Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ডিজিটাল দেশ গড়তে ৪ লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ

ডিজিটাল দেশ গড়তে ৪ লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ
তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক/ছবি: সংগৃহীত
আইসিটি ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ডিজিটাল দেশ গড়তে মানবসম্পদ উন্নয়ন, ইন্টারনেট সংযোগ, ই-গভর্নেন্স এবং তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পখাত গড়ে তোলা-এ চারটি লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ।

বুধবার (১০ এপ্রিল) সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বিশ্বব্যাপী জাতিসংঘের বহুমাত্রিক অংশীদারদের প্ল্যাটফর্ম ডব্লিউএসআইএস ফোরামের ‘ডব্লিউএসআইএস অ্যাকশন লাইন-২০৩০’ শীর্ষক অধিবেশনে আলোচক হিসেবে তিনি এ কথা বলেন।

উক্ত আলোচনায় বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়ন ও বিকাশে সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রমের তথ্য তুলে ধরেন প্রতিমন্ত্রী পলক।

অধিবেশনে তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার মাধ্যমে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠার জন্য ২০০৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপকল্প-২০২১ ঘোষণা করেছেন। প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত রূপকল্প বাস্তবায়নে এ চারটি লক্ষ্য সামনে রেখে কাজ করছে বাংলাদেশ।

পলক বলেন, বর্তমানে ইনফো সরকার-৩ ও কানেকটেড বাংলাদেশ প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে সারাদেশকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় নিয়ে আসতে কাজ করছে সরকার।

প্যানেল আলোচনায় তিনি আরো উল্লেখ করেন, ইনফো সরকার-৩ প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের ২ হাজার ৬০০ ইউনিয়নকে ফাইবার অপটিক ক্যাবল সংযোগের আওতায় আনা হচ্ছে। আর দেশের সব ডিজিটাল সেন্টারে (ইউডিসি) বিপিও সেন্টার প্রতিষ্ঠা এবং ২ লাখ ফিক্স ব্রডব্যান্ড সংযোগ দেওয়ার কাজ চলছে।

সেই সঙ্গে ২০৩০ সালের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নারীর ৫০ শতাংশ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে সরকারের ওয়াইফাই (উইমেন আইসিটি ফ্রন্ট্রিয়ার ইনিশিয়েটিভ) প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন তিনি।

অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী ও জাতিসংঘের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন। তারা বাংলাদেশের এসব উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের প্রশংসা করেন।

আপনার মতামত লিখুন :

স্যামসাং কল সেন্টারের সময়সীমা বৃদ্ধি

স্যামসাং কল সেন্টারের সময়সীমা বৃদ্ধি
ছবি: বার্তা২৪.কম

গ্রাহকদের সুবিধার্থে কল সেন্টারের সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান  স্যামসাং।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) স্যামসাং জানায় আগামী ২ জুলাই থেকে স্যামসাংয়ের কল সেন্টারগুলো প্রতিদিন সকাল আটটা থেকে রাত দেড়টা (৮টা থেকে রাত ১:৩০টা) পর্যন্ত মোট ১৭.৫ ঘন্টা ফোনে ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

গ্রাহকরা  মোবাইল, টেলিভিশন কিংবা ডিজিটাল প্রাযুক্তিক যন্ত্রপাতি সংক্রান্ত কোনো সমস্যা পড়লে স্যামসাংয়ের টোল ফ্রি হেল্প নম্বরে (০৮০০০৩০০৩০০) কল করে এই সেবা নিতে পারবেন। 

মূলত, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কোনো মোবাইল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের সুবিধার্থে দিনে সাড়ে ১৭ ঘণ্টা কল সেন্টারের সময়সীমা নির্ধারণ করেছে যা বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

এ প্রসঙ্গে স্যামসাং বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার স্যাংওয়ান ইয়ুন বলেন, “আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের গ্রাহকদের প্রয়োজন এবং তাদের প্রত্যাশানুযায়ী ক্রমান্বয়ে সেবার মান বৃদ্ধি করছি। ডিজিটাল প্রযুক্তির শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, আমরা ক্রমাগত আমাদের গ্রাহকদের সেবার মান বৃদ্ধি করবো। যা গ্রাহকদের মাঝে আমাদের ব্র্যান্ডটিকে করে তুলবে আরও বিশ্বাসযোগ্য।”

 

রবি ও এয়ারটেলের গ্রাহকসেবা ১২১ এ

রবি ও এয়ারটেলের গ্রাহকসেবা ১২১ এ
ছবি: বার্তা২৪.কম

জাতীয় নম্বরকরণ পরিকল্পনা অনুযায়ী এখন থেকে একটি নাম্বারে পাওয়া যাবে  রবি ও এয়ারটেল উভয় ব্র্যান্ডের কাস্টমার কেয়ার সেবা।

 বৃহস্পতিবার (২৭ জুন)  সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে রবি জানিয়েছে, আগামী ১ জুলাই থেকে রবি ও এয়ারটেল ব্যবহারকারীরা ১২১ নম্বরে কল করে কাস্টমার কেয়ার সংক্রান্ত সুবিধা পাবেন। এর আগে রবি গ্রাহকরা ১২৩ নম্বরে কল করে এবং এয়ারটেল গ্রাহকরা ৭৮৬ নম্বরে কল করে কাস্টমার কেয়ার সংক্রান্ত সেবা নিতেন।

 বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রত্যেক গ্রাহককে মেসেজ দিয়ে বিষয়টি জানানো হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র