নারীদের নিরাপদ যাত্রায় শাটল অ্যাপস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সর্বক্ষেত্রে বেড়েছে নারীদের বিচরণ। আর নারীদের এই অবাধ চলাচলকে নিরাপদ করতে চালু হলো অ্যাপ ভিত্তিক পরিবহণ শাটল।

মঙ্গলবার(২৬ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে অ্যাপসটির সেবার কথা জানায় কোম্পানিটি। এই পরিবহণকে নারীদের জন্য শতভাগ নিরাপদ ও স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ বলেও দাবি করছে প্রতিষ্ঠানটি।

শাটল নামের সেবাটি পাওয়া যাচ্ছে অ্যাপের মাধ্যমে। যেখানে শুধু নারী যাত্রীদের জন্য নির্দিষ্ট স্থান থেকে নির্দিষ্ট সময়ে ও নির্দিষ্ট রুটে পিক-আপ এবং ড্রপ-অফ সেবা দিচ্ছে শাটল।

শাটলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী রিয়াসাত চৌধুরী বার্তা২৪ ডটকমকে জানান, তাদের এই সেবা এখন রাজধানীর ছয়টি রুটে চালু রয়েছে। এটি তারা ধীরে ধীরে বাড়িয়ে চলেছেন।

তিনি বলেন, আমাদের সেবাটি নেওয়ার জন্য গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করে নিবন্ধন করতে হয়। এরপর আমরা সেই নিবন্ধনকারী নারীর তথ্য যাচাই করি। কারণ, অনেক সময় পুরুষরাও নারীর নামে নিবন্ধন করতে চায়। কিন্তু আমরা সেই সুযোগ দিই না। তাই সেটি যাচাই করে নিই। এরপর তারা সেবাটি ব্যবহার করতে পারেন।

রাজধানীতে এখন ছয়টি রুটে মোট ১৮টি মাইক্রোবাসে সেবাটি দেওয়া হচ্ছে। যেখানে শাটল অ্যাপের মাধ্যমে নারীরা রাইড বুক করতে পারেন।

আমাদের প্রতিটি ট্রিপে একজন করে ম্যানেজার থাকেন। তিনি সেই ট্রিপের সবকিছু দেখভাল করেন। ম্যানেজার এবং গাড়ির চালকের সব তথ্য অ্যাপে নিবন্ধন থাকে। ফলে কোন ধরনের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের কিছু থাকে না, বলেন রিয়াসাত চৌধুরী।

অ্যাপের মাধ্যমে নারীরা তাদের যাত্রার সিঙ্গেল টিকিট বা বান্ডেল টিকিটও কিনতে পারেন। বান্ডেল টিকিটে ছাড়ও পাওয়া যায় বলে জানান তিনি।

শাটলে যাতায়াত করতে হলে উত্তরা থেকে বসুন্ধরা সিঙ্গেল টিকেটের মূল্য ৬০ টাকা এবং বান্ডেল টিকেট ৫০০ টাকা। মিরপুর থেকে বসুন্ধরা সিঙ্গেল টিকেট ১০০ টাকা, বান্ডেল ৯০০ টাকা। ধানমন্ডি থেকে বসুন্ধরা সিঙ্গেল টিকিট ১২০ টাকা, বান্ডেল এক হাজার টাকা। মোহাম্মদপুর থেকে বসুন্ধরার ভাড়াও ধানমন্ডি থেকে বসুন্ধরার সমান। ধানমন্ডি থেকে গুলশান-১ সিঙ্গেল টিকেট ১০০ টাকা এবং বান্ডেল ৯০০ টাকা এবং মিরপুর-মোহাম্মদপুর-গুলশান-১ সিঙ্গেল টিকিট ১০০ টাকা, বান্ডেল টিকিট ৯০০ টাকা।

গত বছরের আগস্ট থেকে মাত্র দুটি মাইক্রোবাসে সেবাটি শুরু করে শাটল। তারপর জনপ্রিয়তা পাওয়ায় এবং চাহিদা থাকায় এখন সেবার পরিধি বাড়ছে বলে জানান সিইও রিয়াসাত চৌধুরী।

শাটলের আরও দুই জন সহপ্রতিষ্ঠাতা রয়েছেন। তারা হলেন প্রধান পরিচালক কর্মকর্তা জাওয়াদ জাহাঙ্গীর এবং প্রধান কারিগরি কর্মকর্তা শাহ সুফিয়ান মাহমুদ চৌধুরী।

শাটল জানায়, অ্যাপে নিবন্ধন ছাড়াও ফেইসবুক গ্রুপে সাত হাজারের বেশি সদস্য রয়েছেন যারা সেবাটি নিচ্ছেন। আবার অনেকেই ফোনকলের মাধ্যমেও টিকিট বুক করেন।

আপনার মতামত লিখুন :