস্ত্র, ছবি: বার্তা২৪.কম
কিশোর গ্যাংদের কাছ থেকে উদ্ধার করা অস্ত্র, ছবি: বার্তা২৪.কম

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম বার্তা২৪.কমকে বলেন, গ্যাংস্টারদের রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়া রাজনৈতিক বড় ভাইয়েরা ছাড় পাবে না। যেকোনো অপরাধ সংঘঠিত হলে গ্যাংস্টারদের পাশাপাশি রাজনৈতিক বড় ভাইদেরও গ্রেফতার করার জন্য ওসিদের নির্দেশ দিয়েছি।

তিনি বলেন, আশংঙ্কজনকহারে বেড়ে গেছে কিশোর অপরাধ। এগুলো দমানোর জন্য রাত ৮টার পর বাইরে আড্ডায় পেলে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার জন্যও পুলিশকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, গ্যাংস্টাররা নিজেদের মধ্যে গায়ে পড়ে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। সামান্য ঝগড়া থেকে শুরু হয় মারামারি। আর এসবে মজা খুঁজে পায় বখে যাওয়া কিশোররা। আগাম সংবাদের ভিত্তিতে নির্দিষ্ট পয়েন্টে রড, চাপাতি ও অস্ত্র নিয়ে জমায়েত হয় তারা। টার্গেট সামনে আসা মাত্র কৌশলে ঝাঁপিয়ে পড়ে। বখে যাওয়া এসব কিশোর-কিশোরীর বাবা-মা অনেকক্ষেত্রেই অসহায়। মানসম্মানের ভয়ে তারা বিষয়টি নিয়ে থানা-পুলিশ পর্যন্ত যেতে চান না।

কিশোর গ্যাংস্টারদের অভিভাবকরা সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী ও ব্যবসায়ী। অনেকে বিপুল বিত্তবৈভবের মালিক। তারা নিজেদের সন্তানদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না। ফলে ১৪ বছর থেকে শুরু করে ১৮-২০ বছরের মধ্যেই তার হয়ে ওঠে বেপরোয়া। এসব সন্তানরা মা-বাবার স্নেহ-মমতার অভাবেও বিপথগামী হচ্ছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

রাজধানীর কাঁচাবাজারে অস্ত্র কেনাবেচা!

রাজধানীর কাঁচাবাজারে অস্ত্র কেনাবেচা!
আটককৃত অস্ত্র ব্যবসায়ীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর শ্যামপুরের গেন্ডারিয়া কাঁচাবাজারে অস্ত্র কেনা বেচার জন্য একদল অস্ত্র ব্যবসায়ী একত্রিত হয় বলে দাবি করেছে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, 'গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ব্যবসায়ীদের আটক হয়। এ সময় ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।'

শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) ইব্রাহীম খান।

রাজধানীর কাঁচা বাজারে অস্ত্র কেনাবেচা!

তিনি বলেন, 'একদল অস্ত্র ব্যবসায়ী অস্ত্র বিক্রির উদ্দেশে গেন্ডারিয়া কাঁচাবাজারে সকাল ৮টার দিকে একত্রিত হয়। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ তাদের ঘিরে ফেলে, ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে অস্ত্র ব্যবসায়ীদের আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তাদের কাছে থাকা কালো ব্যাগ থেকে চারটি বিদেশি পিস্তল, দুটি বিদেশি রিভলভার, সাতটি ম্যাগাজিন ও ১২৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।'

এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত অস্ত্র ব্যবসায়ীরা হলেন- মো. রাজু গাজী (৪৩), মিনহাজুল ইসলাম (২৮) এবং শওকত হোসেন (৩৮)।

তিনি বলেন, 'একদল অস্ত্র ব্যবসায়ী অস্ত্র বিক্রির উদ্দেশে গেন্ডারিয়া কাঁচাবাজারে সকাল ৮টার দিকে একত্রিত হয়। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ তাদের ঘিরে ফেলে, ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে অস্ত্র ব্যবসায়ীদের আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তাদের কাছে থাকা কালো ব্যাগ থেকে চারটি বিদেশি পিস্তল, দুটি বিদেশি রিভলভার, সাতটি ম্যাগাজিন ও ১২৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।'

এই ঘটনায় আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- শ্যামপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমানসহ উপপরিদর্শক (এসআই) সোহাগ চৌধুরী ও এএসআই মাসুম বিল্লাহ্ আহত হয়।

ডিসি ইব্রাহিম খান বলেন, 'উদ্ধারকৃত অস্ত্রগুলোতে গুলি লোড করা ছিল। তবে এখন পর্যন্ত জানা যায়নি, অস্ত্রগুলোর চালান কার কাছে যাবে। তদন্তের পর বিষয়টি জানানো হবে।'

তিনি আরও জানান, এই অস্ত্র ব্যবসায়ীদের দল থাকা ৩/৪ জন পালিয়েছে। তাদের বিষয়েও খোঁজ নিচ্ছে পুলিশ।

হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়ায় বন্যার্ত ৮০০ পরিবারকে ত্রাণ প্রদান

হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়ায় বন্যার্ত ৮০০ পরিবারকে ত্রাণ প্রদান
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

বন্যায় ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়া উপজেলার অন্তত ৩০ গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছেন। পানিতে ভেসে গেছে পুকুর, তলিয়ে গেছে রাস্তাঘাট।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) দুপুরে এই দুই উপজেলার পানিবন্দী ৮০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক)।

Mymensing

হালুয়াঘাটের ধারা ইউনিয়ন পরিষদ ও ধোবাউড়া থানা প্রাঙ্গণে অসহায় এসব মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন জেলা পুনাকের সভানেত্রী সুরাইয়া সুলতানা ও জেলা পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন। এসময় সংশ্লিষ্ট সার্কেল অফিসার ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ত্রাণ হিসেবে প্রত্যেক সদস্যকে এক কেজি চিড়া, ৫০০ গ্রাম গুড়, দুই কেজি চাল, ৫০০ গ্রাম ডাল, ৫০০ গ্রাম তেল ও এক কেজি আলু দেওয়া হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র