Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

ভারতীয়রা পাচ্ছে ৫ বছরের ভিসা

ভারতীয়রা পাচ্ছে ৫ বছরের ভিসা
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

কলকাতা থেকে ফিরে: ভারতীয় নাগরিকদের বাংলাদেশে আসার জন্য ৫ বছরের ভিসা দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। আগে সাধারণত দুই বছরের বেশি ভিসা দেয়া হতো না প্রতিবেশি দেশের নাগরিকদের। কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা জানান, প্রয়োজনীয় ও বৈধ কাগজপত্র জমা দিলে ব্যবসায়ীদের ৫ বছরের মাল্টিপল ভিসা দেয়া হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার ৫ বছরের ভিসা পেয়েছেন অমলেন্দু সরকার। তিনি চট্টগ্রামের মদুনাঘাটের অধিবাসী ছিলেন ও ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। বর্তমানে কলকাতার শোভাবাজারে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন মুক্তিযোদ্ধা অমলেন্দু সরকার।

তিনি বলেন, ‘পাসপোর্টের সঙ্গে ব্যাংক স্ট্যাটমেন্ট, ট্রেড লাইসেন্স, জাতীয় পরিচয়পত্র ও মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেট জমা দিয়েছিলাম। দিনে দিনে আমাকে ৫ বছরের মাল্টিপল ভিসা দিয়েছে। এর আগে আমি সর্বোচ্চ দুই বছরের মাল্টিপল ভিসা পেয়েছিলাম।’

সূত্র জানায়, প্রতি কর্মদিবসে এখন প্রায় ৫০০ জনকে ভিসা দেয়া হচ্ছে। দুই বছর আগেও এ সংখ্যা ছিল ২৫০ জন। ২০১৭ সালের শুরুর দিকে ভিসা পদ্ধতি আধুনিকায়ন অর্থাৎ কম্পিউটারাইজড করা হয়। এর আগে হাতে লিখে এসব কাজ করা হতো।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Aug/13/1534149739945.jpg

কলকাতার পার্ক সার্কাস এলাকায় অবস্থিত বাংলাদেশ উপ-দূতাবাস। ভারতের দূতাবাসসহ মোট ৫টি ভিসা কেন্দ্র রয়েছে। দিল্লি, মুম্বাই, কলকাতা, আগরতলা, গৌহাটি থেকে ভিসা দেয়া হচ্ছে বাংলাদেশে আগত ভারতীয় নাগরিকদের।

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা ঘোষণার পর ১৭ এপ্রিল এই উপ-দূতাবাসের বাঙালি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বাংলাদেশের পক্ষে অবস্থান নেয়। সেখানে কর্মরত পাকিস্তানিদের বের করে দিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম স্বীকৃতি দেয়।

মূলত: ব্যবসায়ী, বাংলাদেশে কর্মরত বিভিন্ন পেশাজীবী, বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে স্থায়ী বসবাসকারীরা ভিসা নিতে ভিড় জমায় দূতাবাস ও উপ-দূতাবাসে। পর্যটকের সংখ্যাও আছে, তবে তা অনেক কম। সবচেয়ে বেশি ভিসা ইস্যু করা হয় কলকাতা সেন্টার থেকে।

আপনার মতামত লিখুন :

সবজি রফতানিতে দুটি কার্গো প্লেন কেনার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

সবজি রফতানিতে দুটি কার্গো প্লেন কেনার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর
একনেক সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ছবি: সংগৃহীত

বিদেশে সবজি রফতানির জন্য সংশ্লিষ্টদের দুটি কার্গো বিমান কেনার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্টদের এই পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, 'বাংলাদেশে প্রচুর সবজি চাষ হচ্ছে। প্রচলিত কৃষির বাইরে বিদেশি জাতের বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি, ফল-ফুল চাষ করে সবাইকে তাক লাগিয়েছে বাংলাদেশ। সবজি চাষে বাংলাদেশ সাফল্য দেখিয়েছে। আমারা সবজি বিভিন্ন দেশে রফতানি করেছি। এখন কার্গো প্লেন কেনার সময় এসেছে। দুটি কার্গো প্লেন কিনে ফেলেন।'

এর পরে অর্থসচিব আব্দুর রউফ তালুকদার বলেন, 'বিমানের অবস্থা ভালো। বিমান নিজের টাকা দিয়েই দুটি কার্গো কিনতে পারবে। একনেক সভায় ১৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে কৃষি বিপণন অধিদফতর জোরদারকরণ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়।'

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

তিনি বলেন, 'বর্তমানে বাংলাদেশ সবজি উৎপাদনে সাফল্য দেখিয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সবজি রফতানি করা হচ্ছে। সবজি রফতানিতে আমরা কার্গো বিমান ভাড়া করছি। তাই দুটি হিমায়িত কার্গো বিমান কেনার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।'

বিদ্যুতের লাইন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'ভবিষ্যতে সকল বিদ্যুৎ লাইন মাটির নিচে স্থাপন করতে হবে। ৭১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয়ে খুলনা কর ভবন নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। খুলনা লবণাক্ত পানি প্রবণ এলাকা। এখানে ভবন নির্মাণের সময় বৃষ্টির পানি ধরে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে। বৃহৎ সরকারি ভবনে ডে কেয়ার সেন্টার ব্যবস্থা করতে হবে।'

নানা নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'বৃষ্টির পানিতে ভাঙন রোধে পার্বত্য এলাকায় সড়কের উভয় পাশে চিকন বাঁশ রোপণ করতে হবে। নদী ভাঙন রোধে ক্যাপিটাল ড্রেইজিংয়ে জোর দিতে হবে।'

মেঘনা নদীর ভাঙন হতে ভোলা জেলার চরফ্যাশন পৌর শহর সংরক্ষণ; প্রকল্পটি সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রকল্পের মোট ব্যয় ২৭৭ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। একই প্রকল্পে এক কর্মকর্তা গাফিলতি করেছিলেন।

বিষয়টি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'প্রকল্পের ভুল অ্যাসেসমেন্ট করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। সড়ক নির্মাণের সময় খেয়াল রাখতে হবে যাতে বর্ষার সময় পানি প্রবাহ যেন আটকে না থাকে।'

সরকারবিরোধী বৈঠক, তরুণীসহ আটক ৮

সরকারবিরোধী বৈঠক, তরুণীসহ আটক ৮
চারঘাট থেকে আটককৃতরা। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

সরকারবিরোধী বৈঠক করার দায়ে রাজশাহীর চারঘাট থেকে ২ তরুণীসহ ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে রাজশাহী পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদুল্লাহ তার কার্যালয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

আটককৃতরা হলেন- বামনদীঘি গ্রামের আব্দুল কুদ্দুছের দুই ছেলে ইয়ামিন সরকার (২২), ইউসুফ আলী (২৬), ইয়ামিন সরকারের স্ত্রী সাদিয়া আক্তার মিম (১৯), ফরমান আলীর ছেলে সবুজ ইসলাম (১৯), শহিদুল ইসলামের ছেলে মুরশিদুল ইসলাম (২৭), মৃত লতিফ সরকারের ছেলে আব্দুল কুদ্দুস (৫৮), আস্করপুর মধ্যপাড়ার বজিদুল ইসলামের দুই সন্তান ফাতিমা মনিকা (২৩) ও হাসিবুল হাসান (২১)।

রাজশাহী পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ জানান, চারঘাট থানার বামনদীঘি গ্রামের আব্দুল কুদ্দুছের বাড়িতে একদল তরুণ-তরুণী সরকারবিরোধী বৈঠকে বসেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানে ২ তরুণীসহ ৮ জনকে আটক করতে সক্ষম হয় তারা। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন জিহাদি বই, ছাত্রশিবিরের দলীয় লিফলেট, মাসিক রিপোর্ট, সরকারবিরোধী পোস্টার, যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা গোলাম আযম ও মতিউর রহমান নিজামীর ছবি সংবলিত পোস্টার ও ফেস্টুন উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, আটককৃতদের নামে আগে কোনো মামলা ছিল না। তারা নতুন করে সংগঠিত হয়ে নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছিল। প্রাথমিকভাবে তারা জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে। গোপনে সংগঠিত হওয়া গ্রুপটির নেতৃত্ব দেওয়া ইয়ামিন সরকার ফাজিল পাস করে স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতি করছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র