১৫ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১২৬ কোটি ৪২ লাখ ডলার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা মহামারির মধ্যেও রেমিট্যান্স পাঠানো অব্যাহত রেখেছেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা। পবিত্র ঈদুল আজহা সামনে রেখে জুলাই মাসের প্রথম ১৫ দিনেই প্রবাসীরা ১২৬ কোটি ৪২ লাখ ডলার দেশে পাঠিয়েছেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১০ হাজার ৭০০ কোটি টাকা।

সোমবার (১৯ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, চলতি জুলাই মাসের প্রথম ১৫ দিনে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স বা প্রবাসী আয় এসেছে বেসরকারি ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে এসেছে ৩৮ কোটি ৭৮ লাখ ডলার। এরপর ডাচ-বাংলা ব্যাংক ১৬ কোটি ৯২ লাখ, অগ্রণী ব্যাংক ১৩ কোটি ৭৬ লাখ ও সোনালী ব্যাংক এনেছে ৭ কোটি ৬৪ লাখ ডলার।

গত জুন মাসে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ১৯৪ কোটি মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। ফলে সদ্য সমাপ্ত ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে রেমিট্যান্স আহরণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় দুই লাখ ১০ হাজার ৬১০ কোটি টাকার বেশি। এটি আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৬ দশমিক ১০ শতাংশ বেশি। এর আগে কোনো অর্থবছরে এত পরিমাণ রেমিট্যান্স আসেনি বাংলাদেশে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরে এক হাজার ৮২০ কোটি ডলার বা ১৮ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। অর্থবছর হিসেবে ওই অংক ছিল এর আগে বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ। তারও আগে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশে রেমিট্যান্স আহরণের রেকর্ড হয়। ওই সময় এক হাজার ৬৪২ কোটি ডলার রেমিট্যান্স দেশে আসে।

এদিকে রেমিট্যান্সের প্রবাহ চাঙ্গা থাকায় ইতিবাচক অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। জুন মাস শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৬ দশমিক ৪২ বিলিয়ন ডলার বা প্রায় চার হাজার ৬৪২ কোটি ডলার।

গ‍্যাস-বিদ‍্যুৎ-সারের মূল‍্যবৃদ্ধির উদ‍্যোগ নেয়া হয়নি: অর্থমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

  • Font increase
  • Font Decrease

মহামারীর এই সময়ে সরকারের পক্ষ থেকে গ‍্যাস, বিদ‍্যুৎ ও সারের মূল‍্যবৃদ্ধির কোন উদ‍্যোগ নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

রোববার (২৩জানুয়ারি) সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, গ‍্যাস, বিদ‍্যুৎ ও সারের মূল‍্যবৃদ্ধির কোন উদ‍্যোগ নেয়া হয়নি। আমি এই বিষয়ে যখন জানব তখন আপনাদের বিস্তারিত জানাব।

তিনি বলেন, আমরা সব সময় চ‍্যালেঞ্জের মধ‍্যে কাজ করছি। গতবছর করোনা নিয়ে যতটা ভয় পেয়েছিলাম ততটা ক্ষতি হয়নি। আমরা সফলভাবে করোনা মোকাবিলা করতে পেরেছি। এবারও পারব।

আজকে ক্রয়সংক্রান্ত কমিটির বৈঠকে ৪টি প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। প্রস্তাবনাগুলোর মধ্যে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ১টি, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ১টি, সেতু বিভাগের ১টি, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ১টি প্রস্তাবনা ছিল।

বৈঠক শেষে অনুমোদিত প্রস্তাবনাসমূহের বিস্তারিত তথ্য সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সামসুল আরেফিন।

;

বড় ব‍্যবসায়িরা বেশি ঋণখেলাপি হন: এফবিসিসিআই



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ‍্যোক্তাদের ঋণ দিতে চায় না ব‍্যাংক। তারা দাবি করে এরা ঋণখেলাপি হবে। কিন্তু বড় ব‍্যবসায়িরাই বেশ ঋণখেলাপি হন। ছোটরা ঠিকই ঋণের টাকা পরিশোধ করে দেন। 

শনিবার (২২ জানুয়ারি ) মতিঝিলের এফবিসিসিআই অডিটোরিয়ামে 'দেশের ব‍্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় চেম্বারের ভূমিকা, সমস্যা ও সম্ভাবনা' শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। 

জসিম উদ্দিন বলেন, করোনার মধ্যে ব‍্যবসায়িরা যেন ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেন সেজন‍্য দুটি প্রণোদনা প‍্যাকেজ দেন প্রধানমন্ত্রী। বড় ব‍্যবসায়িদের জন‍্য এক লাখ ৮৭ হাজার কোটি টাকার প‍্যাকেজ ও এসএমই উদ‍্যোক্তাদের জন‍্য ২২ হাজার কোটি টাকার প‍্যাকেজ। বড় ব‍্যবসায়িরা প্রণোদনার টাকা পেলেও এসএমই উদ‍্যোক্তারা পদে পদে বাধার সম্মুখীন হয়েছে। প্রণোদনা প‍্যাকেজের মাত্র ২০ শতাংশ ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। 

তিনি বলেন, করোনার কারণে বিশ্বব‍্যাপী সাপ্লাই চেইন নষ্ট হয়ে গেছে। অনেক বড় বড় কোম্পানি পথে  বসে গেছে। আমাদের এখানেও অনেক ক্ষতি হয়েছে। গতবছর লকডাউনের কারণে অনেক কোম্পানি বসে ছিল। তারা এখনো ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেনি। এরমধ্যে ঋণ পরিশোধের জন‍্য চাপ দেয়া হচ্ছে। ঋণ পরিশোধের সময় যদি না বাড়ায় তাহলে অনেক কোম্পানি ঋণখেলাপি হয়ে যাবে।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, কাঁচামালের দাম বাড়ার কারণে শুল্ক বেশি দিতে হচ্ছে। এতে রাজস্ব বেশি আয় হচ্ছে। রাজস্ব আয় বাড়া খুশির সংবাদ কিন্তু ব‍্যবসায়িদের ক্ষতি করে বাড়াটা ভাল খবর নয়। কাঁচামালের দাম বাড়ায় পণ‍্যের দামও বেড়ে যাচ্ছে। যারা কর দিচ্ছে তাদের উপর সরকার আরও কর বাড়িয়ে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই) এর সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ), মহামারীর কারণে গতবছর ৯ মাস মন্দা গেছে। ব‍্যবসায়িরা ব‍্যবসায় করতে পারনি। ব‍্যাংকে ঋণের কিস্তির মেয়াদ না বাড়ালে তারা কিস্তি কিভাবে দিবে তাদেরতো হাতে টাকা নাই। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব‍্যাংক গভর্নর বিবেচনা করবে বলে আমি আশা করি।

ডিসিসিআই সভাপতি রিজওয়ান রহমান বলেন, শিল্পনীতি, ভ‍্যাট হয়রানি এটা নতুন নয়। অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও ভ‍্যাট অটোমেশনের দিকে যেতে পারিনি। ভ‍্যাট অটোমেশন না হলে ব‍্যবসায়িদের হয়রানি বন্ধ হবে না। 

কাউন্সিল অব চেম্বার প্রেসিডেন্টস এর সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবুর সভাপতিত্বে দেশের বিভাগীয় চেম্বার অব কমার্স ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতিরা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। 

;

যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট

যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট

  • Font increase
  • Font Decrease

যমুনা ফিউচার পার্কে একটি ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা গ্রুপের সহ‌যোগী প্রতিষ্ঠান ইউএস-বাংলা ফুটওয়ারের ব্র্যান্ড ভাইব্রেন্ট।

ইউএস-বাংলা ফুটওয়্যার লিমিটেডের সিইও রুহুল আমিন এবং যমুনা গ্রুপের পরিচালক আলমগীর আলম সম্প্রতি একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেন।ব্র্যান্ডটির ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ২১টি আউটলেট রয়েছে।

;

সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স ২০২২’ অনুষ্ঠিত



Tabassum Tanjim
ছবি: সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স

ছবি: সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স

  • Font increase
  • Font Decrease

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড ব্যাংকের ব্যবসায়িক অবস্থান ও মূল্যায়ন সম্পর্কিত ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স ২০২২’ এর আয়োজন করে। সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান জনাব আলমগীর কবির, এফসিএ উক্ত কনফারেন্সে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন।

কনফারেন্সে, ভাইস চেয়ারপার্সন মিসেস দুলুমা আহমেদ, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্য জনাব আজিম উদ্দিন আহমেদ, পরিচালনা পর্ষদের পরিচালকবৃন্দ - মিসেস জোসনা আরা কাশেম, মিসেস রেহানা রহমান, জনাব মো: আকিকুর রহমান, বে-লিজিং এন্ড ইনভেষ্টমেন্ট লিমিটেডের পক্ষে জনাব এম. মনিরুজ্জামান খান, জনাব নাসির উদ্দিন আহমেদ, এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের পক্ষে জনাব মো. রফিকুল ইসলাম, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র পরিচালক জনাব সৈয়দ সাজেদুল করিম এবং স্বতন্ত্র পরিচালক জনাব ড. কাজী মেজবাহউদ্দিন আহমেদ ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন।

সাউথইস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. কামাল হোসেন কনফারেন্সে সভাপতিত্ব করেন। সাউথইস্ট ব্যাংকের সকল শাখা প্রধান, উপশাখা প্রধান, বিভাগীয় প্রধান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত কনফারেন্সে সংযুক্ত হন। কনফারেন্সে ব্যাংকের সার্বিক অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয় এবং ২০২২ সালের বার্ষিক ব্যবসায়িক লক্ষ্য অর্জনের জন্য বিভিন্ন নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।

;