ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে মডেল মসজিদ



সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সর্বোচ্চ আধুনিকায়ন ও নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধায় ভরপুর দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। কি নেই এই মসজিদগুলোতে? বিশুদ্ধ ইসলাম প্রচারের পাশাপাশি এই মসজিদগুলো হয়ে উঠবে সামাজিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার সূতিকাগার।

দৃষ্টিনন্দন এই মডেল মসজিদগুলো সমাজে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা করছেন আলেম সমাজ। তারা বলছেন, বাংলাদেশের মসজিদগুলোতে সাধারণত ইবাদত কেন্দ্রিক। কিন্তু ইসলামে মসজিদের যে মূল ধারণা তা হলো ইবাদতের পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা।

রাজবাড়ী সদর উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের ঈমাম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, আজ যে মসজিদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করলেন তা ইসলামের ইতিহাসে রেকর্ড হয়ে থাকবে। কি নেই এই মসজিদে? নারী-পুরুষের আলাদা আলাদা ওযুর জায়গাসহ রয়েছে নামাজ পড়ার স্থান। যা সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে এবং শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত।

নামাজ পড়া ছাড়াও এখানে ইসলাম নিয়ে গবেষণার জন্য থাকছে লাইব্রেরি, হজ যাত্রীদের প্রশিক্ষণসহ নানাবিধও সুযোগ-সুবিধা। এই মসজিদ গতানুগতিক মসজিদগুলোর থেকে ভিন্নতা রয়েছে। একসাথে এতো মসজিদ স্থাপন করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে আনাচে কানাচে ছড়িয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উল্লেখ্য, সারা দেশে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নেন আওয়ামী লীগ সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় আজ প্রথম দফায় ৫০টি মডেল মসজিদ ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।