বিনিয়োগকারী থেকে নগদ অর্থ গ্রহণ ১০ লাখ টাকা করার প্রস্তাব ডিবিএর



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
লোগো

লোগো

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রোকারেজ হাউস বিনিয়োগকারী থেকে নগদ অর্থ গ্রহণে বিদ্যমান ৫ লাখ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ১০ লাখ টাকায় উন্নীতকরার প্রস্তাব জানিয়েছে ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ)।

বুধবার (১৯ আগস্ট) এই প্রস্তাব সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যানের কাছে পাঠানো হয়েছে। অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের কাছে এ প্রস্তাব পাঠান ডিবিএর প্রেসিডেন্ট শরীফ আনোয়ার হোসেন পাঠিয়েছেন।

এতে বলা হয়েছে, সুনিপুণ পরিকল্পনা ও যোগ্য নেতৃত্বে পুঁজিবাজার তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে এগিয়ে চলছে। যার প্রভাব বাজারের সর্বস্তরে প্রতিফলিত হয়েছে। বাজার নতুন দিশা পেয়ে তার দীর্ঘ নির্লিপ্ততা কাটিয়ে পুনরুজ্জীবিত হয়েছে। বাজারে সংশ্লিষ্ট সবর মাঝে আস্থা ফিরেছে। নতুন ও পুরনো বিনিয়োগকারী বাজারে আসতে শুরু করেছে। বাজারে তারল্য বৃদ্ধি পেয়ে ব্যবসা ও লেনদেনে গতি ফিরেছে। কোভিড-১৯ এর এহেন পরিস্থিতিতে বাজারের এরূপ পরিবর্তন আপনার বিচক্ষণতা, কর্মতৎপরতা ও গঠনমূলক উদ্যোগ মুখ্য ভূমিকা পালন করেছে। পুঁজিবাজারের এই উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে ডিবিএ আপনার এবং আপনার কমিশনের সাথে সবসময় একাত্ম হয়ে কাজ করবে।

উপর্যুক্ত বিষয়ে আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে যে, ব্রোকারেজ হাউস তার বিনিয়োগকারীর নিকট থেকে সিকিউরিটিজ ক্রয় বাবদ একদিনে নগদ ৫ (পাঁচ) লাখ টাকার অধিক অর্থ গ্রহণের ক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ আইনে নিষেধাজ্ঞাসহ শাস্তির বিধান রয়েছে। উক্ত বিধানটি দীর্ঘ বছর থেকে প্রচলিত হয়ে এখনও অব্যাহত রয়েছে। যা বিনিয়োগকারী ও ব্রোকারদের ব্যবসা তথা পুঁজিবাজার উন্নয়নে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে আসছে।

এখানে উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশ ব্যাংক সব ব্যাংকগুলোতে নগদ লেনদেনে ১০ (দশ) লাখ টাকা দুইবছর আগেই কার্যকর করেছে।

৫ লাখ টাকার অধিক নগদ অর্থ গ্রহণের নিষেধাজ্ঞা থাকায় একদিকে বিনিয়োগকারী তার কাঙ্ক্ষিত শেয়ার নির্দিষ্ট দিনে নির্দিষ্ট দরে ক্রয় করতে ব্যর্থ হয়ে বিনিয়োগে বিরক্ত হয়ে শেয়ার ক্রয়ে তার আগ্রহ হারাচ্ছে অন্যদিকে ব্রোকারেজ হাউস ৫ লাখ টাকার বেশি নগদ অর্থ গ্রহণ না করতে পেরে বিনিয়োগকারীর চাহিদা মাফিক শেয়ার ক্রয় প্রদানে ব্যর্থ হয়ে তাদের দৈনিক লেনদেন হ্রাস পেয়ে কমিশন আয়ে ঘাটতি তৈরি হচ্ছে। যে কারণে উক্ত বিনিয়োগকারী ও ব্রোকারেজ হাউস উভয়েই ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বিষয়টি অর্থ গ্রহণে ও শেয়ার লেনদেনে সরাসরি বাধা তৈরি করে বিধায় বিনিয়োগকারী ও ব্রোকারদের পাশাপাশি বাজার উন্নয়ন ও অগ্রগতিতেও বাধার সৃষ্টি করে।

বর্তমান বাজার মূলধন, বাজারের গতি, প্রকৃতি, ধরণ, আকার, ব্যপ্তি, বিনিয়োগকারীর ধরণ, সামর্থ্য, অর্থ আয়ের উৎস ও প্রবাহ, দেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি, মানদণ্ড, আকারসহ জনগণের অর্থ সামর্থ্যরে যৌক্তিকতা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনা করে, বিনিয়োগকারী থেকে ব্রোকারেজ হাউস নগদ অর্থ গ্রহণ বিদ্যমান ৫ লাখ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে কমপক্ষে ১০ লাখ টাকায় উন্নীতকরণে আপনার সদয় বিবেচনা ও আন্তরিক হস্তক্ষেপ কামনা করছি।