Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ৩১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

অপরাধী শনাক্তে ওয়াচক্যাম আনলো বাংলাদেশি সিগমাইন্ড

অপরাধী শনাক্তে ওয়াচক্যাম আনলো বাংলাদেশি  সিগমাইন্ড
ছবিঃ সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে (এআই) কাজে লাগিয়ে অত্যাধুনিক একটি ওয়াচক্যাম তৈরি করেছে দেশীয় স্টার্ট-আপ প্রতিষ্ঠান সিগমাইন্ড।

বর্তমানে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে প্রতিষ্ঠানটি সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

তাদের তৈরি ওয়াচক্যামটি মুলত ফুটেজ অ্যানালাইসিস সফটওয়্যারের মাধ্যমে কাজ করে। সফটওয়্যারটিতে প্রাপ্ত গাড়ির নম্বরপ্লেট অথবা মুখমন্ডলের ছবি প্রবেশ করালে ছবিগুলোর হাই রেজুলুশন ইমেজ তৈরি হবে। এরপর সফটওয়্যারটির আওতায় সংযুক্ত প্রতিটি ক্যামেরা বিশ্লেষণ করে নির্দিষ্ট গাড়িটির নম্বরপ্লেট অথবা ব্যক্তিটিকে খোঁজা যাবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/06/1551874031386.jpg

ইতোমধ্যে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ তাদের বিভিন্ন কেপিআই (KPI) ভবনের নিরাপত্তায় এই সফটওয়্যার ব্যবহার করেছে। এছাড়াও, মহারাষ্ট্রের একটি হাইওয়ে রোডে চলাচলকৃত যানবাহনের নম্বর প্লেট ডিটেকশন, লেন ভায়লেশন সনাক্তকরণসহ ট্রাফিক সিস্টেম মনিটরিংয়ের কাজ করছে সিগমাইন্ডের ওয়াচক্যাম।

প্রায় দুই বছর গবেষণা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে একটি সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় সার্ভিলেন্স সফটওয়্যারের বেটা প্রোটোটাইপ তৈরি করতে সমর্থ হন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/06/1551874049820.jpg

সিগমাইন্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আবু আনাস শুভম মনে করেন, যদি মানুষকে মুখমণ্ডল দিয়ে এবং যানবাহনকে নম্বরপ্লেট দিয়ে সয়ংক্রিয়ভাবে শনাক্ত করা যায়, তাহলে ৯০ শতাংশ অপরাধ সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। এছাড়া আমাদের এই প্রযুক্তি রাস্তায় বসানো শত শত ক্যামেরার সঙ্গে সংযুক্ত করে দিলে অপরাধ নিয়ন্ত্রণ সংস্থাগুলোর মনিটরিং সেলের লোকবল অর্ধেকে নামিয়ে আনা সম্ভব।

সিগমাইন্ডের প্রধান বিপণন ও বাজারজাতকরণ কর্মকর্তা আরিফ হুসাইন জানান, সরকারি ‌ও বেসরকারি স্থাপনায় নিরাপত্তা সর্বোচ্চ করার জন্য ওয়াচক্যাম জোরালো ভুমিকা পালন করবে

আপনার মতামত লিখুন :

এক গেমে খেলেই খোয়ালেন সব সঞ্চয়!

এক গেমে খেলেই খোয়ালেন সব সঞ্চয়!
গেমিংয়ে আসক্ত কিশোর, ছবি: প্রতীকী

আমার ২২ বছর বয়সের ছেলেটি অটিজমে আক্রান্ত। সে অন্য কোনো কাজ করতে পারে না বিধায় আইপ্যাড, প্লেস্টেশন এবং গেমিংয়ের জগতে ঢুকে গেছে। সম্প্রতি সে একটি গেম খেলে ব্যয় করেছে ৩,১৬০ পাউন্ড যা বাংলাদেশি টাকায় ৩ লাখ ৩৪ হাজার ১৮০ টাকা।

এভাবেই ছেলিটির বাবা থমাস কার্টার বিবিসিকে জানান, সম্প্রতি সে আইপ্যাডে ‘হিডেন আর্টিফ্যাক্ট’ নামের একটি গেম খেলে। আর সেই গেম খেলেই গত ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩০ মে মাসের মধ্যে তাদের সঞ্চয়ের সব টাকা খরচ করে ফেলেছে।

থমাস আইটিউন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানান। কিন্তু তারা বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হলেও সেই টাকা আর ফেরত দেয়নি।

তবে গেমিংয়ের প্রতি তীব্র আশক্তি এবং অর্থ খোয়াবার মতো খবর এটিই প্রথম নয়। এমন বেশকিছু খবর বিবিসির প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। যেখানে কিশোররা তাদের বাবা-মার ব্যাকিং কার্ড থেকে অর্থ ব্যয় করে গেম খেলছে।

সূত্র: বিবিসি

চাহিদা মেটাতে সক্ষম নয় ফেসবুকের ওকুলাস

চাহিদা মেটাতে সক্ষম নয় ফেসবুকের ওকুলাস
ফেসবুকের ভিআর ওকুলাস, ছবি: সংগৃহীত

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানিগুলো শুধুই অ্যাপ ভিত্তিক সার্ভিসের বাইরেও এখন বিভিন্ন ডিভাইস নিয়ে কাজ করছে। বলতে গেলে অনলাইনের বাইরে গিয়ে তারা এখন প্রযুক্তি নির্মাতাদের দলে যোগ দিচ্ছে অধিক মুনাফা লাভের আশায়।

তেমনি ফেসবুকের তৈরি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি (ভিআর) ওকুলাস বাজারে  ছাড়ে প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু গেমিংয়ের বাজারের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে প্রস্তুত নয় ফেসবুকের এই ভার্চুয়াল রিয়েলিটি।

সিএনবিসি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশেষ করে গেমিংয়ের বাজার ধরতেই ফেসবুক তাদের ভিআর ওকুলাস বাজারে ছাড়ে। কিন্তু ওকুলাসের সহ প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ম্যাকাউলি মনে করেন বর্তমান বাজার ধরতে এটি যথেষ্ঠ নয়।

তিনি বলেন, যখন একজন ইউজার ভিআর হেডসেট পরে গেম খেলবেন কিন্তু অপর প্রান্তে থাকা তার বন্ধু দ্বিমাত্রিক (২ডি) মুডে খেলবে। যার মধ্যে কোনো সমন্বয় থাকবে না। ফলে এই ভিআর গেমিংয়ের বাজারে চাহিদা মেটাতে পারবে না।

গত ২০১৭ সালে ফেসবুক ‘ওকুলাস গো’ বাজারে ছাড়ে। যার বাজারমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৯৯ মার্কিন ডলার। মার্কেট রিসার্চ সুপার ডাটার মতে, ২ মিলিয়ন ইউনিট বিক্রি হয়েছিল ওকুলাস গো।

অন্যদিকে এবছরের মে মাসে ওকুলাস কুয়েস্ট বিক্রি হয়েছিল ১ মিলিয়ন ইউনিট এবং ওকুলাস রিফট ৫ লাখ ৪৭ হাজার ইউনিট।

তবে সম্প্রতি বাজারে আসা ‘ওকুলাস রিফট এস’ পিসি ভার্সনের জন্য অবমুক্ত করা হয়। যার বাজারমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৯৯ মার্কিন ডলার। কিন্তু ম্যাকাউলি মনে করেন বাজারের অন্যান্য ভিআর হেডসেটের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারবে ফেসবুকের ওকুলাস।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র