২ ছেলেকে জড়িয়ে ধরে, পেছনে ফিরতেই সব পুড়ে শেষ!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
শেষ সম্বলটুকু বাঁচানোর চেষ্টা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শেষ সম্বলটুকু বাঁচানোর চেষ্টা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

'আমার ঘর থেকে অনেক দূরে আগুন লাগে। প্রথমে ভেবেছি আমার ঘর পর্যন্ত আসবে না। কিন্ত না, মুহুর্তেই আমার ঘরে আগুন ধরে যায়। দুই ছেলেকে বুকে ধরে, শখের টিভিটা নিয়ে বের হই। পিছনে ফিরতেই সব পুড়ে শেষ।'

এভাবেই বলছিলেন ঘন্টাখানেক আগে সবকিছু হারিয়ে ফেলা মুসলেমা খাতুন (৩০)।

মিরপুর ৭ নাম্বারের চলনতিকা মোড়ের পাশের একটি বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৩ ঘণ্টায় প্রায় ৩ হাজার ঘর পুড়ে শেষ হয়ে যায়। সেসব ঘরের মধ্যে ছোট্ট একটি কুটিরে ২ সন্তান নিয়ে বাস করতেন মুসলেমা।

আরও পড়ুন: ঘর নয়, স্বপ্ন পুড়ে গেছে মালতীর

দুই বছর আগে তার স্বামী ছেড়ে গেছে। দুইটা ছেলে আর স্বপ্ন নিয়ে জীবন যুদ্ধ করে যাচ্ছিলেন মুসলেমা।

এতদিনের জমানো টাকা পয়সা আর শেষ সম্বলগুলো মুহূর্তেই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন: তিন ঘণ্টায় আগুনে পুড়ে ছাই বস্তিটি

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মুসলেমা বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, 'ছেলেদের বুকে জড়িয়ে শখের একটা টিভি নিয়ে ঘর থেকে বের হয়েছি। একটু সামনে গিয়ে পেছনে তাকাতেই সব পুড়ে ছাই। প্রথমে ভেবেছিলাম অনেক দূরে আগুন লেগেছে। সে আগুন আমার ঘর পর্যন্ত আসবে না। তবে শেষরক্ষা আমার হলো না।'

শুধু মুসলেমা না। এ বস্তির প্রতিটি ঘরে একজন করে মুসলেমা কাঁদছে!

আপনার মতামত লিখুন :