ইয়ুথ ফোরামের বিজয়ী দলে বাংলাদেশের সামীন আলম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

টেলিনর ইয়ুথ ফোরামের গ্রান্ড ফিনালেতে কৃষিখাতে বৈষম্য দূরীকরণের অ্যাপ বানিয়ে ‘অ্যাগ্রিম্যাচ’ নামের একটি দল পুরস্কার পেয়েছে। এই বিজয়ী দলের এক সদস্য হলেন বাংলাদেশী তরুণ সামীন আলম।

এশিয়া অঞ্চলে চাল সরবারহে বৈষম্য দূরীকরণের সমাধান দিয়ে অ্যাপটি তৈরি করেছে দলটি। অ্যাপটির মাধ্যমে ভৌগোলিক অবস্থান ব্যবহার করে কৃষক ও মধ্যস্থতাকারীরা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করতে পারবেন। বিজয়ী হিসেবে অ্যাগ্রিম্যাচ ১৫ হাজার মার্কিন ডলারের সিডফান্ড জিতেছে।

অ্যাগ্রিম্যাচ দলে সামীন আলম ছাড়াও ছিলেন মালয়েশিয়ার র‍্যাচেল লো, নরওয়ের এমিলি উনায়েস ও ডেনমার্কের ইনগ্রিদ রাসমুসেন। এ দলের জন্য প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন টেলিনর রিসার্চের ভিপি আইয়েভা মার্টিনকেনাইট।

মঙ্গলবার ব্যাংককে ডিট্যাকের প্রধান কার্যালয়ে টেলিনর ইয়ুথ ফোরামের ২০১৮-২০১৯ কার্যক্রম শেষ হয়। আটটি দেশের ১৬ তরুণ টেলিনর গ্রুপ ও ডিট্যাকের কর্মকর্তাদের সামনে ডিজিটাল সেবা নিয়ে তাদের ধারণা উপস্থাপন করেন। যেখানে ছিলেন ডিট্যাকের প্রধান নির্বাহী আলেক্সান্দ্রা রাইখ, টেলিনর গ্রুপের চিফ কর্পোরেট এ্যাফেয়ার্স অফিসার আনা কারিন ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল, ইউনিসেফ ও নোবেল পিস সেন্টারের প্রতিনিধি ও বিশেষজ্ঞরা।

ডিসেম্বরে নোবেল পিস প্রাইজ সপ্তাহে এ বছরের টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম শুরু হয়। যেখানে ১৬ জন প্রতিনিধি চারটি দলে বিভক্ত হয়ে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান নিয়ে প্রতিযোগিতা করে। ৫ হাজার অবেদনকারীর মধ্যে ২০ থেকে ২৮ বছর বয়সী ১৬ তরুণ  তাদের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পায়।

আপনার মতামত লিখুন :