ছবি আঁকতে ভালোবাসেন তিনি!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঠাকুরগাঁও
ছবি আঁকছেন যাদু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি আঁকছেন যাদু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ছোট থেকেই ভালোবাসেন ছবি আঁকতে। যে সময়টি খেলাধুলার জন্য ছিল সেই সময়টি ব্যবহার করেছেন আঁকার কাজে। এক হাতে পেনসিল আরেক হাতে ছিল রাবার। একটু সময় পেলেই খাতায় কিছু একটা এঁকে ফেলতেন। যেখানে মন চাইতো সেখানেই আঁকতেন।

ছোট বেলার এই অভ্যাস আজ যেন স্বপ্নে পরিণত হয়েছে। ধীরে ধীরে ছবি আঁকার প্রতি সৃষ্টি হয় এই চিত্রশিল্পীর ভালোবাসা। আজ তার বাসার পুরো একটি রুমেই তার আঁকা ছবি দিয়ে ভর্তি। শুধু তার রুমেই নয় ঠাকুরগাঁওসহ বিভিন্ন জায়গায় রয়েছে তার হাতে আঁকা ছবি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/13/1562973109460.jpg
ঘরেই গড়ে তুলেছেন ড্রয়িং স্টুডিও, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

 

এমনি একজন রং তুলির জাদুকর চিত্রশিল্পী ঠাকুরগাঁওয়ের কাদিমুল ইসলাম যাদু। তার স্বপ্ন নিজ জেলায় গড়বেন একটি ড্রয়িং স্টুডিও। তবে তার এই স্বপ্ন আজ প্রায় পূরণের পথেই। বর্তমানে তিনি ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের চারুকলার একজন শিক্ষক।

বার্তা টোয়েন্টিফোর.কমের সঙ্গে এই চিত্রশিল্পীর একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি জানালেন তার স্বপ্নের গল্পটি।

চিত্রশিল্পী কাদিমুল ইসলাম যাদু বার্তাটোয়েন্টিফোরকে জানান, ছোট থেকে তার ইচ্ছে ছিল একদিন চারুকলায় পড়বেন। ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকেই পড়াশুনা শেষ করে চলে যান নিজ জেলা বাইরে। চেষ্টা করতে থাকেন চারুকলায় পড়ার।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/13/1562973173259.jpg
জাদুর হাতে আঁকা চিত্রশিল্প, ছবি: ড্রয়িং স্টুডিও

 

অবশেষে ১৯৮৫ সালে রাজশাহী বিদ্যালয়ের চারুকলায় ভর্তি হন কাদিমুল ইসলাম যাদু। জীবনের প্রথম ইচ্ছেটি পূরণ হলো তার। শুরু হলো জীবনের পথ পরিবর্তনের। নিজ জেলায় যা শিখেছেন তার পুরোটাই উল্টো সেই চারুকলায়। এরপরে আবারো কঠোর পরিশ্রম শুরু করেন তিনি।

চিত্রশিল্পী যাদু জানান, একটা সময় তিনি বাসায় বসে বাংলাদেশের পতাকা, বিভিন্ন ঘরবাড়ি, মানুষের ছবি, পশুপাখিসহ বিভিন্ন ধরনের জিনিস আঁকতেন। ধীরে ধীরে এই আঁকাআঁকির প্রতি ঝোঁকটা বেড় যায় আরও। প্রথম প্রথম যখন ছবি আঁকতেন তিনি মনে করতেন ছবিগুলো হয়তো ভালো হচ্ছেনা। তবে আঁকা থামাতেন না। চেষ্টা করতেন। ঢাকা থেকে রং কিনে আনতেন। এভাবেই দিনের পর দিন চেষ্টা চালিয়ে যেতেন তিনি। চেষ্টার মাঝেই বেশ কিছু গ্যালারিতে নিজের আঁকা ছবি প্রদর্শনীর সুযোগ পান। এরপর অবশ্য পিছে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/13/1562973212899.jpg
এই তুলি পেনসিল দিয়েই ছবি আঁকেন জাদু, ছবি: ড্রয়িং স্টুডিও

কঠোর পরিশ্রমের পরে তার জীবনের যেন পূরণ হতে যাচ্ছে আরেকটি স্বপ্ন। বর্তমানে 'ন্যাশনাল আর্ট' জাতীয় পর্যায়ে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক একটি এক্সিবিশনে জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন এই চিত্রশিল্পী। সেখানে এবার সিলেক্টেড হয়েছে তার হাতের আঁকা ছবি। এই এক্সিবিশেনে নিজের হাতে আঁকা ছবি প্রদর্শনের সুযোগ পেয়ে আনন্দিত আজ তিনি।

নিজ জেলায় এই আর্ট নিয়ে কী স্বপ্ন দেখেন জানতে চাইলে চিত্রশিল্পী কাদিমুল ইসলাম যাদু বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, 'আমার ইচ্ছা আমি ঠাকুরগাঁওয়ে একটা ড্রয়িং স্টুডিও তৈরি করব। যেখানে ছবি আঁকার সরঞ্জাম থাকবে। সবাই আসবে, নিজের খুশিমতো ছবি আঁকবে। গ্যালারি থাকবে ছবির প্রদর্শনী হবে।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/13/1562973275276.jpg

ইতোমধ্যে আমি আমার বাড়িতে একটি ড্রয়িং স্টুডিও তৈরি করেছি। ছবি আঁকার সকল সরঞ্জাম রয়েছে। ভবিষ্যতে শহরের বড় একটি ড্রয়িং স্টুডিও গড়ে তুলার পরিকল্পনা করছি। প্রতিদিনই স্বপ্নটা পূরণ করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি একদিন পূরণ হবে।

আপনার মতামত লিখুন :